শনিবার ১৭ আগস্ট, ২০১৯

রূপগঞ্জে মামলা তুলে নিতে সংখ্যালঘু পরিবারকে হত্যার হুমকি

বৃহস্পতিবার, ১৬ মে ২০১৯, ২০:৫৯

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: রূপগঞ্জে সংখ্যালঘু পরিবারের উপর হামলা ও আহতের ঘটনায় দায়ের করা মামলা তুলে নিতে প্রতিপক্ষের লোকেরা বাদীসহ পরিবারের সদস্যদের হত্যা ও গুমের হুমকি দিচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শুধু তাই নয়, হুমকির পর গৃহবন্দি করেও রাখা হয়েছে পরিবারটিকে। এ ধরনের হুমকির পর থেকে ওই সংখ্যালঘু পরিবারটি চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন।

গত শনিবার (৪ মে) দুপুরে উপজেলার রূপগঞ্জ সদর এলাকায় পুর্বশত্রুতার জের ধরে প্রতিপক্ষের সন্ত্রাসীরা সংখ্যালঘু পরিবারের বসতবাড়িতে হামলা চালিয়ে চার জনকে পিটিয়ে আহত করে। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়।

মামলার বাদী শ্রী পপেল চন্দ্র দাস জানান, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে একই এলাকার তোফাজ্জল, জুয়েল, সুজন, হাছিবুর, আলম, মিন্টু, মামুন সহ অজ্ঞাত ২০/২৫ জন দেশীয় অস্ত্রে-শস্ত্রে সজ্জিত হয়ে পপেল চন্দ্র দাসের বাড়িতে হামলা চালিয়ে বাড়িঘরে ভাংচুর শুরু করে। পপেল চন্দ দাসের বড় ভাই তপন চন্দ্র দাস ভাংচুরে বাধা দিলে হামলাকারীরা তাকে পিটিয়ে আহত করে। তার ডাক-চিৎকারে পপেল চন্দ্র দাস সহ তার ছোট ভাই সজিব ও স্ত্রী জুই রানী দাস এগিয়ে আসলে হামলাকারীরা তাদেরকেও পিটিয়ে আহত করে। এক পর্যায়ে হামলাকারীরা পপেল চন্দ্র দাসের স্ত্রী জুই রানী দাসের সাথে শ্লীলতাহানীর ঘটনা ঘটায়। পরে হামলাকারীরা বাড়ীর পাশে তার স্বর্ণের দোকানে ভাংচুর করে ৭ ভরি স্বর্ণ ও নগদ ১লাখ ২০ হাজার টাকা লুটে নেয়। পরে এলাকাবাসী আহত অবস্থায় তাদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করে। এ ঘটনায় শ্রী পপেল চন্দ্র দাস বাদী হয়ে রূপগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পর থেকেই আসামীরা মামলা তুলে না নিলে হত্যার গুম করে ফেলবে বলে বাদীসহ বাদীর পরিবারকে অব্যাহত হুমকি দিয়ে আসছে। হুমকির পর থেকেই তারা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। বর্তমানে তারা গৃহবন্দি হয়ে আছেন।

রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহমুদুল হাসান বলেন, বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সব খবর
নগরের বাইরে বিভাগের সর্বশেষ