শুক্রবার ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

হামলার ঘটনায় যা বললেন সাহাবদ্দিন সিএনজি স্টেশনের মালিক

বৃহস্পতিবার, ২৯ আগস্ট ২০১৯, ১৯:১৪

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: ফতুল্লার শিবু মার্কেট এলাকায় ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডের পাশে অবস্থিত সাহাবদ্দিন সিএনজি ফিলিং স্টেশনে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সাংসদ সেলিম ওসমানের গাড়িতে গ্যাস নেওয়ার জন্য লাইনে দাড়াতে বলাকে কেন্দ্র করে এমপির অনুসারী আওয়ামী লীগ নেতারা এ ভাঙচুর চালিয়েছে বলে জানান প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয়রা।

বুধবার (২৯ আগস্ট) দিবাগত রাত ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর থেকেই আতঙ্কিত পাম্পের লোকজন পাম্পটি তালা মেরে চলে যায়। পরদিন বৃহস্পতিবার (২৯ আগস্ট) সকাল থেকেই পাম্পটি বন্ধ পাওয়া যায়।

এ বিষয়ে জানতে সাহাবদ্দিন সিএনজি ফিলিং স্টেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আবু সাঈদ মুঠোফোনে প্রেস নারায়ণগঞ্জকে বলেন, ‘আমি তো স্পটে উপস্থিত ছিলাম না। তবে আমার স্টাফরা আমাকে জানিয়েছে হঠাৎ করে কিছু লোক এসে বাইরে ও ভেতরে ভাঙচুর করে। রাতে ১২ জন স্টাফ থাকে। তাদের কয়েকজনকে চর-থাপ্পর দেয়।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমাদের সিসি ক্যামেরা ভেঙ্গে ডিভিআর-টা (ডিজিটাল ভিডিও রেকর্ডার) নিয়ে গেছে। যার ফলে কারা হামলাটা চালিয়েছে তা আইডেন্টিফাই করা যায়নি। আর তাছাড়া পাম্পে অনেক লোক আসে যার ফলে স্টাফরাও চিনতে পারে নাই। পাম্পে অনেক ভিড় থাকে হামলাকারীরা অতর্কিতভাবে এসে হামলা চালিয়ে আবার হুট করেই চলে যায়।’

এ ঘটনার সাথে সাংসদ সেলিম ওসমানের সম্পৃক্ততার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘এমপি সাহেবের সাথে কোন ব্যাপার না। এমপি সাহেব তো আমাদেরই লোক। সেলিম ভাই, শামীম ভাই আমাদের নিজেদের মানুষ। আসলে ব্যাপারটা যে কোনদিকে গেছে সেটা ফাইন্ড-আউট করতে পারতেছি না।’

সিএনজি স্টেশনটির মালিক বলেন, ‘এমপি সাহেবের সাথে কোন ঘটনা ঘটেনি। যারা বলছে তারা বানায়ে বলছে। ঘটনাটা এমপি সাহেব কেন্দ্রীক না। ঘটনাটা যে কোন কেন্দ্রীক হয়েছে তা আমরা এখনো ফাইন্ড-আউট করতে পারি নাই। যারা এই ঘটনা ঘটাইছে তারা এমপি সাহেবকে জড়াচ্ছে। এটা ইনটেনশনালী করতেছে তারা।’

তিনি আরো বলেন, ‘সেলিম ওসমান সাহেবের সাথে ব্যক্তিগতভাবে আমাদের ভালো সম্পর্ক। আমরা জানতে চাচ্ছি ঘটনা কোন দিক থেকে হইছে। সেলিম ওসমানের সাথে আমাদের কথাও হয়েছে। ঘটনাটা কীভাবে হয়েছে তা খুঁজে বের করার চেষ্টা করছি। পুলিশও ঘটনার আসল কাহিনী খোঁজার চেষ্টা করছে।’

আবু সাঈদ বলেন, ‘আমি মূলত ঢাকাতে থাকি। আমার স্ত্রী ও নাতির ডেঙ্গু। আমি এ নিয়ে বেশি ব্যস্ত রয়েছি। তাই আমি এদিকে নাক গলাচ্ছি না। সব কিছু আমার ম্যানেজারের উপর ছেড়ে দিছি।’

সব খবর
নগরের বাইরে বিভাগের সর্বশেষ