রবিবার ১৬ মে, ২০২১

সোনারগাঁ আ’লীগের নতুন আহ্বায়ক কমিটি

সোমবার, ২২ মার্চ ২০২১, ১৭:৫৬

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: নানা বিতর্কের অবসান ঘটিয়ে অবশেষে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলা আওয়ামী লীগের নতুন আহ্বায়ক কমিটির অনুমোদন দিয়েছে জেলা আওয়ামী লীগ৷ কমিটিতে আহ্বায়ক করা হয়েছে অ্যাড. শামসুল ইসলাম ভূঁইয়াকে৷ দু’জন যুগ্ম আহ্বায়ক রাখা হয়েছে কমিটিতে৷ প্রথমজন সাবেক সংসদ সদস্য আব্দুল্লাহ আল কায়সার হাসনাত অন্যজন ইঞ্জিনিয়ার মাসুদুর রহমান মাসুম৷ তবে কমিটিতে বাদ পড়েছেন সাবেক ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান কালাম৷

সোমবার (২২ মার্চ) জেলা আওয়ামী লীগের প্যাডে সভাপতি আব্দুল হাই ও সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত মো. শহীদ বাদল এই কমিটির অনুমোদন দিয়ছেন৷

নতুন আহ্বায়ক কমিটিতে ১৮ জন সদস্য রয়েছেন৷ তাদের মধ্যে রয়েছেন, ডা. আবু জাফর চৌধুরী বীরু, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোশারফ হোসেন, এসএম জাহাঙ্গীর আলম, শামসুদ্দিন খান আবু, বাবুল ওমর, আরিফ মাসুদ বাবু, মাহমুদা আক্তার ফেন্সি, আশরাফুজ্জামান, রফিকুল ইসলাম নান্নু, মোহাম্মাদ আলী হায়দার, মোস্তাফিজুর রহমান মাসুম, মোহাম্মদ জহিরুল হক, মোহাম্মদ মাহবুব হোসেন সরকার, অ্যাড. আবু তাহের ফজলে রাব্বি, অ্যাড. ইকবাল হোসেন, লায়ন মোহাম্মদ মাহবুবুর রহমান বাবুল, মোহাম্মদ মাহবুর রহমান লিটন, গাজী মজিবুর৷

এদিকে এ কমিটি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বাদ পড়া মাহফুজুর রহমান কালাম৷ তিনি বলেন, ‘এক কমিটি দিলো৷ সেটা বিলুপ্ত ঘোষণা না করে আবার আহ্বায়ক কমিটি দিলো৷ স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলন থেকে শুরু করে বিভিন্ন সময় মাঠ পর্যায়ে লড়াই সংগ্রাম করা অনেকেই কমিটিতে জায়গা পায় নি৷ এখন তো আর দলীয় চিন্তা থেকে কমিটি হয় না, বাজার কমিটি হয়৷

তিনি অভিযোগ করে বলেন, ‘ইয়াবা ব্যবসায়ী, বিএনপি ঘরানার লোকদের কমিটিতে রাখা হবে কিন্তু আমরা যারা মাঠ পর্যায়ে কাজ করছি তাদের বাদ দেওয়াটা তো সমীচীন নয়৷ এটা তো লিগ্যাল কমিটি হলো না৷ এ বিষয়ে সিনিয়র নেতৃবৃন্দের সাথে আলাপ করবো৷’

কমিটির বিষয়ে কথা বলতে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাইয়ের মুঠোফোনের নম্বরে একাধিকবার চেষ্টা করেও যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি৷ তবে ও সাধারণ সম্পাদকের আবু হাসনাত মো. শহীদ বাদল বলেন, ‘সকলকে নিয়ে পুনর্বিন্যাস করে দিয়েছি কমিটি৷ আর কালাম তো বিদ্রোহী প্রার্থী৷ সে তো ক্রেজি বয়৷ তাকে তো কেউই চায় না৷ এ কারণে তাকে বাদ দেয়া হয়েছে৷’

নতুন উপজেলা কমিটির প্রথম যুগ্ম আহ্বায়ক আব্দুল্লাহ আল কায়সার হাসনাত বলেন, ‘পূর্বেরও আহ্বায়ক কমিটি ছিল৷ সেটা বাদ দিয়ে আবারও আহ্বায়ক কমিটি দেওয়া হয়েছে৷ আসলে এ বিষয়ে কারও সাথেই কোনো আলাপ-আলোচনা করা হয়নি৷ কমিটির বিষয়টা জানলাম কিছুক্ষণ আগে৷’

সাবেক ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের বাদ পড়ার বিষয়ে কায়সার হাসনাত বলেন, ‘সকলকে নিয়ে কমিটি করার জন্য কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের নিজে নির্দেশ দিয়েছিলেন৷ আমিও মনে করি, সকলকে সাথে নিয়েই কমিটি দেওয়া উচিত ছিল৷ কীভাবে কী হয়েছে সেটা পর্যালোচনা করে বলতে পারবো৷’

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের ১৫ জুলাই শামসুল ইসলাম ভূঁইয়াকে আহ্বায়ক ও ইঞ্জিনিয়ার মাসুদুর রহমান মাসুমকে একমাত্র যুগ্ম আহ্বায়ক করে ৮ সদস্যের কমিটি ঘোষণা করে জেলা আওয়ামী লীগ৷ এই কমিটিতে উপজেলা আওয়ামী লীগের একটি অংশকে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে বাদ দেওয়ার অভিযোগে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা হয়৷ এই অভিযোগ কেন্দ্র পর্যন্ত গড়ায়৷ অর্থের বিনিময়ে ওই কমিটি দেওয়া হয়েছিল বলেও অভিযোগ ওঠে৷ কমিটির বিরোধীতা করেন বাদ পড়া কায়সার হাসনাত ও মাহফুজুর রহমান কালাম৷ দলীয় ও রাষ্ট্রীয় কর্মসূচিও তারা পৃথকভাবে পালন করেন৷ নানা সমালোচনার ২০ মাস পর নতুন আহ্বায়ক কমিটি অনুমোদন দিলো জেলা আওয়ামী লীগ৷ এতে কায়সার হাসনাত জায়গা পেলেও বাদ পড়েছেন আরেক বিদ্রোহী মাহফুজুর রহমান কালাম৷

সব খবর
রাজনীতি বিভাগের সর্বশেষ