সোমবার ২১ অক্টোবর, ২০১৯

সদর উপজেলায় অস্থায়ী পশুর হাটের ইজারা পেলেন যারা

সোমবার, ৫ আগস্ট ২০১৯, ২৩:২৮

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: সদর উপজেলায় ১৭টি অস্থায়ী কোরবানির পশুর হাটের মধ্যে ১৬টি হাটের দরপত্র সম্পন্ন হয়েছে৷ সোমবার (৫ আগস্ট) সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাহিদা বারিক আনুষ্ঠানিকভাবে দরপত্র ঘোষণা করেন৷

এদিকে হাটগুলোর শিডিউল কেনাকে কেন্দ্র করে গত ৪ আগস্ট একাধিক পক্ষের মধ্যে হাতাহাতি ও মারধরের ঘটনা ঘটে৷

সদর ইউএনও’র কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, মোট ১৭টি হাটের বিপরীতে ১৩৪টি দরপত্র ক্রয় করা হয়৷ তবে জমা পড়ে ৪৭টি। এর ভেতর একটি হাটের ইজারা বিবেচনাধীন রেখে ১৬টি হাটের ইজারাদারের নাম ঘোষণা করেন ইউএনও।

৩৩ হাজার টাকার বিনিময়ে কাশীপুর ক্লাব মাঠে অস্থায়ী পশুর হাটের ইজারা পেয়েছেন আইয়ুব আলী। যার সরকারি ইজারা ছিলো ৩১ হাজার টাকা৷ ৫২ হাজার ৫০০ টাকার বিনিময়ে বক্তাবলী ৪নং রাজাপুর অস্থায়ী পশুর হাটের ইজারা লাভ করেছেন সাব্বির আহমেদ। যার সরকারী ইজারা ছিলো ৫২ হাজার টাকা৷ ২৩ হাজার টাকার বিনিময়ে বক্তাবলী চর বয়রাকাদি হাটের ইজারা লাভ করেছেন সিদ্দিকুর রহমান। যার সরকারী ইজারা ছিলো ২২ হাজার টাকা৷ সরকারী ইজারা মূল্য ২৪ হাজার টাকার বিনিময়ে বক্তাবলী সমিরগর আদর্শ বাজার হাটের ইজারা লাভ করেছেন আবুল কাশেম দেওয়ান। ৫৭ হাজার টাকার বিনিময়ে গোগনগর সৈয়দপুর পাঠান নগর হাটের ইজারা লাভ করেছেন শাকিল সরদার। যার সরকারী ইজারা ছিলো ৫৬ হাজার টাকা৷ ৭০ হাজার টাকার বিনিময়ে গোগনগর বাড়িরটেক হাটের ইজারা লাভ করেছেন দেলোয়ার হোসেন। যার সরকারী ইজারা ছিলো ৫৬ হাজার টাকা। ৪২ হাজার টাকার বিনিময়ে গোপনগর পলিফ্যাক্টরি হাটের ইজারা লাভ করেছেন আল মামুন। যার সরকারী ইজারা ছিলো ৪০ হাজার টাকা। ৫ লাখ ৯০ হাজার টাকার বিনিময়ে গোপনগর চর সৈয়দপুর কাঠপট্টি খেয়াঘাট সংলগ্ন হাটের ইজারা লাভ করেছেন আসলাম সরকার। যার সরকারী ইজারা ছিলো ৫ লাখ ৮৫ হাজার টাকা৷ ১ লাখ ১১ হাজার টাকার বিনিময়ে গোপনগর পুরাতন সৈয়সদপুর হাটের ইজারা লাভ করেছেন নাজির আহম্মেদ। যার সরকারী ইজারা ছিলো ১লাখ ১০ হাজার টাকা৷

৩৮হাজার ৫’শ টাকার বিনিময়ে গোপনগর বাদশা মিয়ার নিজস্ব ভূমিতে হাটের ইজারা লাভ করেছেন এস এম মোসলেহ উদ্দিন। যার সরকারী ইজারা ছিলো ৩৮ হাজার টাকা৷ ২৬ হাজার ৫’শ টাকার বিনিময়ে আলিরটেক আমান মার্কেট সংলগ্ন হাটের ইজারা পেয়েছন জামাল উদ্দিন। যার সরকারী ইজারা ছিলো ২৬ হাজার টাকা৷ ৭১ হাজার টাকার বিনিময়ে তল্লা আজমেরীবাগ জানে আলম বিপ্লবের নিজস্ব ভূমিতে হাটের ইজারা লাভ করেছেন জানে আলম বিপ্লব। যার সরকারী ইজারা ছিলো ৭০ হাজার টাকা৷ ৬০ হাজার ৫’শ টাকার বিনিময়ে ভূইগড় রূপায়ন টাওয়ার সংলগ্ন হাটের ইজারা লাভ করেছেন মানিক চান। যার সরকারী ইজারা ছিলো ৫৯ হাজার টাকা৷ ৯০ হাজার টাকার বিনিময়ে কুতুবপুর তালতলা প্যারাডাইস সংলগ্ন হাটের ইজারা পেয়েছেন টেনু গাজী, যার সরকারী ইজারা ছিলো ৮৫ হাজার টাকা৷

এই বছরের সদর উপজেলার সর্বচ্চো মূল্য ১ কোটি ১৫ লাখ টাকা দিয়ে আলীগঞ্জ খেলার মাঠ সংলগ্ন পিডব্লিউডির খালি জায়গার হাটটি নেন সদর উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফাতেমা মনির। যার সরকারী ইজারা ছিলো ৩৬ লাখ ৮০ হাজার টাকা এবং ৬১ হাজার টাকার বিনিময়ে কুতুবুপর শান্তিধারা এলাকায় হাজী আব্দুর রাজ্জাক বেপারীর মার্কেট সংলগ্ন অস্থায়ী পশুর হাট লাভ করেছেন হাজী আব্দুর রাজ্জাক বেপারী। যার সরকারী ইজারা ছিলো ৫০ হাজার টাকা।

তবে রামনগর বিসমিল্লাহ মার্কেট হাটের ইজারার বিষয়টি জটিলতার কারণে বিবেচনাধীন রাখা হয়েছে।

সব খবর
নগরের বাইরে বিভাগের সর্বশেষ