রবিবার ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৯

সাখাওয়াতের বিরুদ্ধে কেন্দ্রে যাচ্ছে অভিযোগ

শনিবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৯, ২২:৫৫

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: মহানগর বিএনপির কমিটি পূর্ণাঙ্গ হওয়ার পর প্রথম কার্যকরী সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ওই সভায় বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হলেও আলোচনার কেন্দ্রে ছিলেন কমিটির জ্যেষ্ঠ সহ সভাপতি এড. সাখাওয়াত হোসেন খান। সম্প্রতি বিভিন্ন ইস্যুকে কেন্দ্র করে এড. সাখাওয়াত হোসেন বিরুদ্ধে অনাস্থা দিয়েছেন উপস্থিত নেতাকর্মীরা। সাখাওয়াত হোসেনের বিরুদ্ধে কেন্দ্রে অভিযোগ দায়ের করা হবে বলেও সভায় সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে।

শনিবার (১৬ নভেম্বর) দুপুরে শহরের কালিরবাজার এলাকায় মহানগর বিএনপির অস্থায়ী কার্যালয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় মহানগর বিএনপির সভাপতি আবুল কালাম ও সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামাল, সহ সভাপতি আতাউর রহমান মুকুল, জাকির হোসেন, হাজী নুরুদ্দীন, ফখরুল ইসলাম মজনু, যুগ্ম সম্পাদক আব্দুস সবুর খান সেন্টুসহ মহানগর বিএনপির নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মহানগর বিএনপির সিনিয়র এক নেতা জানান, কমিটি পূর্ণাঙ্গ হওয়ার পর এটাই ছিল কমিটির প্রথম কার্যকরী সভা। এ সময় ওয়ার্ড পর্যায়ে কাউন্সিলের বিষয়ে আলোচনা হয়। সভায় কমিটির জ্যেষ্ঠ সহ সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন খানকে নিয়েও আলোচনা হয়। সম্প্রতি বিভিন্ন কার্যক্রমের প্রতি ক্ষুব্দ হয়েছে কমিটির নেতাকর্মীরা সাখাওয়াত হোসেন খানের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রকাশ করেছেন।

সাখাওয়াত হোসেনের বিরুদ্ধে অভিযোগ, কমিটি গঠনের পর থেকেই তিনি মহানগর কমিটির ব্যানারে আলাদা কর্মসূচি পালন করে আসছেন। সম্প্রতি পূর্ণাঙ্গ কমিটি হওয়ার পর আয়োজিত পরিচিতি সভা এবং বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের সমাধিতে ফুল দেয়ার কর্মসূচিতেও উপস্থিত ছিলেন না তিনি। এমনকি তারই ইন্ধনে বিএনপির স্থানীয় দুই নেতা বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, জেলা ও মহানগরের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। সাখাওয়াত হোসেন দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ করে দলীয় কোন্দল সৃষ্টির চেষ্টা করছেন বলেও অভিযোগ।

সভায় উপস্থিত একাধিক নেতা জানান, এড. সাখাওয়াত হোসেন খানের বিরুদ্ধে এসব অভিযোগ শীঘ্রই কেন্দ্রে লিখিতভাবে দেয়া হবে। তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশও করা হবে বলে জানিয়েছেন তারা।

এ বিষয়ে মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহ সভাপতি এড. সাখাওয়াত হোসেন খান বলেন, মামলার বিষয়ে আমি কিছুই জানি না। আমার বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ করে তারা ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের চেষ্টা করছে।

এদিকে পাল্টা অভিযোগ করে সাখাওয়াত হোসেন খান বলেন, কোন কর্মসূচির বিষয়ে আমাকে জানানো হয় না। সম্প্রতি পূর্ণাঙ্গ কমিটির পরিচিতি সভা এবং শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের সমাধিতে ফুল দেয়ার বিষয়েও তাকে জানানো হয়নি। এমনকি আজকের কার্যকরী কমিটির সভার বিষয়েও তাকে কিছু জানানো হয়নি বলে দাবি করেছেন তিনি।

তবে সাখাওয়াত হোসেনের এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামাল বলেন, ‘প্রতিটি কর্মকান্ডে তাকে অবহিত করা হয়। আমি নিজে দায়িত্ব নিয়ে এ কাজটি করি। যে জেগে থেকে ঘুমের ভান করে তাকে তো জাগানো যায় না। আর সে তো সচেতনভাবেই মহানগর কমিটির ব্যানারে আলাদা কর্মসূচি পালন করে। সুতরাং তার এমন অভিযোগ ভিত্তিহীন।

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি এড. আবুল কালামকে সভাপতি, এড. সাখাওয়াত হোসেন খানকে জ্যেষ্ঠ সহ সভাপতি ও এটিএম কালামকে সাধারণ সম্পাদক করে ২৩ সদস্যের আংশিক কমিটি দেয়া হয়। চলতি বছরের ৩১ অক্টোবর ১৫১ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি অনুমোদন পায়।
এদিকে জেলা ও মহানগর কমিটিতে কোন পদ না পেয়ে ক্ষুব্দ হয়ে গত ১১ নভেম্বর বিএনপির মহাসচির মির্জা ফখরুল ইসলাম, জেলা ও মহানগর বিএনপির সভাপতি-সাধারণ সম্পাদককে বিবাদী করে আদালতে একটি মামলা করেছেন স্থানীয় দুই বিএনপি নেতা। মহানগরের ১০ নম্বর ওয়ার্ড বিএনপির সাবেক সভাপতি গোলজার খান ও একই ওয়ার্ডের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক নূর আলম শিকদার বাদী হয়ে নারায়ণগঞ্জ সিনিয়র সহকারী জজ শিউলী রানী দাসের মামলাটি করেন।

সব খবর
রাজনীতি বিভাগের সর্বশেষ