বুধবার ২৩ অক্টোবর, ২০১৯

সিদ্ধিরগঞ্জে মা ও দুই মেয়ের গলা কেটে হত্যার ঘটনায় মামলা

শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১২:৩১

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: সিদ্ধিরগঞ্জের চাঞ্চল্যকর ট্রিপল মার্ডারের ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে৷ বৃহস্পতিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) রাতেই সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় মামলাটি দায়ের করা হয়। এ ঘটনায় নিহত নাজনীনের স্বামী সুমন বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। মামলায় সুমনের ভায়রা আব্বাসকে (৩২) একমাত্র আসামি করা হয়। মামলা নং- ৪৯। বৃহস্পতিবার বিকেলেই আসামিকে গ্রেফতার করে পুলিশ৷

মামলাটির তদন্তকারী কর্মকর্তা সিদ্ধিরগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আজিজুল হক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, মামলাটির অধিকতর তদন্তের জন্য আব্বাসকে আরো জিজ্ঞাসাবাদের প্রয়োজন আছে। তার বিরুদ্ধে রিমান্ডের আবেদন করা হবে।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) সকালে শ্যালিকা ও তার দুই কন্যাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাথারি কুপিয়ে এবং গলা কেটে হত্যা করে দুলাভাই আব্বাস। এ সময় নিজের প্রতিবন্ধী মেয়েকেও কুপিয়ে জখম করে রেখে যায়।

নিহতরা হলো- মা নাজনীন (২৮), শিশু কন্যা নুসরাত (৮), খাদিজা (২)। নাজনীন সিআইখোলা এলাকার বাসিন্দা সুমনের স্ত্রী। সুমন সানারপাড় জোনাকি পেট্রোল পাম্পে চাকুরি করেন। এ ঘটনায় আব্বাসের প্রতিবন্ধী মেয়ে সুমাইয়া (১৫) ছুরিকাঘাতে আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে।

পরে ঘটনার দিনই বিকেলে সিদ্ধিরগঞ্জের বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ভেতরের কমিউনিটি সেন্টারে খানসামার কাজ করা অবস্থায় সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল ফারুকের নেতৃত্বে একটি দল তাকে আটক করে।

বৃৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় জেলা পুলিশ লাইনসে এক সংক্ষিপ্ত সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার হারুন অর রশীদ আব্বাসকে আটক বিষয়টি গণমাধ্যমকর্মীদের অবহিত করেন। পরে ওই রাতেই আব্বাসকে একমাত্র আসামি করে নিহত নাজনীনের স্বামী সুমন বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

সব খবর
নগরের বাইরে বিভাগের সর্বশেষ