শুক্রবার ০৫ মার্চ, ২০২১

রূপগঞ্জে মন্দিরে হামলার ঘটনায় মামলা

সোমবার, ২৮ ডিসেম্বর ২০২০, ১২:১৭

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার গোলাকান্দাইল ইউনিয়নের সাওঘাট মধ্য মণিপাড়া দুর্গামন্দিরে হামলার ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। রবিবার ২৭ ডিসেম্বর মন্দির কমিটির সভাপতি বিধূ ভ’ষণ চন্দ্র দাস বাদী হয়ে এই মামলা করেন। মামলায় দশ জনকে নামীয় ও অজ্ঞাত ১০/১২ জনকে আসামী করা হয়েছে।

মামলায় আসামী হলেন, সাওঘাট গ্রামের হাজী শের আলী, জহিরুল ইসলাম, নজরুল ইসলাম, সিরাজুল ইসলাম, দ্বীন ইসলাম, আপেল মাহমুদ, নাজির হোসেন, আয়নাল হক, মিজান মিয়া ও প্রদীপ সরকার।

মন্দিরে হামলার ঘটনায় রূপগঞ্জ হিন্দু-বৌদ্ধ-খৃষ্টান ঐক্য পরিষদ, রূপগঞ্জ উপজেলা হিন্দু কল্যাণ পরিষদ ও রূপগঞ্জ উপজেলা পূজা উদযাপন কমিটি তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। এ ঘটনায় তারা সন্ত্রাসীদের চিহ্নিত করে অবিলম্বে গ্রেফতারের দাবী জানিয়েছেন।

রূপগঞ্জ উপজেলা পূজা উদযাপন কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক দীগেন বিশ্বাস বলেন, বিএনপি জামাত জোট সরকারের অনুসারীরা রূপগঞ্জকে অশান্ত করতে মন্দিরে এ হামলা চালায়। সন্ত্রাসীদের অবিলম্বে গ্রেফতার করতে হবে। অন্যথায় ঢাকা- সিলেট মহাসড়কের ভুলতায় অবরোধসহ কঠোর আন্দোলনের কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

রূপগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মাহমুদুল হাসান বলেন, মন্দিরে হামলার ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার আসামীদের গ্রেফতারে পুলিশ তৎপর রয়েছে। সন্ত্রাসীরা যে দলেরই হোক তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।

উল্লেখ্য উপজেলার সাওঘাট ঋষিপাড়ার পঞ্চায়েত কমিটির শ্রী শ্রী দুর্গা মন্দিরের জন্য নির্ধারিত ৯ শতাংশ জমি ক্রয় করে। ওই জমির মালিকানা দাবি করে একই এলাকার হাজী শের আলী। এ নিয়ে বিরোধ চলছিল উভয় পক্ষের মধ্যে। গত ২৬ ডিসেম্বর সকাল থেকে পঞ্চায়েত কমিটি ওই জমিতে বালু ভরাট করতে থাকে। এ সময় হাজী শের আলীর লোকজন দুপুরের দিকে মন্দিরের কাজে কর্মরত লোকদের কাজে বাধা দেয়। জমিতে সাটানো মন্দিরের সাইনবোর্ডটি ভাঙচুরেরও অভিযোগ পাওয়া যায়। খবর পেয়ে ঋষিপাড়ার লোকজন একত্রিত হয়ে তাদের ধাওয়া করে। পরে উত্তিজিত জনতা সাওঘাট-আড়াইহাজার সড়কে অবস্থান নেয়। এ সময় ঘন্টাব্যাপী সড়কে অবস্থানের ফলে উভর দিকে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়।

সব খবর
নগরের বাইরে বিভাগের সর্বশেষ