বুধবার ২১ এপ্রিল, ২০২১

লক্ষ্মী নারায়ণ কটন মিলসের ১২ সদস্যের যুব কমিটি

মঙ্গলবার, ২৩ মার্চ ২০২১, ১১:৫৬

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস বিজ্ঞপ্তি: নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ১০ নং ওয়ার্ডের সিদ্ধিরগঞ্জের গোদনাইলে অবস্থিত শতবছরের পুরনো নিউ লক্ষ্মী নারায়ণ কটন মিল শেয়ারহোল্ডার স্বার্থ রক্ষা সংগ্রাম কমিটির আওতাধীন ১২ সদস্য বিশিষ্ট যুব কমিটি গঠন করা হয়েছে।

সম্প্রতি এক সাধারণ সভায় উপস্থিত শেয়ারহোল্ডারগণের সম্মতিক্রমে এই ১২ সদস্যবিশিষ্ট যুব কমিটি গঠন করা হয়। যুব কমিটির আহবায়ক মনোনীত হয়েছে মো: ইয়াকুব। যুগ্ম আহবায়ক পদে মনোনীত হয়েছেন তরুন বেগী। সদস্য সচিব মনোনীত হয়েছেন মো. লিটন। যুগ্ম সদস্য সচিব মনোনীত হয়েছেন বিকাশ চন্দ্র। সদস্যরা হলেন, মো. জহির, আব্দুর রউফ, মো. আরমান, বিদ্যুৎ দে, পরেশ সাহা, মো. সোহাগ, সুশীল, সৌরভ বাড়ৈ।

জানা গেছে, নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ১০ নং ওয়ার্ডের সিদ্ধিরগঞ্জের গোদনাইলে অবস্থিত শত বছরের পুরনো নিউ লক্ষ্মী নারায়ণ কটন মিলটি ১৮ একর ৬৫ শতাংশের উপর গড়ে উঠেছিল। ২০০১ সালে ২১ মার্চ ৫১০ জন শ্রমিককে মালিক বানিয়ে মিলটি হস্তান্তর করে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকার। তবে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী যে লক্ষ্য নিয়ে মিলটি নামমাত্র মূল্যে শ্রমিকদের কাছে হস্তান্তর করেছিল সেই উদ্দেশ্য বাস্তবায়ন হতে দেয়নি পরিচালনা পর্ষদের নেতৃত্বদানকারী একটি অসাধু সিন্ডিকেট। লোকসানের কথা বলে মিলটির একজন বিনিয়োগকারী নিয়োগের কথা বলে প্রতারণার মাধ্যমে ৩৮২ জনের শেয়ার হাতিয়ে নিয়ে নিট কনসার্ন গ্রুপের কাছে বিক্রি করে দেয়। অথচ মিলটির শেয়ার বিক্রি করা আইনগতভাবে বৈধ নয়। পরে শেয়ারহোল্ডাররা স্বার্থরক্ষা সংগ্রাম কমিটি ঘোষণা করে আন্দোলন চালিয়ে আসছে। ৫৩ জন শেয়ারহোল্ডার শেয়ার বিক্রি করতে রাজী না হওয়ায় তাদের উপর গত ৮ বছর ধরে চালানো হয়েছে নির্যাতনের স্টীম রোলার। তাদেরকে শ্রমিক কলোনী থেকে উৎখাতের জন্য অসংখ্যবার চেষ্টা করে নিট কনসার্ন গ্রুপের নিয়োজিত সন্ত্রাসীরা। গ্যাস, বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্নের পাশাপাশি এমনকি তাদের শ্রমিক কলোনীতে আগুনও ধরিয়ে দেয়। বর্তমানে নিট কনসার্ন গ্রুপে হাইকোর্টে মামলা থাকার পরেও সরকারের কোন ধরনের অনুমতি ছাড়াই সেখানে বহুতল ভবন নির্মাণ করেছে।

২০১৯ সালের শেষ দিকে নিউ লক্ষ্মী নারায়ণ কটন মিলটির কলোনীর শেয়ার হস্তান্তর বা বিক্রি কেন অবৈধ হবে না জানতে চেয়ে রুল নিশি জারি করেছেন হাইকোর্ট। হাইকোর্টের বিচারক এম এনায়েতুর রহিম ও মো. মোস্তাফিজুর রহমানের দ্বৈত বেঞ্চ এ আদেশ দেন। ৪ সপ্তাহের মধ্যে সংশ্লিষ্টদের জবাব দেয়ার জন্য নির্দেশ দিয়েছিলেন আদালত।

সব খবর
সংগঠন সংবাদ বিভাগের সর্বশেষ