সোমবার ২০ আগস্ট, ২০১৮

সরকার বর্বর হামলার মধ্য দিয়ে আন্দোলন দমাতে চায়: রাব্বি

সোমবার, ৬ আগস্ট ২০১৮, ২১:৫০

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোটের উপদেষ্টা ও সন্ত্রাস নির্মূল ত্বকী মঞ্চের আহ্বায়ক রফিউর রাব্বি বলেছেন, শিক্ষার্থীদের ন্যায্য আন্দোলন দমানোর জন্য সরকার যে বর্বরতা চালাচ্ছে তা সমর্থনযোগ্য নয়। গত পরশুদিন জিগাতলায় যেভাবে সরকারের সন্ত্রাসী বাহিনী ছাত্রদের উপরে নির্লজ্জভাবে ঝাপিয়ে পড়ে। একদিকে সরকার এ আন্দোলনকে যৌক্তিক বলছে আর অন্যদিকে সরকার তার বেসিক কায়দায়, বর্বর হামলার মধ্য দিয়ে আন্দোলনটিকে দমাতে চাচ্ছে।

নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের উপর হামলার প্রতিবাদে মানবন্ধন সোমবার (৬ আগস্ট) বিকেল সাড়ে ৪টায় নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত মানববন্ধন কর্মসূচিতে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, আজ (সোমবার) আমরা দেখলাম সংসদে আইন পাশের জন্য একটি খসরা অনুমোদন করা হয়েছে। যেখানে দাবি ছিল সর্বোচ্চ শাস্তির সেখানে শাস্তি ৩ বছরের জায়গায় ৫ বছর হয়েছে। খসরায় উল্লেখ করা হয়েছে দুর্ঘটনার পর চালক ইচ্ছা করে হত্যা করেছে তা যদি প্রমাণ করা যায় তাহলে সর্বোচ্চ সাজা হবে। রফিউর রাব্বি বলেন, আমাদের বাংলাদেশে কোনো সত্য বিষয়ই প্রমাণ করা যায় না। কারণ এর সঙ্গে পুলিশ বাহিনী জড়িত, সরকারের বিভিন্ন সংস্থা জড়িত সুতরাং এটা প্রমাণ হতে দেয়া যায় না। সরকার তার মাফিয়া বাহিনীর সঙ্গে এমনভাবে জড়িত যে সরকার এদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নিল না। কেন নিল না, এটা বুঝানোর জন্য যে এদের ছাড়া দেশ চলবে না। আমরা শিক্ষার্থীদের উপর করা বর্বর হামলার এবং এর সঙ্গে জড়িত সরকারী কর্মকর্তাদের বিচারের দাবি জানাই।

সাংস্কৃতিক জোটের সাবেক সভাপতি জাহিদুল হক দিপু বলেন, গত কিছুদিন যাবৎ আমরা দেখেছি কেমন নৈরাজ্য, দুরাবস্থার মধ্যে আমরা আছি। সরকারের অধিকাংশ কর্মকর্তাদেরই লাইসেন্স নাই। আমরা দেখতে পাই, প্রতি দুইজন ড্রাইভারের মধ্যে একজনের লাইসেন্স নাই। আমরা যখন বাইরে বের হচ্ছি প্রতি নিয়ত একটি ভয় কাজ করছে এই বুঝি আমাদের ওপর গাড়ি উঠে পরল, এই বুঝি আমার জীবন বিপন্ন হল। সব সময় এসকল আন্দোলনের প্রতি আমাদের সমর্থন ছিল, আছে। আর আমরা যেহেতু বলি তাই আমাদের বিভিন্ন ভাবে হেয় করা হয়, টিটকারী মারা হয়। একটা কথা মনে রাখবেন, মাথা যতই লুকিয়ে রাখুন না কেন শরীর কিন্তু বাইরে। পরিবহন সেক্টরে মাফিয়া চক্রের যে নৈরাজ্য চলছে সরকারের এসব থেকে বের হয়ে আসা উচিৎ।

নারায়ণগঞ্জ খেলাঘরের সভাপতি রথীন চক্রবর্তী বলেন, দেশের পরিবহন সেক্টরের যে নগ্ন চেহারা উন্মোচন করেছে আমাদের শিশু কিশোরেরা তার জন্য তাদের ধন্যবাদ। শিক্ষার্থী আন্দোলনের সঙ্গে সরকার একাত্মতা প্রকাশ করেছে। তাদের নানাভাবে আশ^াস দিয়েছে। সরকার পরিস্থিতি উপলব্দি করে কাজ করেন। এখন আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের সমর্থন করছেন। কিছুদিন পর আবার বেকে বসবেন। আমি আশা করবো সরকার এমন নীতি অবলম্বন করবেন না। এবং শিক্ষার্থীদের ৯ দফা মেনে নেবেন।

নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোটের সাবেক সভাপতি জাহিদুল হক দিপুর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক ধীমান সাহা জুয়েলের সঞ্চালনায় উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ খেলাঘরের সভাপতি রথীন চক্রবর্তী, গার্মেন্টস শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন, সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের সভাপতি সুলতানা আক্তার প্রমুখ।

সব খবর
সংগঠন সংবাদ বিভাগের সর্বশেষ