শুক্রবার ০৬ ডিসেম্বর, ২০১৯

সরকারের ভুল নীতির কারণে বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধি: বাম জোট

শনিবার, ৩০ নভেম্বর ২০১৯, ১৯:৪৩

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য, বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধি ও বাম জোটের নেতাকর্মীদের উপর হামলার প্রতিবাদে নগরীরে বিক্ষোভ মিছিল ও সামাবেশ করেছে বাম গণতান্ত্রিক জোটের নেতৃবৃন্দ।

শনিবার (৩০ নভেম্বর) বিকেল ৪টায় চাষাঢ়া শহীদ মিনারে বাম গণতান্ত্রিক জোটের আয়োজনে এ সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।

বাম গণতান্ত্রিক জোট সমন্বয়কারী নিখিল দাসের সভাপতিত্বে ও গণসংহতি আন্দোলনের নির্বাহী সমন্বয়কারী অঞ্জন দাসের সঞ্চালনায় এ সময় বক্তব্য রাখেন সিপিবির সভাপতি হাফিজুল ইসলাম, বিপ্লবী ওয়াকাস পার্টির সাধারণ সম্পাদক আবু হাসান টিপু, গণসংহতি আন্দোলনের সমন্বয়কারী তরিকুল সুজন, সিপিবির সাধারণ সম্পাদক শীবনাথ চক্রবর্তী ও বিপ্লবী ওয়াকাস পার্টির নারী নেত্রী রাসিদা বেগম।

নিখিল দাস বলেন, ‘বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির জন্য গণশুনানি চলছে। গণশুনানি হয় দাম কমানোর জন্য কিন্তু আমাদের দেশে হয় বাড়ানোর জন্য। এর আগে একইভাবে কোনো যুক্তি ছাড়া গ্যাসের দাম বৃদ্ধি করা হয়েছে। আমরা বলেছিলাম বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির কোনো কারণ নাই। বাড়ানোর কারণ যা, তা হচ্ছে সরকারের ভুল নীতি ও দুর্নীতি।’

তিনি আরো বলেন, ‘বাম জোটের নেতাকর্মীদের উপর সারাদেশে হামলা করা হচ্ছে। আমরা বলবো এর পরিনাম ভালো হবে না। ইতহাস বলে, নির্যাতন করে ক্ষমতায় টিকে থাকা যায় না। হামলা, মামলা করে বাম দলের আন্দোলন রোধ করা যাবে না।’

হাফিজুল ইসলাম বলেন, ‘সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে দেশ সিঙ্গাপুরের মত হবে। সারাদেশ ফ্লাইওভার দিয়ে ভরে দিবে, মেট্রোরেল চলাচলের ব্যবস্থা করবে, বড় বড় অট্টালিকা হবে। অন্যদিকে আমাদের কৃষকদের বলছে, পেঁয়াজ ছাড়া রান্না করা যায়। কিছুদিন পর হয়তো বলবে ভাত না খেয়েও শ্রমজীবী মানুষ বাঁচতে পারে। শতকরা একজন মানুষকে শান্তিতে রাখার জন্য যেই সুন্দর করা হচ্ছে, আমরা সেই সুন্দর চাই না। আমরা আমাদের দেশের শ্রমজীবী মানুষদের অভুক্ত রেখে এই সুন্দর চাই না।’

আবু হাসান টিপু বলেন, ‘আজকের বাজারেও দাম ২৫০ টাকা। আলুর মৌসুম তবু আলুর দাম বৃদ্ধি পায়। মূল্যবৃদ্ধি কোন ক্ষেত্রে হয়নি! চাল, ডাল, আলু, পেয়াজ; এখন তো বিদ্যুতের দামও বৃদ্ধি পাচ্ছে।’

তরিকুল সুজন বলেন, ‘আগামী ১ ডিসেম্বর থেকে সারাদেশ আলোয় উজ্জ্বল হয়ে উঠবে। ভাবটা এমন স্বাধীনতা ৪৮ বছর পর দেশ আলোকিত হবে। ২০২১ সালে দেশ স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তি করবে। কিন্তু এই স্বাধীনতা কার! এই লুটপাট কার! এই মুক্তযোদ্ধের চেতনা কার জন্য! যেখানে জনগণ স্বাধীনতা ভোগ করছে না। যা খুশি তা করার নাম স্বাধীনতা নয়। এই স্বাধীনতার জন্য ৩০ লক্ষ শহীদ রক্ত দেয়নি।’

সব খবর
রাজনীতি বিভাগের সর্বশেষ