শুক্রবার ২৩ আগস্ট, ২০১৯

হকার সমস্যা, নগর জীবন ও গণমাধ্যমের ভূমিকা

রবিবার, ২১ জানুয়ারি ২০১৮, ২২:১৪

অঞ্জন দাস

বিগত ১৬ জানুয়ারি হকার ইস্যুকে কেন্দ্র করে নারায়ণগঞ্জে যে সন্ত্রাসী হামলা মঞ্চস্থ হলো তাতে সিটি মেয়রসহ অনেকেই আক্রান্ত হলেন। এবং এ সন্ত্রাসী হামলার মোটিভ পরিকল্পিত বলে ইঙ্গিত করলেও বাহুল্য হবেনা। এ ঘটনার পূর্বে ও পরে আরো অনেক ঘটনা নানা বিতর্ক পত্র-পত্রিকা থেকে শুরু করে চায়ের দোকান, সর্বত্রই আলোচনার কেন্দ্রে অবস্থান করছে।

সরকার থেকে শুরু করে সরকারি প্রশাসন স্থানীয় সরকার (সিটি কর্পোরেশন) নাগরিক সমাজের একংশ চায় নগরের রাস্তা নাগরিকদের চলাচল উপযোগি করতে ফুটপাত হকার মুক্ত হোক।

নিসন্দেহে ফুটপাত মানুষের চলাচল উপযোগি হোক এটা প্রায় সকলেরই কাম্য। আবার একই সরকারের অংশ হলেও নারায়ণগঞ্জের গডফাদার বলে খ্যাত ৪ আসনের সংসদ সদস্য শামিম ওসমান চান হকাররা ফুটপাতে বসবে। কিন্তু হকাররা যে বেঁচে থাকার মৌলিক সংকটে আছে তার সমস্যা সমাধানে তিনি কতটুকু দায়িত্বশীল ও আন্তরিক??

আন্তরিতার প্রশ্নটি ১৬ তারিখে তার অনুসারী সন্ত্রাসীদের দিয়ে ঐ হামলায়ই সন্দেহ তৈরির জন্য যথেষ্ট। এই শহরের প্রায় ৪ হাজার হকারদের কাছ থেকে নিয়মিত চাঁদা তুলে মাস্তানদের লালন আর সভা-সমাবেশে হাজার রেডিমেট জমায়েতের খাত
এই ভ্রাম্যমান হকাররা!!
কারা এই হকার? হকার কি সৌখিন কোন পেশা?
এই প্রশ্নের উত্তর খোঁজা জরুরি।

এই মানুষগুলো আমার দেশের অধিকাংশ শ্রমজিবী জনগোষ্ঠীররই অংশ। বেশিরভাগই গ্রাম থেকে মহাজনি ঋণগ্রস্থ অথবা গ্রামিন বেকার। উচ্ছেদ হয়ে শহরে পারি জমিয়েছে জীবনের তারনায়। চাষাড়ার বেশ কয়েকজন হকার আমার পূর্ব পররিচিত। শ্রমিক রাজনীতির সুবাদে তাদের সাথে পরিচয়। তাদেরই একজন মহির উদ্দিন, তার বাড়ি জামালপুর। তার বয়ান ★`কারখানায় কাম করতাম, অন্যায়ভাবে ছঁটাই করে বেড় করে দিলো মালিক। আইলাম রাস্তায় সেখানেও থাকতে দিবনা! যামু কই??`

প্রায় সবগুলো জীবনের গল্প এরকমই। রাষ্ট্রের দায়িত্ব হচ্ছে কর্মসংস্থানের ব্যাবস্থা করা। সেটাতো করছেনইনা উপরন্তু জীবন যাপনে লুটেরাদের কারণে নিত্যপ্রয়োজনিয় সামগ্রির লাগামহীন উর্দ্ধগতিতে দিশেহারা শ্রমজিবী মানুষ। যে রাষ্ট্রে নূন্যতম মজুরির নিশ্চয়তা নাই, নিরাপদ কর্মপরিবেশ, মানবিক মর্যাদা নাই সেই মৌলিক সমস্যার সমাধান না করে নির্বিচারে উচ্ছেদ অমানবিক। এমনকি মুক্তিযুদ্ধের অঙ্গিকারের বিপরীত।

নাগরিক সমস্যার প্রশ্নে বলতে গেলে এটা অনস্বিকার্য যে বি বি রোড শিশু, নারী বৃদ্ধের জন্য প্রায় হাটার অনুপযোগি। তার সমাধানের জন্য বিভিন্ন পেশাজীবী ও হকারদের নিয়ে গণতান্ত্রিক উপায়েই সমাধানের পদক্ষেপ নেয়া যেতো। তার জন্য গণমাধ্যম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিতে পারতো। এই ইস্যুতে সংবাদমাধ্যমের ভূমিকা যথেষ্ট দায়িত্বশীল ছিলোকি?? নিউজের ধরনগুলো দেখুন "আপনারা হকার উচ্ছেদের পক্ষে নাকি বিপক্ষে মতামত দিন"!!

ররঙ তাদের প্রায় সকলেই সামাজিক একটি সমস্যাকে আড়াল করে ওসমান ও আইভির ক্ষমতার দ্বন্দের দিকে নিয়ে গেছেন যা অত্যন্ত দুঃখজনক।

একদিকে যেমন হকারদের নিয়ে একজন বামপন্হী নেতা সস্তা জনপ্রিয়তার জন্য আন্দোলনকে ভূলভাবে গডফাদারের কতৃক ব্যাবহৃত হয়েছেন। অপরদিকে তেমনি গণমাধ্যমও সস্তা প্রচারের উদ্দেশ্যে ক্ষমতাসিন দলের দুই মেরুর দ্বন্দকে উস্কে দিয়েছেন!! 
আর সাধারন হকাররা হতে চলেছেন বলির পাঁঠা।

সব খবর
মতামত বিভাগের সর্বশেষ