সোমবার ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

শোকের আবহ ঢেকে রাখতে পারেনি জেলা আ.লীগের কোন্দল

বৃহস্পতিবার, ১৫ আগস্ট ২০১৯, ২১:৫৪

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম মৃত্যু বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবসে শোকাহত আওয়ামী লীগ নেতাকর্মী। তবে এই শোকের আবহও ঢেকে রাখতে পারেনি নেতাকর্মীদের মধ্যকার কোন্দল। জাতীয় শোক দিবসে আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে নেতাকর্মীদের দুই পক্ষীয় বলয়ের কোন্দল, উত্তেজনা ও একই কমিটির পৃথক কর্মসূচি পালন জেলা আওয়ামী লীগের মধ্যকার বিভক্তি আরো ষ্পষ্ট করে হয়ে উঠেছে।

বৃহস্পতিবার (১৫ আগস্ট) সকাল থেকে নগরীর দুই নং রেল গেট সংলগ্ন আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে একে একে জড়ো হতে থাকেন জেলা আওয়ামী লীগসহ অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা। বঙ্গবন্ধুকে স্মরণ করে শ্লোগানে-শ্লোগানে মুখরিত হতে থাকে পুরো কার্যালয়। এক পর্যায়ে একটি শ্লোগানকে কেন্দ্র করে শুরু হয় উত্তেজনা। পরে একই কমিটির পৃথক কর্মসূচি পালনে দলীয় বিভক্তি দৃশ্যমান হয়।

সকাল ৯টায় নগরীর দুই নং রেলগেট সংলগ্ন আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে অবস্থিত বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে করে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করে মহানগর আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ। সকাল ১০টার পর থেকে নগরীতে মিছিল করতে করতে দলীয় কার্যালয়ে একত্রিত হতে থাকে জেলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। বিভিন্ন শ্লোগানে মুখরিত হয়ে উঠে কার্যালয়। এ সময় ‘দালাল ধর জবাই কর’ এমন একটি শ্লোগানে উত্তেজিত হয়ে উঠেন বীর মুক্তিযোদ্ধা ও দলের সহ সভাপতি আব্দুল কাদির। এ সময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করেন সভাপতি আব্দুল হাই ও সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত মো. শহীদ বাদল। পরবর্তীতে পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে নেতাকর্মীদের নিয়ে সভাকক্ষ ত্যাগ করেন এবং বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করে অন্য একটি অনুষ্ঠানের উদ্দেশ্যে চলে যান দলের শীর্ষ দুই নেতা।

এদিকে দলীয় নেতৃবৃন্দের সামনে উত্তেজনাকর পরিস্থিতি ও নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করেও ব্যর্থ হওয়াকে দলীয় নেতাদের ব্যর্থতা বলে উল্লেখ করেন অনেকে। আব্দুল কাদির নাসিক মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ সভাপতি ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীর ঘনিষ্ঠ বলে তাকে উদ্দেশ্য করেই শ্লোগান দেওয়া হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন একাধিক নেতাকর্মী।

এদিকে সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের সঙ্গে কর্মসূচি পালন না করে কার্যালয়ের ভিতরে বসেছিল জেলা কমিটির একাংশ। পরবর্তীতে সকাল ১১টায় কার্যালয়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন (নাসিক) মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী উপস্থিত হলে জেলা আওয়ামী লীগের ব্যানারেই আবারো ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করা হয়। এ সময় একে একে দলের সিনিয়র সহ সভাপতির সঙ্গে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করে যুবলীগ, সেচ্ছাসেবক লীগ, স্বাধীনতা চিকিৎসা পরিষদ (স্বাচিপ) সহ অন্যান্য অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। পরবর্তীতে মেয়র আইভীর নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের রুহের মাগফেরাত কামনা করে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ সভাপতি ও নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন (নাসিক) মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী, সাবেক সংরক্ষিত মহিলা আসনের সাংসদ হোসনে আরা বাবলী, জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি আব্দুল কাদির, আরজু রহমান ভূইয়া, মো. আসাদুজ্জামান, যুগ্ম সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, ইকবাল পারভেজ, মহিলা সম্পাদক মরিয়ম কল্পনা, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মো. শহিদুল্লাহ, ১৮ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতা ও নাসিক কাউন্সিলর কবির হোসাইন প্রমুখ।

তবে এই দোয়া মাহফিলে সভাপতি আব্দুল হাই ও সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ মো. বাদল উপস্থিত ছিলেন না। সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের সাথে বেরিয়ে যান দপ্তর সম্পাদক এমএ রাসেল, থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম শওকত আলী প্রমুখ।

সব খবর
রাজনীতি বিভাগের সর্বশেষ