শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০

হৃদরোগ ইনস্টিটিউট করতে আইনমন্ত্রীকে শামীম ওসমানের ডিও লেটার

সোমবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২০, ১৭:১৩

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: শহরের সমবায় ভবনে ২৩ জানুয়ারি নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে আওয়ামী লীগপন্থী আইনজীবী প্যানেলের পরিচিতি সভায় পুরাতন কোর্টে নির্মিত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের নতুন অব্যবহৃত ভবনটিতে হৃদরোগ ইনস্টিটিউট করার অভিপ্রায় জানিয়েছিলেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান। এবার আনুষ্ঠানিক ভাবে ভবনটিকে জনস্বার্থে হৃদরোগ ইনস্টিটিউট করার অনুমতি ও প্রয়োজনীয় নির্দেশনা চেয়ে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আনিসুল হক বরাবর ডিও (ডিমান্ড অব অর্ডার) লেটার দিয়েছেন তিনি।

সোমবার (২৭ জানুয়ারি) সকালে সাংসদ শামীম ওসমানের ডিও লেটারটি সংশ্লিষ্ট মন্ত্রীর দপ্তর গ্রহণ করেছে বলে জানা গেছে।

তিনি তার ডিও লেটারে মন্ত্রীকে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সর্বস্তরের মানুষের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা জানিয়ে লিখেছেন, নারায়ণগঞ্জ জেলায় কোনো মানসম্মত হার্ট ইনস্টিটিউট না থাকার কারণে হৃদরোগে আক্রান্ত ৯০ শতাংশ রোগী প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য রাজধানী ঢাকায় ছুটতে বাধ্য হয়। পথে নানা বাধা-বিপত্তি ও যানজটের কারণে অনেক রোগীই বিলম্বজনিত কারণে মৃত্যু বরণ করছেন।

তিনি আরও লিখেন, নারায়ণগঞ্জ জেলার পুরাতন জজ আদালত প্রাঙ্গনে নতুন ভবনটি দীর্ঘদিন যাবৎ অব্যবহৃত অবস্থায় পড়ে আছে। ভবনটি নারায়ণগঞ্জের বৃহত্তর জনস্বার্থে ব্যবহারের দাবি উঠেছে। সম্প্রতি এক সমাবেশে নারায়ণগঞ্জে একটি আধুনিকমানের হার্ট ইনস্টিটিউট স্থাপনের জন্য গুরুত্ব তুলে ধরে বক্তব্যের এক পর্যায়ে আমি ওই ভবনটি ব্যবহারের পরিকল্পনা ব্যক্ত করলে উপস্থিত হাজার হাজার জনতা সমস্বরে এবং মুখরিত স্লোগানে তাদের কাঙ্খিত স্বপ্ন বাস্তবায়নে এই প্রস্তাবে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন। বিষয়টি ইতোমধ্যে নারায়ণগঞ্জের সর্কস্তরের জনসাধারণের মাঝে ব্যাপক সাড়া ফেলে দিয়েছে। তারা অপেক্ষার প্রহর গুণতে শুরু করেছে। এ ব্যাপারে আপনার আন্তরিক সহযোগিতা পাবো বলে আমি নারাগঞ্জবাসীকে আশ্বস্ত করেছি।

সাংসদ শামীম ওসমান আরও লিখেছেন, সম্মিলিত আইনজীবীদের দাবি অনুযায়ি আপনি কথা দিয়েছিলেন বর্তমান আদালত ভবন যেখানে আছে সেখানেই আরেকটি নতুন ভবন হবে। আইনজীবীদের কাঙ্ক্ষিত স্বপ্ন বাস্তবায়নে আপনার এই আশ্বাসের ফলে তাদেরও মনে আশার সঞ্চার ঘটে। সেক্ষেত্রে প্রাচ্যের ডান্ডিখ্যাত পিছিয়ে থাকা নারায়ণগঞ্জ জেলার আপামর জনসাধারণের বৃহত্তর স্বার্থে পুরাতন জজ আদালতের অব্যবহৃত নতুন ভবনটিতে একটি আধুনিকমানের হার্ট ইনস্টিটিউট স্থাপন করা হলে জাতির জনকের কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা নারায়ণগঞ্জবাসীর কাছে অবিস্মরণীয় হয়ে থাকবে এবং আপনার নিকটও কৃতজ্ঞ থাকবে। তাই আপনার বিচক্ষণতা ও সঠিক নির্দেশনায় আন্তঃমন্ত্রণালয় সংক্রান্ত কার্যাদি সম্পন্ন করে যথাশীঘ্র নারায়ণগঞ্জে একটি মানসম্মত হার্ট ইনস্টিটিউট স্থাপন করার জন্য আপনাকে বিনয়ের সহিত অনুরোধ করছি।

উল্লেখ্য দেশের নির্বাহী বিভাগ থেকে বিচার বিভাগ আলাদা করলে আদালতগুলোতে বিশেষ করে চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে এজলাসের অপ্রতুলতা দেখা দেয়। ফলে বিচারকরা এজলাস ভাগাভাগি করে বিচারিক কাজ চালাতে থাকেন। কিন্তু তাতে করে বিচারক, আইনজীবী ও বিচারপ্রার্থী জনগণ যেমন ভোগান্তির শিকার হতে থাকেন, তেমনি মামলার জট দিনের পর দিন বাড়তে থাকে। তখন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেসির স্থান সংকুলানের জন্য দেশের ৬৪টি জেলায় একটি করে সিজেএম আদালত ভবন নির্মাণ প্রকল্প গ্রহণ করা হয়। এর প্রথম পর্যায়ে দুই হাজার ৩৮৮ কোটি টাকা ব্যয়ে ৪২টি জেলায় সিজেএম আদালত ভবন নির্মাণ করা হয়। সেই প্রকল্পের আওতায় ২০১৬ সালে প্রায় ২৫০ কোটি টাকা ব্যয়ে নারায়ণগঞ্জ শহরের শায়েস্তা খান সড়কে পুরাতন কোর্ট এলাকায় চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের নতুন ৮ তলা ভবন নির্মাণ করে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়। নারায়ণগঞ্জে জেলা জজ আদালত ও চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের কার্যক্রম পরিচালিত হয় ফতুল্লার চাঁদমারীতে অবস্থিত জেলা জজ আদালত ভবনে। জেলা জজ আদালত থেকে নতুন নির্মিত চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের দূরত্ব কমপক্ষে আড়াই কিলোমিটার। ভবন দু’টি পৃথক স্থানে থাকলে সাড়ে বারশো আইনজীবী ও তাদের সহকারীরা এবং বিচারপ্রার্থীরা ভোগান্তির শিকার হবেন এই দাবিতে জেলা জজ আদালত ও জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের ভবন একইস্থানে রাখার জন্য দাবি জানায় সাধারণ আইনজীবীরা। পরে আইনজীবীদের দাবির মুখে দুই কোর্ট একস্থানে রাখলেও নবনির্মিত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের নতুন ৮ তলা ভবন অব্যবহৃত থেকে যায়।

সব খবর
রাজনীতি বিভাগের সর্বশেষ