শনিবার ২৩ নভেম্বর, ২০১৯

রূপগঞ্জে বৃদ্ধার গলাকাটা লাশ উদ্ধার

রবিবার, ৩০ জুন ২০১৯, ১৮:০৫

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: রূপগঞ্জে নুর বানু (৬০) নামে এক বৃদ্ধার নিজ বাড়ি থেকে তার গলাকাটা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহতের পরিবারের দাবি জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে এ হত্যাকান্ড ঘটেছে। এ ঘটনায় সম্পৃক্ত থাকার সন্দেহে ৫ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

রোববার (৩০ জুন) দুপুরে রূপগঞ্জ গন্ধর্বপুর তালতলা এলাকায় এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে। নিহত নুর বানু গন্ধর্বপুর এলাকার মৃত আব্দুল রাজ্জাকের স্ত্রী। সে স্থানীয় একটি বিড়ি বানানোর কারখানার শ্রমিক ছিলেন।

গ্রেপ্তারকৃতরা হল, নূর বানুর বাড়ির ভাড়াটিয়া ও সিটি ওয়েল মিলেন শ্রমিক সিরাজগঞ্জ জেলার শাহাজাতপুর থানার বুরজোবালা এলাকার বাবু পরামানিকের ছেলে আব্দুল বারেক, নাবাবিলা এলাকার আব্দুল জলিলের ছেলে আল-মামুন, ফজর আলীর ছেলে হোসেন আলী, নিহতের প্রতিবেশী গন্ধর্বপুর তালতলা এলাকার নুরু মিয়ার ছেলে জাহাঙ্গীর ও আহসান উল্লাহর ছেলে আলামিন।

নিহত নুর বানুর ছেলে ইলিয়াছ মিয়া জানান, তিনি মুড়িপাড়া আইডিয়েল কিন্ডার গার্টেন স্কুলে শিক্ষকতা করেন। মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে বাড়িতে যান। হত্যাকান্ডের সময়ে বাড়িতে ছিলো আটককৃত ভাড়াটিয়া আব্দুল বারেক, আল-মামুন ও হোসেন আলী। তাদের সম্পৃক্ততা থাকতে পারে। এছাড়া আটককৃত জাহাঙ্গীরদের সাথে তার মা নুর বানুর এক শতাংশ জমি নিয়ে দীর্ঘ দিন ধরে বিরোধ চলে আসছিলো। ওই বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের লোকজন তার মা নুর বানুকে জবাই করে হত্যা করেছে বলে দাবি করেন।

রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহমুদুল হাসান জানান, গর্ন্ধবপুর এলাকার নিজ বাড়ির একটি পরিত্যক্ত ঘরে বিড়ি শ্রমিক নুর বানুর গলাকাটা লাশ পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে হত্যাকান্ডের বিষয়টি নিশ্চিত হন। দুপুরের দিকে কে বা কারা করাত দিয়ে নুর বানুর গলা কেটে হত্যা করেছে বলে প্রাথমিক ভাবে নিশ্চিত হওয়া গেছে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল (ভিক্টোরিয়া) মর্গে পাঠানো হয়েছে। সন্দেহজনক ভাবে পাঁচ জনকে আটক করা হয়েছে। হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটন করে হত্যাকারীদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনা হবে বলেও জানান ওসি।

সব খবর
নগরের বাইরে বিভাগের সর্বশেষ