সোমবার ২০ আগস্ট, ২০১৮

‘শহরের মাঝে এক টুকরো বিনোদন স্পট’

রবিবার, ১৭ জুন ২০১৮, ১৬:৫৭

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

নুসরাত জাহান সুপ্তি (প্রেস নারায়ণগঞ্জ): কি ভাবছেন! কোথায় যাবেন ঈদের ছুটিতে? প্রিয়জনদেরকে নিয়ে পছন্দের কোন স্থানে ঘুরে আসতে চাচ্ছেন? ঢাকায় ঘুরতে যাবেন! ধানমন্ডি লেক, আহসান মঞ্জিল, লালবাগ কেল্লা, জাতীয় শিশু পার্ক কিংবা হাতির ঝিল? হাতির ঝিলের সৌন্দর্য যদি দেখতে চান তাহলে ঢাকা কেনো? নারায়ণঞ্জ শহরের জিমখানাতেই তৈরি হচ্ছে দেশের দ্বিতীয় হাতির ঝিল। হাতির ঝিল না হলেও দিনে দিনে জিম খানা লেক হাতির ঝিল নামেই স্থানীয়দের কাছে পরিচিতি পাচ্ছে। এর কাজ এখনও পুরোপুরি শেষ না হলেও শহরের আশপাশের অবসর সময় কাটানোর স্থান হিসেবে খ্যাতি পেয়েছে ইতিমধ্যেই।

শহরের দেওভোগ মর্গ্যান স্কুলের ঠিক দক্ষিণ দিক থেকেই শুরু হয়েছে জিমখানা লেকের সীমানা। শেষ হয়েছে দেওভোগ মোবারক শাহ রোডে। পুরো লেকটি পরিপাটিভাবে বাঁধাই করা হয়েছে। লেকের উত্তরপাশে রাখা হয়েছে বসার স্থান যেখানে চাইলেই কাটানো যাবে অবসর সময়। লেকের পূর্বদিকে তৈরি করা শেখ রাসেল পার্ক ও মুক্তমঞ্চ। লেকের মাঝ দিয়ে তৈরি হয়েছে একটি পথচারী সেতু। যেটা লেকটির সৌন্দর্য করেছে দ্বিগুন। লেকের সম্পূর্ণ কাজ শেষ না হলেও যেটুকু কাজ শেষে হয়েছে তাতেই লেকটি ঘুরতে যাওয়ার জন্যে যথেষ্ট উপযোগী বলা যায়। সন্ধ্যার পর লেকের নিজস্ব আলোকসজ্জার ব্যবস্থা না থাকলেও এলাকার বিভিন্ন দিকের আলোক সজ্জায় আলোকিত থাকে।

বিশেষ ভাবে আরও তৈরী করার পরিকল্পনার মধ্যে রয়েছে পাবলিক টয়লেট, জিমন্যাশিয়াম। এছাড়া আরও মেয়েদের জন্য সুইমিংপুল করার কথা বলেছেন নাসিক মেয়র ডাঃ সেলিনা হায়াৎ আইভী। যা নগরবাসীর আকর্ষণ হিসেবে রয়েছে।

নগরে পর্যাপ্ত বিনোদন স্পট না থাকায় দিনে দিনে জিম খানা লেক হয়ে উঠেছে অবসর কাটানো ও আনন্দ উপভোগের অন্যতম স্থান। সময় কাটানো কিংবা ঘুরে বেড়ানোর জন্য উপযুক্ত সময়। ইতিপূর্বে পহেলা বৈশাখে সাংস্কৃতিক জোটের প্রোগ্রাম হয়েছিল। আর আগে ৯ জানুয়ারি নাসিক মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী জনতার মুখোমুখি অনুষ্ঠান হয়েছিল এখানে। এসব ছাড়াও সাপ্তাহিক ছুটিতে ঘুরতে নগরবাসী শহরের মাঝে এই স্থানটিকেই বেছে নেয়। শহরের মাঝে স্বস্থির নিশ্বাস ফেলার জন্য এটাই এক মাত্র বিনোদন কেন্দ্র হিসেবে পরিচিতি পাচ্ছে। সুতরাং জিমখানা লেকটি হতে পারে এই ঈদের ছুটিতে নগরবাসীর আনন্দ কেন্দ্র ।

 

সব খবর