বুধবার ১৭ অক্টোবর, ২০১৮

শহরের অন্যতম দিগুবাবু বাজারে যত সমস্যা

সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১:৫১

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: দীর্ঘদিন ধরে নগরবাসীর ভোগান্তির কারণ হয়ে আছে দিগুবাবুর বাজার। নিত্যদিন বাজারে গিয়ে ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন হাজারো মানুষ। নগরবাসী ও বিভিন্ন সংস্থা থেকে বাজার পরিচ্ছন্ন রাখার দাবি উঠলেও বিভিন্ন কারণে তা বাস্তবায়িত করতে পারছে না সিটি কর্পোরেশন।

তবে সিটি কর্পোরেশন এর জন্য বাজারের অব্যবস্থাপনাকে দোষারোপ করছেন। অন্যদিকে বাজারের অব্যবস্থাপনা ও সিটি কর্পোরেশনের উদাসীনতাকে দোষছেন নগরবাসী ও সচেতন মহল। এছাড়াও শনিবার (২২ সেপ্টম্বর) নারায়ণগঞ্জ নাগরিক কমিটি মানববন্ধন করে দিগুবাবু বাজারের ভেতর ময়লা-আবর্জনা ও মীর জুমলা সড়ক দখলমুক্ত না থাকায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন। এবং দিগুবাবু বাজারে প্রতিদিন ময়লা-আবর্জনা মুক্ত এবং মীরজুমলা সড়ক দখলমুক্ত রাখার দাবি জানিয়েছেন সিটি করপোরেশনের কাছে।

শহরের প্রধান কাচা বাজার দিগুবাবুর বাজার। শহরের বিভিন্ন এলাকার খুচরা ব্যবসায়ীরা পাইকারি দরে পণ্য ক্রয় করার জন্য এখান আসেন। এছাড়া শহরের মধ্যে এটি একমাত্র কাচাবাজার হওয়ায় প্রতিদিন হাজারো ক্রেতা এখানে ভীড় করেন। কিন্তু বাজারে আসাটাই তাদের জন্য র্দুভোগ। সারাদিন বাজারের সর্বত্র ময়লা-আবর্জনা, বাজারের ভেতরের রাস্তা স্যাঁতস্যাঁতে, কাদা, পচা সবজির দুর্গন্ধে একাকার। তার উপর রিকশা, মালবাহি গাড়ির দৌরাত্ম এবং বাজরের প্রধান দুটি সড়ক জুড়ে কাচা সবজির অস্থায়ী দোকানের কারণে নেই হাটার একটু জায়গা। এ অবস্থায় নিরুপায় হয়ে ক্রেতারা প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র ক্রয় করেন। মোটকথা অনেকটা বাধ্য হয়ে। আবার অনেকে খুব প্রয়োজন ছাড়া বাজারে প্রবেশ করতে চান না।

বাজারের মূল সড়ক মীরজুমলা সড়কের দুপাশেই সারি সারি সবজির ভ্রাম্যমাণ দোকান। সিটি কর্পোরেশন থেকে সড়কটিতে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করে দোকানগুলো তুলে দেয়া হলেও কিছুদিন পর আবার সেই অবৈধ দখল। পৌর মার্কেট সড়ক এতোদিন বেহাল অবস্থায় থাকায় দোকানীরা এখানে পসরা কম সাজাতো। সম্প্রতি সড়কটি সংস্কার কাজ করার পর সড়কের দুই পাশে বসে গেছে সারি সারি সবজির অস্থায়ী দোকান। এসব অস্থায়ী দোকান থেকে একটু পরপরই সবজির অবশিষ্ট ফেলা হচ্ছে রাস্তার মাঝে। সবজির অবশিষ্ট ফেলায় নেই কোনো শৃঙ্খলা।

ময়লা-আবর্জনা পরিষ্কারের জন্য বাজার কর্তপক্ষ থেকে ৫ জন পরিচ্ছন্নকর্মী নিয়োগ করা রয়েছে। যারা প্রতিদিন বাজারের ময়লা পরিষ্কার করে একস্থানে জমা করেন সিটি কর্পোরেশনের নেয়ার জন্য। কিন্তু তা থেকেও কোনো সুফল আসছে না।

অন্যদিকে সিটি কর্পোরেশন থেকে সকাল বেলা ময়লা অপসারণ করার কথা থাকলেও দুপুরে সে ময়লা অপসারণ করা হয় না। যার ফলে বাসি পচা সবজি থেকে প্রতিনিয়ত দুর্গন্ধ বেরোতে থাকে।

বাজারের দোকানীদের অভিযোগ, সিটি কর্পোরেশনের পরিচ্ছন্নকর্মীরা তাদের কাজ সময় মতো করেন না। যার ফলে ময়লা-আবর্জনা ঘন্টার পর ঘন্টা রাস্তায় পড়ে থাকে। আর রাস্তায় ফেলে রাখা পচা ময়লা-আবর্জনা থেকে দুর্গন্ধ আসতে থাকে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সিটি কর্পোরেশনের একজন পরিচ্ছন্নকর্মী প্রেস নারায়ণগঞ্জকে বলেন, দোকানীরাই সারাক্ষণ রাস্তা অপরিষ্কার করে রাখে। আমরা পরিষ্কার করে যাই, একটু পর আবার ময়লা ফেলে রাস্তা ময়লা করে রাখে। আমরা দিনে কতবার পরিষ্কার করবো।

সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এফএম এহতেশামূল হক বলেন, `পরিচ্ছন্নকর্মীরা সারাদিন বাজার পরিষ্কারের কাজ করতে পারে না। আর বাজারে কখন ময়লা বেশি হয় তা বাজার কর্তৃপক্ষ থেকে আমাদের জানানোর কথা। কিন্তু তারা তা করেন না। তাদের অসহযোগিতার জন্য মূলত বাজার পরিষ্কার রাখা সম্ভব হয় না।`

সব খবর
জনদুর্ভোগ বিভাগের সর্বশেষ