বৃহস্পতিবার ২২ অক্টোবর, ২০২০

শুক্রবার না’গঞ্জ চারুকলা ইনস্টিটিউটের রজত জয়ন্তী

বৃহস্পতিবার, ৩০ জানুয়ারি ২০২০, ২০:৫৪

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: আগামীকাল শুক্রবার নারায়ণগঞ্জ চারুকলা ইনস্টিটিউটের ২৫ বছর পূর্তি উপলক্ষে বর্তমান-প্রাক্তণ শিক্ষার্থীদের পুনর্মিলনীর মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে রজত জয়ন্তী উৎসব। পরিবেশের উপর বিশেষ নজর রেখে রজত জয়ন্তীর সম্পূর্ণ আয়োজন করা হয়েছে। আয়োজনের পুরো অংশেই বর্জন করা হয়েছে পরিবেশ দূষণের জন্য মারাত্মকভাবে দায়ী প্লাস্টিক।

বৃহস্পতিবার (৩০ জানুয়ারি) সকাল ১০টায় নগরীর শেখ রাসেল পার্ক সংলগ্ন নারায়ণগঞ্জ চারুকলা ইনস্টিটিউট প্রাঙ্গণে রজত জয়ন্তী উৎসবের উদ্বোধন ঘোষণা করবেন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী। নারায়ণগঞ্জ চারুকলা ইনস্টিটিউটের পরিচালনা পরিষদের সভাপতি অ্যাড. আহসানুল করিম চৌধুরীর সভাপতিত্বে এ সময় অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বরেণ্য চিত্রশিল্পী রফিকুন নবী ও মুক্তিযোদ্ধা চিত্রশিল্পী শাহাবুদ্দিন আহ্মেদ। এরপর রজত জয়ন্তী উৎসব উপলক্ষে ইনস্টিটিউট প্রাঙ্গণে থেকে আনন্দ শোভাযাত্রা বের করা হবে। আনন্দ শোভাযাত্রাটি শহর প্রদক্ষিন করে চারুকলা ইনস্টিটিউট প্রাঙ্গণে এসে শেষ হবে। এরপরই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের তৈরী চিত্র প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হবে।

রজত জয়ন্তী উৎসবের দ্বিতীয় পর্বে থাকবে প্রাক্তণ শিক্ষার্থীদের স্মৃতি চারণ। শেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে উৎসবের সমাপ্তি ঘোষণা করা হবে। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে পরিবেশনা করবেন মিঠামন গানের দলের ৩ সদস্য, ইসরাত হাজান কাকন, দিদার ও রনজিত। জলের গান ব্যাংন্ড দলের কনক আদিত্য, মিউজিক কম্পোজার ডিকেএম শান্ত, সমগীতের সমন্বয়কারী অমল আকাশ, শহুরে গায়েনের ভোকাল শাহিন মাহমুদসহ প্রতিষ্ঠানের প্রাক্তণ, বর্তমান শিক্ষার্থীরা।

আয়োজকরা জানান, নারায়ণগঞ্জ চারুকলা ইনস্টিটিউট পরিবেশ রক্ষার্থে খুব সচেতনভাবে এ উৎসবে কোনো প্লাস্টিক উপাদান ব্যবহার করেনি। এ উৎসবের জন্য তৈরী বা উৎসবে ব্যবহৃত সকল কিছু হাতে তৈরি ও পরিবেশ বান্ধব উপাদানে তৈরি।

ইনস্টিটিউটের সহকারী অধ্যাপক শাহীন আহমেদ জানান, আমাদের রজত জয়ন্তী উৎসবের মূল ব্যানারটি পাটের এবং হাতে তৈরি। পাটের সঙ্গে নারায়ণগঞ্জের দীর্ঘ দিনের এতিহ্য জড়িয়ে আছে। তাই উৎসবে ব্যবহৃত গুরুত্বপূর্র্ণ ব্যানারটি আমরা পাট দিয়ে তৈরি করেছি। এর বাইরে অন্যান্য ব্যানারগুলো পাট বা কাপড় দিয়ে তৈরি করা হয়েছে। এছাড়া রজত জয়ন্তীর আনন্দ শোভাযাত্রাকে বনাঢ্য করে তুলতে যে সেব উপকরণ তৈরি করা হয়েছে তার সবগুলোতেই প্লাস্টিক বর্জন করা হয়েছে।

ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষ শিল্পী শামসুল আলম আজাদ বলেন, ‘শিল্প, সংস্তৃতি এবং অর্থনৈতিক দিক থেকে নারায়ণগঞ্জ একটি সমৃদ্ধ জেলা। যার কারণে নারায়ণগঞ্জের শিল্পের, চারুকলার প্রসার ঘটবে এটাই স্বাভাবিক। নারায়ণগঞ্জের সংষ্কৃতি ঐতিহ্য ঘিরেই নারায়ণগঞ্জ চারুকলা ইনস্টিটিউট। তাই নারায়ণগঞ্জ চারুকলা ইনস্টিটিউটের ২৫ বছর পূর্তি উৎসবের সর্বত্রই এর ছোয়া রয়েছে। আমরা সবাই জানি নারায়ণগঞ্জ পাট, জামদানী কাপড়ের জন্য প্রসিদ্ধ। আপনারা দেখতে পাবেন, আমাদের উৎসবের ব্যানার পাটের তৈরি এবং রজত জয়ন্তীর লোগো জামদানী ডিজাইন থেকে অনুপ্রাণিত।’

প্রসঙ্গত, নারায়ণগঞ্জ চারুকলা ইনস্টিটিউটের প্রতিষ্ঠানতা অধ্যক্ষ শিল্পী সমীরণ চৌধুরী ১৯৯৪ সালে মাত্র ৪ জন শিক্ষার্থী নিয়ে এই প্রতিষ্ঠানের যাত্রা শুরু করেন। প্রথমে শহরের চাষাঢ়ায় অবস্থিত শিল্পী সমীরন চৌধুরীর স্টুডিওতে এর কার্যক্রম শুরু হয়। পরবর্তীতে শ্রমকল্যাণ কার্যালয়ে দীর্ঘদিন এর কার্যক্রম পরিচালিত হয়েছিল। পরে নগরীর দেওভোগ এলাকায় রেলওয়ের পরিত্যাক্ত জায়গায় একটি টিন শেড ঘর তৈরী করে এর কার্যক্রম পরিচালনা করতে থাকে। ১৯৯৫ সালে তৎকালীন পৌর পাঠাগারের নিচতলায় শিশু বিভাগে ১০ দিনব্যাপী ১৭ জন শিক্ষার্থীর কাজ নিয়ে চিত্র প্রদর্শনীর মধ্য দিয়ে আত্মপ্রকাশ করে প্রতিষ্ঠানটি। ১৯৯৯ সালে প্রতিষ্ঠানটি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত হয় এবং ২০০৪ সালে এমপিও ভুক্ত হয়। একই বছর প্রথম ব্যাচে ডিগ্রী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে প্রতিষ্ঠানের ১৪ জন শিক্ষার্থী। বর্তমানে নারায়ণগঞ্জ চারুকলা ইনস্টিটিউটে দুই বিভাগে পাঠদান কার্যক্রম চালু রয়েছে।

২০১৮ সালের ১ সেপ্টেম্বর সাড়ে আট কোটি টাকা ব্যায়ের নারায়ণগঞ্জ চারুকলা ইনস্টিটিউটের আধুনিক বহুতল ভবনের ভিত্তিপ্রস্থত করেন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী।

সব খবর
শিল্প ও সাহিত্য বিভাগের সর্বশেষ