শুক্রবার ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যৌন হয়রানিকারীর কোন ছাড় নেই: ইউএনও নাহিদা

শনিবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২০, ২২:২৯

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কোন শিক্ষার্থী যৌন হয়রানির শিকার হলে ছাড় দেওয়া হবে না বলে হুশিয়ারি উচ্চারন করেছেন সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাহিদা বারিক। তিনি বলেছেন, ‘বাবা-মায়ের পরেই শিক্ষকের স্থান। শিক্ষকতা সর্বোচ্চ মর্যাদাপূর্ণ পেশা। শিক্ষকের কাছে ছাত্রছাত্রীরা হচ্ছে সন্তানতুল্য। তারপরেও দুঃখ ও লজ্জাজনক যে শিক্ষক দ্বারা ছাত্রী যৌন হয়রানির ঘটনা ঘটছে। কতিপয় শিক্ষকদের জন্য শিক্ষক সমাজকে লজ্জিত হতে হচ্ছে। সদর উপজেলার প্রত্যেকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পরিচালনা কমিটি, শিক্ষক-শিক্ষিকা ও অভিভাবকদের প্রতি অনুরোধ করছি, এ বিষয়ে সর্বদা কঠোর দৃষ্টি রাখবেন। আর এ বিষয়ে আমার জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের নিকট অভিযোগ এলে অভিযুক্তকে কোন ছাড় দেওয়া হবে না।’

শনিবার (২৫ জানুয়ারি) সকালে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার কুতুবপুর ইউনিয়ন পরিষদের ৪নং ওয়ার্ডের কুসুমবাগের ইকরা আদর্শ বিদ্যানিকেতন স্কুল প্রাঙ্গণে বিদ্যালয়টির বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান তিনি এসব সব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, সুশিক্ষা মানুষকে অন্ধকার থেকে আলোর পথে নিয়ে আসে। সন্তানদের নিয়ে শুধু জিপিএ-৫ এর পিছে ছুটলে হবে না। তাদের নৈতিক শিক্ষায় শিক্ষিত করুন। আত্মীয়স্বজন ও প্রতিবেশীর প্রতি দায়িত্ব কর্তব্য সর্ম্পকে শিক্ষা দিন। এবং পাশাপাশি খেলাধুলার সুযোগ করে দিন। তবেই আপনার সন্তার আপনার কাঙ্খিত স্বপ্ন পূরণের পাশাপাশি দেশ ও মানুষের কল্যাণে কাজ করবে।

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির দপ্তর উপকমিটির সদস্য ও স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ জমশের আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার এস এম আবু তালেব, নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ভারপ্রাপ্ত শিক্ষা অফিসার গুলশান আরা, সদর উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার এইচ এম এ মালেক, কুতুবপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. মনিরুল আলম সেন্টু ও ইকরা আদর্শ বিদ্যানিকেতন স্কুলের প্রধান উপদেষ্টা হাজী মো. শহিদুল্লাহ।

সব খবর
নগর বিভাগের সর্বশেষ