বৃহস্পতিবার ২৫ এপ্রিল, ২০১৯

শিশু সাকি অপহরণের ঘটনায় জড়িত নন দাবি কাউন্সিলর সজলের

সোমবার, ১৮ মার্চ ২০১৯, ২০:০৬

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: দেড় বছরের শিশু সাদমান সাকি অপহরণের ঘটনায় নাসিক কাউন্সিলর নাজমুল আলম সজলকে দায়ী করেছেন শিশুটির পিতা ওমর খালেদ এপন। এদিকে এ অভিযোগের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছেন কাউন্সিলর নাজমুল আলম সজল।

সোমবার (১৮ মার্চ) বিকেলে নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন তিনি। নাজমুল আলম সজল বাংলাদেশ হোসিয়ারি সমিতির সভাপতি ও নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কমার্সের পরিচালক।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, সাদমান সাকির অপহরণের ঘটনার সাথে আমার কোন সম্পৃক্ততা নাই। আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা প্রচারণা চালানো হচ্ছে। কোন এক স্বার্থান্বেষী মহলের প্ররোচনায় এই কাজ করছে সাদমান সাকির পিতা এপন। তার সাথে আমার কোন বিরোধ নেই।

তবে সাদমান সাকির পিতা ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ওমর খালেদ এপনের অভিযোগ, গত নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনে ১৬ নম্বর ওয়ার্ডে নাজমুল আলম সজলের কথায় কাউন্সিলর পদের প্রার্থীতা প্রত্যাহার না করার কারণেই সাকিকে অপহরণ করিয়েছে কাউন্সিলর সজল।

এ অভিযোগের প্রেক্ষিতে কাউন্সিলর সজল বলেন, ওই নির্বাচনে ১৬ নম্বর ওয়ার্ডে আমি ও এপনসহ ৭ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দিতা করেন। নির্বাচনের ফলাফলে আমি ৪ হাজার ৮৩৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হই। অন্যদিকে ১২০ ভোট পেয়ে সাত প্রার্থীর মধ্যে সপ্তম হয় এপন। ওই নির্বাচনে তার জামানতও বাজেয়াপ্ত হয়। সুতরাং তার প্রার্থীতা প্রত্যাহার করতে বলার প্রশ্নই ওঠে না।

তিনি আরো বলেন, যদি তার সাথে আমার শত্রুতাই থাকে তাহলে তার অভিযোগের প্রথমেই আমাদের নাম থাকার কথা। ঘটনার ১০ মাস পরে কেন আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হলো আমি তার কাছে এটা জানতে চাই।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ওমর খালেদ এপন প্রেস নারায়ণগঞ্জকে বলেন, আমি প্রথমেই নাজমুল আলম সজলকে আসামি করে মামলা করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু পুলিশ তখন বলেছিল, সজলকে আসামি করলে বিষয়টা রাজনৈতিক রূপ নেবে আর আপনার ছেলেকেও পাবেন না। পুলিশ বলেছিল, এর থেকে বরং তার নাম দিয়েন না, আমরা আপনার ছেলেকে খুজে বের করার চেষ্টা করছি। পুলিশের এই আশ্বাসের কারণে আর আমার ছেলেকে ফিরে পেতেই অভিযোগে তার নাম লেখা হয়নি।

এদিকে সাদমান সাকির অপহরণের ঘটনায় তাকে অভিযুক্ত করে মানববন্ধনে বক্তব্য দেয়ায় সদর মডেল থানায় গত ১৭ অক্টোবর একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন বলে জানিয়েছেন কাউন্সিলর সজল।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন, নাসিক ১৬ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম, হোসিয়ারি সমিতির সহ সভাপতি কবির হোসেন, যুবলীগ নেতা আবু সাইদ সোহেল, মহানগর কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান লিটন, সাবেক জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাফায়েত আলম সানি।

প্রসঙ্গত, গত ২০১৭ সালের ১ ডিসেম্বর দুপুরে শহরের দেওভোগ কাঠের দোতলা এলাকায় নিজ বাড়ির গেটের সামনে থেকে নিখোঁজ হয় দেড় বছরের শিশু সাদমান সাকি। ঘটনার দিন রাতে সদর মডেল থানায় প্রথমে জিডি ও একদিন পর অপহরণ মামলা করেন নিখোঁজ সাদমানের বাবা ছাত্রলীগ নেতা সৈয়দ ওমর খালেদ এপন। ঘটনার ৩ মাস পর মামলাটি তদন্তের ভার দেয়া হয় পিবিআইকে (পুলিশ ব্যুরো ইনভেস্টিগেশন)। বর্তমানে মামলাটি সিআইডিতে তদন্তনাধীন রয়েছে।

সব খবর
নগর বিভাগের সর্বশেষ