সোমবার ০৯ ডিসেম্বর, ২০১৯

সালাউদ্দিন মেম্বারের বিরুদ্ধে আইনজীবীর জমি দখলের অভিযোগ

বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯, ১৯:২৯

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: ফতুল্লা এনায়েতনগর ইউনিয়ন পরিষদের ১ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য সালাউদ্দিনের বিরুদ্ধে অবৈধভাবে ভূমি দখলের অভিযোগ করে সংবাদ সম্মেলন করেছেন সুপ্রীম কোর্টের আইনজীবী এড. জাকারিয়া হাবিব।

বুধবার (২০ নভেম্বর) বিকেল ৩টায় নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন তিনি।

তিনি বলেন, পঞ্চবটি হরিহরপাড়া এলাকায় আমার ১৫ শতাংশ পৈত্রিক সম্পত্তি রয়েছে। যেখানে একটি তিনতলা বাড়ি ও তিনটি দোকান ছিল। সরকারি ড্রেন করার অযুহাত দেখিয়ে এনায়েতনগর ইউনিয়ন পরিষদের ১ নম্বর ওয়ার্ড মেম্বার সালাউদ্দিন দোকান তিনটি ভেঙে দেন। ২০১৬ সাল থেকে আমার জমি দখলের জন্য তিনি ও তার বাহিনী বিভিন্নভাবে আমাকে হয়রানি করে যাচ্ছিলেন। যার এক পর্যায়ে তারা আমার উপর হামলাও করে। এ বিষয়ে থানায় অভিযোগ করা হলে পুলিশ প্রশাসন আমাকে এ বিষয়ে কোনো সাহায্য করতে পারেনি। পরবর্তীতে ২০১৭ সালে তথ্য অধিকার আইনের প্রয়োগে আমি জানতে পারি, কোনো সরকারি অধিদপ্তর বা প্রশাসন আমার দোকান ভাঙার অনুমতি দেয়নি বরং সালাউদ্দিন আমার জমি দখল করার জন্য জোরপূর্বক আমার জমিতে সরকারি ড্রেন নির্মাণ করেন।

সম্প্রতি তিনি আবার আমার জমি দখলের প্রচেষ্টা করে যাচ্ছেন। ১৮ নভেম্বর আমার বাড়ির কেয়ারটেকার আমাকে ফোন দিয়ে বলেন সালাউদ্দিন বাড়ির উত্তর পাশের টিনের বেড়া খুলে নেন এবং সেখানে অটোস্ট্যান্ড তৈরি করবেন। বিকেলে আমি ঘটনাস্থলে পৌছালে তাদের সঙ্গে আমার বাকবিতন্ডা হয়। এ সময় তারা আমাকে হেনস্তা করে এবং হুমকি-ধমকি দেয়। তখন আমি ৯৯৯ এ ফোন করলে পুলিশ প্রশাসনের সহযোগিতায় রক্ষা পাই এবং থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করি।’

এ ঘটনায় যেকোনো সময় হামলার শিকার হবার আশঙ্কা প্রকাশ করে এড. জাকারিয়া হাবিব বলেন, ‘মেম্বার সালাউদ্দিন কাশীপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান সাইফুল্লাহ বাদলের আত্মীয়। তারই রাজনৈতিক প্রভাবের কাজে লাগিয়ে সালাউদ্দিন বিভিন্ন অপকর্ম করে যাচ্ছে। আমার জমি দখলে উঠে বসে লেগেছেন। তিনি মুঠোফোনে, বিভিন্নভাবে আমাকে হুমকি দিয়ে যাচ্ছেন। যে কোনো সময় আমি হামলার শিকার হতে পারি। একজন সুপ্রীম কোর্টের আইনজীবী হওয়া সত্ত্বেও আমি অসহায় হয়ে পড়েছি এবং আপনাদের সহযোগিতা কামনা করছি।’

এ বিষয়ে এনায়েতনগর ইউনিয়ন পরিষদের ১ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য সালাউদ্দিন মুঠোফোনে বলেন, এ অভিযোগ মিথ্যা। খালের পাশে ড্রেন নির্মাণ করা হচ্ছে। সেখানে তার জমি নেই। এ বিষয়ে চেয়ারম্যান সাহেবের সাথেও কথা হয়েছে।

সব খবর
নগরের বাইরে বিভাগের সর্বশেষ