শনিবার ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

শামীম ওসমানের জনসভা, জনগণের ভোগান্তি

শনিবার, ৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৬:৪০

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: বাসস্ট্যান্ডে দাঁড়িয়ে আছেন যাত্রী সাধারণ কিন্তু ঘন্টার পর ঘন্টার অপেক্ষার পরেও পরিবহনের দেখা নেই। দু-একটা পরিবহন যাই আসছে তাতেও যাত্রীর সংখ্যা স্বাভাবিকের তুলনায় অনেক বেশি। নেই পা ফেলার জায়গা। এই সংকটের কারণ জানতে চাইলে পরিবহণ কর্তৃপক্ষ জানান, সাংসদ শামীম ওসমানের ডাকা জনসভাকে কেন্দ্র করেই সকল পরিবহন ও বাস নিয়ে যাওয়া হয়েছে। ফলে শহরে পরিবহন সংকট দেখা দিচ্ছে। কিন্তু এই পরিবহনগুলো কোথায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে সেই প্রশ্নের জবাবে মুখ খোলেনি তাদের কেউ। 

শনিবার (৭ সেপ্টেম্ব) বেলা ১১টায় নগরীর বাসস্টেন্ডগুলো সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, চাষাঢ়া বাসস্ট্যান্ডে পরিবহনের অপেক্ষা করতে করতে প্রায় ঘন্টা, তবু আসছে না কোনো বাস। এদিকে অপেক্ষায় থাকা যাত্রীদের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। এমন সময় পাশের বিআরটিসি বাস কাউন্টার থেকে মো. জুয়েল বলে উঠলেন, ‘আজ আর হিমাচল আসবে না। সকাল থেকে বন্ধ।’ এমন কথায় অপেক্ষায় থাকা অনেকেই প্রশ্ন করলেন, ‘কেন? আজ বাস বন্ধ কেন?’ এর উত্তরে তিনি বললেন, ‘জনসভার জন্য ওরা আগে থেকে বন্ধ করে দিয়েছে। যারা ঢাকা যাবেন গুলিস্তানের টিকেট নিয়া নেন।’

ঢাকার একটি প্রাইভেট ইউভার্সিটির শিক্ষার্থী হাবীবা রহমান। কোচিং এর জন্য ঢাকা যাবেন। ঘন্টাখানেক দাঁড়িয়ে থাকার পর একটি বাস পেলেও তাতে সিট নেই এমনকি দাঁড়িয়ে যাবার মতো পর্যাপ্ত জায়গাও ছিলো না। তাই বাসে না উঠে কাউন্টারের সামনে অপেক্ষা করছেন আরেকটি বাস আসার। এমন সময় কাউন্টারে দায়িত্ব পালনকারি একজন বললেন, ‘সিট নাই, তবু বাসে উঠে যান। পরে বাস পাইবেন না। বাস নাই।’ এমন কথায় অবাক হন হাবীবা। অবাক দৃষ্টিতে তাকিয়ে থাকেন বাসকাউন্টারের লোকটির দিকে। প্রশ্ন করেন, ‘ফেরার সময় কি বাস পাবো না? হাবীবার এমন প্রশ্নের উত্তরে বাস কাউন্টার থেকে উত্তর আসে, ‘না। বিকেলে বাস পুরোপুরো বন্ধ থাকবে। সন্ধ্যার আগে কোনো বাস পাবেন না। সামবেশের জন্য সব বাস নিয়া নিসে। আমরা দুই চারটারে ধমক দিয়ে নিয়া আসছি।’ এমন উত্তরে চিন্তায় পরে যায় হাবীবা। দুপুরে কোচিং বিকেলে শেষ হয়ে যাবে। এরপর বাস না পেলে তো মহাবিপদ। কোচিং এলাকা ছাড়া কিছু চিনেনা সে। পরিচিত তেমন কেউ নেই। অনেক ভাবার পর শেষে আজকের জন্য কোচিং বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়ে বাড়ির দিকে রওনা দেয়।

সাবরিনা সুলতানার বাবা গত তিনদিন যাবৎ ঢাকা পিজি হাসপাতালে ভর্তি। বাড়ি থেকে খাবার রান্না করে নিয়ে এসছেন। বাবার জন্য নিয়ে যাবেন। কিন্তু চাষাঢ়া বাসসেন্ডে আসতেই দেখেন কোনো বাস নেই। হিমাচলের জন্য প্রায় দেড় ঘন্টা অপেক্ষার পর উৎসব বাসের টিকেটে নিলেন। কিছুক্ষণ অপেক্ষা করতেই বাস চলে এল কিন্তু কোনো সিট নেই। আর অপেক্ষা না করতে পেরে দাঁড়িয়ে ঢাকা যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিলেন তিনি। এ সময় প্রেস নারায়ণগঞ্জের প্রতিবেদককে সাবরিনা সুলতানা বলেন, ‘কষ্ট হবে তবু আমাকে যেত হবে। অনেক্ষণ অপেক্ষা করেছি। আর সম্ভব হচ্ছে না।’

নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমান কর্তৃক ডাকা জনসভাকে কেন্দ্র করে শহরে পরিবহন সংকট দেখা দেয়। যার ফলে শহরে যাত্রী ভোগান্তির এমন বেশকিছু দৃশ্য দেখা যায়। যা এখনো বিদ্যমান রয়েছে। বাস মালিকদের ধারণা আজ সারাদিন বিদ্যমান থাকবে এই পরিবহন সংকট ও যাত্রীভোগান্তি।

সব খবর
নগর বিভাগের সর্বশেষ