মঙ্গলবার ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

সোনারগাঁয়ে ভুল চিকিৎসায় প্রসূতির মৃত্যুর অভিযোগে ক্লিনিক ভাঙচুর

সোমবার, ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২০:০৬

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: সোনারগাঁয়ে ভুল চিকিৎসায় প্রসূতির মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। এতে ক্ষুব্দ স্বজনরা হাসপাতালে ভাঙচুর চালিয়েছে।

সোমবার (৯ সেপ্টেম্বর) উপজেলার মোগরাপাড়া চৌরাস্তায় অবস্থিত সোনারগাঁ জেনারেল হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় থানায় দু’টি অভিযোগও দায়ের করেছেন নিহতের স্বজনরা।

নিহত আমান্তিকা (২০) সোনারগাঁ উপজেলার মোগরাপাড়া ইউনিয়নের বড় সাদিপুর গ্রামের পিন্টু মিয়ার স্ত্রী। গত শুক্রবার প্রসূতির প্রসব বেদনা উঠলে তাকে সোনারগাঁ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয় বলে জানান স্বজনরা।

রোগীর স্বজনদের অভিযোগ, সন্ধ্যায় ওই হাসপাতালের চিকিৎসক নূরজাহান বেগম তাঁর অস্ত্রোপচার করেন আর নার্সরা সেলাই করেন। অস্ত্রোপচারের পরও তার পেটের ভেতরে গজ ও টিস্যু থেকে যায়। যার ফলে প্রসূতির পেটে ব্যাথা শুরু হয়। পরে বিষয়টি চিকিৎসক নূরজাহানকে জানালে রোগীকে নারায়ণগঞ্জের কেয়ার জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যেতে বলেন। ওই হাসপাতালে ফের তার অস্ত্রোপচার করা করে গজ ও টিস্যু পেপার বের করেন। ওই সময় জরায়ুতে ক্ষত সৃষ্টি হলে রোগীর স্বজনদের অনুমতি নিয়ে জরায়ু কেটে ফেলে দেন। জরায়ু কেটে ফেলার পর রোগীর অবস্থা আরো আশঙ্কাজনক হলে তাকে অন্য হাসপাতালে স্থানান্তরের পরামর্শ দেন। পরে ঢাকার আজগর আলী হাসপাতালে নেওয়ার পর সোমবার (৯ সেপ্টেম্বর) সকালে রোগী মারা যান।

এদিকে ভুল চিকিৎসায় রোগীর মৃত্যুর খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে রোগীর স্বজন ও স্থানীয় এলাকাবাসীরা মোগরাপাড়া চৌরাস্তার সোনারগাঁ জেনারেল হাসপাতালে গিয়ে ভাঙচুর চালায়। পরে ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।

নিহতের স্বামী পিন্টু মিয়া অভিযোগ করে বলেন, দ্বিতীয় অস্ত্রোপচারের পরেই পেট ফুলে যায়। পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় অন্য হাসপাতালে নেওয়ার পথেই মারা যায় আমার স্ত্রী। চিকিৎসকের ভুল চিকিৎসার কারণেই তার মৃত্যু হয়েছে।

এ বিষয়ে চিকিৎসক নূরজাহান ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করে তাদের কাউকে পাওয়া যায়নি।

এদিকে চিকিৎসক নূরজাহান বেগমের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ করেন স্থানীয় এলাকাবাসী। তারা বলেন, এই হাসপাতালে ডা. নূরজাহানই একমাত্র গাইনী চিকিৎসক। নূরহাজান চুক্তির মাধ্যমে রোগীর অস্ত্রোপচার করে থাকেন। আর বেশিরভাগ সময়ই নূরজাহান প্রসূতি রোগীদের ভুল চিকিৎসা করে থাকে। অস্ত্রোপচারের পরও অন্য হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে হয়।

সোনারগাঁ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মাসুদ রানা জানান, এ ঘটনায় পরিস্থিতি বর্তমানে শান্ত রয়েছে। থানায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ও রোগীর স্বজনদের দায়ের করা দুটি অভিযোগ পাওয়া গেছে। তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা হালিমা সুলতানা হক জানান, এ ঘটনায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে একটি তদন্ত টিম পাঠানো হয়েছে।

সব খবর
নগরের বাইরে বিভাগের সর্বশেষ