সোমবার ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৮

কে হচ্ছেন বলির পাঠা?

বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮, ১৪:২১

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: ঘনিয়ে আসছে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। নির্বাচন ঘিরে গত কয়েকদিন ধরে নানা নাটকীয়তা ঘটছে। জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচনে যাওয়ার ঘোষনা দেয়ায় নড়ে-চড়ে বসেছে ক্ষমতাসীন মহাজোট। দৃশ্যপটে পরিস্কার হয়ে গেছে এবারও জোটগত ভাবেই একাদশ জাতীয় নির্বাচনে যাচ্ছে আওয়ামী লীগ। অন্যদিকে ডঃ কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে জোটবদ্ধ হয়ে নির্বাচন করবে বিএনপির। দুই জোটের নির্বাচনী তৎপরতায় নতুন মাত্রা যোগ হয়েছে ভোটের মাঠে। চায়ের টেবিল থেকে শুরু করে জেলার সর্বত্র আলোচনার কেন্দ্র বৃন্দ আগামী নির্বাচন। ইতিমধ্যেই দুই জোটের দলগুলো মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু করেছে। মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন দুই জোট থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী নারায়ণগঞ্জের ৫টি আসনে সম্ভাব্য প্রার্থীরা। কিন্তু সবার চোখ কে পাচ্ছেন, নারায়ণগঞ্জে ঐক্যফ্রন্ট ও মহাজোটের মনোনয়ন। অন্যদিকে নারায়ণগঞ্জের একটি আসনে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের মনোনয়ন সংগ্রহের বিষয়টি আলোচনায় নতুন মাত্রা যুক্ত করেছে। জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণের জন্য নারায়ণগঞ্জ-১ (রূপগঞ্জ) থেকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। বৃহস্পতিবার (১৫ নভেম্বর) বেলা ১১টায় এরশাদের যুব বিষয়ক উপদেষ্টা এডভোকেট রেজাউল ইসলাম ভূইয়া এ মনোনয়নপত্রটি সংগ্রহ করেন। এছাড়াও সাবেক এ রাষ্ট্রপতি এর আগে ঢাকা-১৭ এবং রংপুর-১ আসনের মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন।

এদিকে গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতীকের মনোনয়ন ঠেকাতে এরশাদকে প্রার্থী করার ষড়যন্ত্র চলছে বলে অভিযোগ উঠেছে খোদ স্থানীয় আওয়ামীলীগের একটি অংশের বিরুদ্ধে। বুধবার (১৪ নভেম্বর) আওয়ামীলীগের গাজী পন্থী আওয়ামীলীগের নেতারা সংবাদ সম্মেলন করে বলেছেন, রূপগঞ্জের উন্নয়নের রুপকার গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতীক ছাড়া অন্য কাউকে রূপগঞ্জে প্রার্থী হিসেবে মেনে নেয়া হবেনা। সংবাদ সম্মেলনে রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি তোফাজ্জল হোসেন মোল্লা, উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার সাইফুল ইসলাম, জেলা আওয়ামীলীগের যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক মানজারুল আনাম মোল্লা টুটুল, উপজেলা পরিষদের নারী ভাইস চেয়ারম্যান ফেরদৌসি আলম নীলাসহ উপজেলা আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, মহিলালীগের বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। ফলে তাদের অভিযোগ সত্য হতে চলেছে বৃহস্পতিবার এরশাদের মনোনয়ন পত্র সংগ্রহের মধ্য দিয়ে।

ওদিকে বর্তমানে নারায়ণগঞ্জের ৫টি আসনের মধ্যে ২টি মহাজোটের শরিক জাতীয় পার্টির বাকি ৩টি আওয়ামী লীগের। দুই একদিনের মধ্যে জানা যাবে মহাজোটে কারা পাচ্ছেন মনোনয়ন। পাশাপাশি মানুষের আগ্রহ মহাজোটের শরিক জাতীয় পার্টির দিকে। তারা এবার কয়টি আসনে লড়বে? এছাড়া রূপগঞ্জে গাজীপন্থী আওয়ামীলীগ নেতাদের কথা যদি সত্য হয় এবং নারায়ণগঞ্জ-১ (রূপগঞ্জ) আসনে শেষ পর্যন্ত এরশাদ নির্বাচন করেন সেই ক্ষেত্রে জেলার বর্তমান দুইটি আসনের একটি ছাড়তে হতে পারে জাতীয় পার্টিকে। সেই ক্ষেত্রে নারায়ণগঞ্জে বলি হবেন লিয়াকত হোসেন খোকা নাকি সেলিম ওসমান? এমন আলোচনা ঢাল পালা মেলতে শুরু করেছে। অন্যদিকে কপালে চিন্তার ভাজ পড়তে শুরু করেছে গাজীর শিবিরেও।

সব খবর
রাজনীতি বিভাগের সর্বশেষ