রবিবার ২৬ মে, ২০১৯

রূপগঞ্জে গ্যাস বিস্ফোরণে দগ্ধ আরও একজনের মৃত্যু

বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০১৯, ১৮:৫১

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: রূপগঞ্জে গ্যাসের লাইনে লিকেজ হয়ে জমে থাকা গ্যাস বিস্ফোরণের ঘটনায় দুই দিন চিকিৎসাধীন থাকার পর আরিফুর রহমানের (২৬) মৃত্যু হয়েছে৷

ঘটনার পর গুরুতর অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে নিয়ে যাওয়া হয় তাকে। বুধবার (২৪ এপ্রিল) দুপুরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় মৃতের সংখ্যা দাড়িয়েছে ৪।

সোমবার (২২ এপ্রিল) ভোর রাতে রূপগঞ্জ উপজেলার ভুলতা ইউনিয়নের সাঁওঘাট এলাকায় অসিম মিয়ার তিনতলা বাড়ির নীচতলার একটি ফ্ল্যাটে এ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। তিতাস গ্যাসের হাই-প্রেসার পাইপ লাইন থেকে নেয়া অবৈধ গ্যাস সংযোগের কারণেই এ ঘটনা ঘটতে পারে বলে ধারণা ফায়ার সর্ভিসের সদস্যদের।

ঘটনার সময় দগ্ধ হয়ে মেহেরপুর জেলার মজিবনগর থানার কোমরপুর এলাকার দুদু মিয়ার ছেলে শামীম (২৩) ও ঝালকাঠি জেলার নলছিটি থানার কয়া এলাকার রহিম বিশ্বাসের ছেলে হেলাল বিশ্বাস ওরফে রাকিব (২৫) মারা যান। পরে ওইদিন বিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তরিকুল ইসলাম।

এদিকে ঘটনার দুই দিন পর মারা যান আরিফুর রহমান (২৬)৷ নিহত আরিফের বাড়ি মানিকগঞ্জ জেলার হরিরামপুর থানার গোপীনাথপুর গ্রামে। তারা ৪জনই স্থানীয় নেক্সট এক্সোসরিজ লিমিটেড নামে একটি পোশাক কারখানার প্রিন্টিং অপারেটর ছিলেন।

এ ঘটনায় আহতরা হলেন, একই কারখানার শ্রমিক লিয়াকত আলী, হযরত আলী, আরিফ, আনোয়ার হোসেন, ফারুক মিয়া। এদের মধ্যে হযরত আলীর অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের পাশে উপজেলার সাওঘাট এলাকায় রাবেয়া আক্তার মিলি নামে এক আইনজীবীর দোতলা বাড়ি রয়েছে। মহাসড়কের পাশ দিয়ে স্থাপিত তিতাস গ্যাসের হাই-প্রেসারের পাইপ লাইন থেকে অবৈধভাগে ওই বাড়িতে গ্যাসের সংযোগ নেন মিলি। হাই-প্রেসারের পাইপ লাইন থেকে আবাসিক গ্যাস সংযোগ নেয়াটা পুরোটাই ঝুঁকিপুর্ণ।

ওই ভবনটি স্থানীয় নেক্সট এক্সোসরিস লিমিটেড নামে একটি পোশাক কারখানার শ্রমিকদের কাছে ভাড়া দেয়া হয়। শবে বরাতের কারণে সব মিল-কারখানা বন্ধ থাকায় গ্যাসের প্রেসার ছিল অধিক। ভোর সোয়া ৩টার দিকে হঠাৎ করে একটি বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এতে ভবনটির পুরো দেয়াল ভেঙে প্রায় ৫০ থেকে ৩০০ ফুট দূরে গিয়ে পড়ে। এসময় পুরো এলাকা কেঁপে উঠে।

সব খবর
নগরের বাইরে বিভাগের সর্বশেষ