সোমবার ২১ অক্টোবর, ২০১৯

রাস্তা দখল করে পশুর হাট, ইজারাদারের পক্ষে কাউন্সিলরের সাফাই

বৃহস্পতিবার, ৮ আগস্ট ২০১৯, ২২:৫৮

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের (নাসিক) ৩ নম্বর ওয়ার্ডে সড়ক দখল করে কোরবানির পশুর হাট বসেছে। সড়কে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে হাট বসার কারণে এই সড়কে চলাচলকারী যাত্রী সাধারণ পড়েছেন চরম ভোগান্তিতে। এদিকে এই হাটের ইজারাদার মো. শাহ্জাহান হলেও পরিচালনা করছেন এই ওয়ার্ডের কাউন্সিলর শাহ্জালাল বাদল এমন অভিযোগ করেছেন স্থানীয়রা।

সিটি কর্পোরেশন সূত্রে জানা যায়, ৩ নম্বর ওয়ার্ডে দু’টি অস্থায়ী পশুর হাটের ইজারা দিয়েছে সিটি কর্পোরেশন। এর মধ্যে মাদানী নগর ব্রিজ সংলগ্ন বালুর মাঠের হাটটির জন্য সর্বোচ্চ ১ লাখ ৫৬ হাজার টাকায় ইজারা পান মো. শাহ্জাহান। গত বছরও তিনিই এই হাটের ইজারা পেয়েছিলেন।

এদিকে স্থানীয় সূত্র জানায়, মাদানীনগর এলাকায় বালুর মাঠ উল্লেখ করে অস্থায়ী গরুর হাট ইজারা পেলেও প্রকৃতপক্ষে ওই এলাকায় কোন বালুর মাঠ নেই। ইজারা শাহ্জাহান পেলেও হাট পরিচালনা করছেন স্থানীয় কাউন্সিলর শাহ্জালাল বাদল।

বৃহস্পতিবার সরেজমিনে দেখা যায়, মাদানী নগর ক্যানেলপাড় চৌরাস্তা থেকে পশ্চিম দিকে মৌচাক পর্যন্ত সড়কটি সম্পূর্ণ বন্ধ করে বসানো হয়েছে হাট। চৌরাস্তা থেকে সানারপাড় যেতে প্রধান সড়কের নিমাইকাশারী পর্যন্ত এবং চৌরাস্তা থেকে পূর্ব দিকে দুই লেন, বটতলার ১ লেন দখল করে এ হাট বসানো হয়েছে। এতে এই তিনটি সড়ক দিয়ে কোন যানবাহন চলাচল করতে পারছে না। পায়ে হেঁটে যেতেও চরম ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে পথচারীদের। এতে চরম ক্ষোভ দেখা দিয়েছে জনমনে।

কবির নামে মাদানীনগর চৌরাস্তার এক বাসিন্দা ক্ষোভের সাথে বলেন, মাদানী নগর চৌরাস্তা থেকে নয়াআটি মুক্তিনগর বটতলা ক্যানেলপাড় হয়ে চিটাগাং রোডের এই গুরুত্বপূর্ণ রাস্তাটি পুরোপুরি দখল করে গরুর হাট বসিয়েছেন। ফলে এ ওয়ার্ডের পশ্চিম ও উত্তর অংশের লোকজনের যাতায়াতের জন্য বাধা হয়ে দাড়িয়েছে।

তিনি আরো বলেন, হাটটি শাহ্জাহান ইজারা নিলেও মূলত পরিচালনা করেন কাউন্সিলর বাদল। কাউন্সিলরের সরাসরি হস্তক্ষেপেই সড়কে বসেছে হাট।

নিমাইকাশারী এলাকার বাসিন্দা আব্দুল জলিল বলেন, সরকার রাস্তা করে জনগণের চলাচলের জন্য কিন্তু সেখানে বসেছে হাট। জনগণকে ভোগান্তির হাত থেকে রক্ষা করার জন্য প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ জানাই।

এ বিষয়ে হাটের ইজারাদার মো. শাহ্জাহানের মুঠোফোনের নম্বরে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও কোন সংযোগ পাওয়া যায়নি।

এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এএফএম এহতেশামুল হক বলেন, কাউন্সিলররা যেভাবে আমাদেরকে অবগত করেছে আমরা সে ভাবেই হাটের ইজারা দিয়েছি। কেউ যদি রাস্তা দখল করে হাট বসিয়ে জনগণের ভোগান্তি সৃষ্টি করে তার বিরুদ্ধে আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবো। আমি এখনই ওই ওয়ার্ডের কাউন্সিলরের সাথে কথা বলছি এবং সিটি কর্পোরেশনের লোক পাঠাচ্ছি দেখার জন্য।

তবে স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর শাহ্জালাল বাদল ইজারাদারের পক্ষ নিয়ে বলেন, আসলে সারাদেশে বন্যা থাকার কারণে অনেক মানুষ তাদের গরু নিয়ে এসেছে। এখন গরীব মানুষগুলোকে তো আর ফেরত পাঠানো যায় না। এদিকে এতো গরু ধারণ ক্ষমতা না থাকায় কাঁচা রাস্তার কিছু অংশে গরু রাখতে দেওয়া হয়েছে।

রাস্তা দখল করে হাট বসানো কতোটা যৌক্তিক এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আসলে আমি তো ঢাকাতে আছি। বর্তমানের অবস্থাটা জানি না। আমি খোঁজ নিয়ে সিটি কর্পোরেশনের সাথে আলাপ করে ব্যবস্থা নেবো।

সব খবর
নগরের বাইরে বিভাগের সর্বশেষ