বুধবার ১৩ নভেম্বর, ২০১৯

রূপগঞ্জে ইউপি মেম্বারের বিরুদ্ধে নারী মেম্বারের চাঁদাবাজির অভিযোগ

বৃহস্পতিবার, ২৪ অক্টোবর ২০১৯, ২১:২৮

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: রূপগঞ্জ সদর ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য মোরশেদ আলমের বিরুদ্ধে সংরক্ষিত আসনের সদস্য জিন্নাত জাহান জিসানের ঠিকাদারি কাজ বন্ধ করে দিয়ে তার কাছে চাঁদা দাবি করা হযেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় নারী ইউপি সদস্য বাদী হয়ে বুধবার (২৩ অক্টোবর) রাতে রূপগঞ্জ থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।

সংরক্ষিত ইউপি সদস্য জিন্নাত জাহান জিসান জানান, তিনি পূর্বাচল উপশহরের ৩নং সেক্টরের ১০৩নং রাস্তার ৮৪নং প্লটের মালিক ডা. রফিক মিয়ার কাছ থেকে প্লটের চারপাশের দেয়াল নির্মানের কাজ পান। বেশ কিছিুদিন ধরে রাজমিস্ত্রীদের মাধ্যমে দেয়াল নির্মানের কাজ করে আসছেন। গত সোমবার সকালে ৩নং ওয়ার্ডের চাঁন মিয়ার ছেলে ইউপি সদস্য চাঁদাবাজ মোরশেদ আলম ও তার সহযোগী চাঁদাবাজ দুলা মিয়ার ছেলে পারভেজ এবং হারুন মিয়ার ছেলে কিবরিয়া নির্মাণ কাজে বাঁধা দিয়ে কাজ বন্ধ করে দেয়। জিন্নাত হোসেন জিসান খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে তাদেরকে কাজে বাঁধা দেওয়ার কারন জিজ্ঞাসা করে। ইউপি সদস্য মোরশেদ জিসানের কাছে ১ লাখ টাকা দাবী করে। নারী ইউপি সদস্য চাঁদা দিতে অস্বীকার করে।

এ সময় মোরশেদ মেম্বার বলে নির্বাচনে দেড়-দুই কোটি টাকা খরচ করেছি। আমার ওয়ার্ডে কেউ কাজ করলে আমাকে চাঁদা দিয়েই কাজ করতে হবে নতুবা আমি কাউকেই কাজ করতে দিবো না। এ ঘটনা নিয়ে দুই ইউপি সদস্যের মধ্যে বাকবিতন্ডা হয়। বাক বিতন্ডার এক পর্যায়ে মোরশেদ জিসানকে ধাক্কা মেরে ফেলে দেয়। চাঁদাবাজদের দাবীকৃত চাঁদার টাকা না দিয়ে কাজ করলে হত্যার হুমকি দেয় চাঁদাবাজরা। এ ঘটনায় জিন্নাত জাহান জিসান বুধবার রাতে রূপগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

এ ব্যপারে ইউপি সদস্য মোরশেদ আলম বলেন, আমি জিসানকে ফোন করে বলি আমার এলাকার দলীয় ছেলেদের নিয়ে কাজ করার জন্য। তারা হয়তো মিষ্টি খাওয়ার টাকা চাইতে পারে। আর আমি নির্বাচনে ৮০ হাজার টাকা খরচ দেখিয়েছি। আমি দেড়-দুই কোটি টাকার কথা বলবো কেন। এ বিষয়টি সঠিক নয়।

রূপগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মাহমুদুল হাসান বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সব খবর
নগরের বাইরে বিভাগের সর্বশেষ