শনিবার ২০ জুলাই, ২০১৯

রক্ষণাবেক্ষণ নেই, আছে নির্দেশনা: বিবি মরিয়মের সমাধি

সোমবার, ৩০ অক্টোবর ২০১৭, ২০:৩৩

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রাচ্যের ডান্ডি খ্যাত নারায়ণগঞ্জে রয়েছে অসংখ্য পুরাতন স্থাপনা তার মধ্যে বিবি মরিয়মের সমাধি সৌধটি শহরের কিল্লারপুলে অবস্থিত।

বিবি মরিয়মের সমাধিটি আনুমানিক ১৬৬৪-৮৮ সালের দিকে তৎকালীন মুঘল সম্রাট নিয়োজিত সুবেদার শায়েস্তা খাঁন কতৃক নির্মিত বলে ধারণা করা হয়। সমাধিতে শায়িত বিবি মরিয়মকে সুবেদার শায়েস্তা খাঁনের  কন্যা এবং ইরান দখত এর বোন তুরান দখত হিসেবে ঐতিহাসিকরা ধারণা করেন।


সমাধি সৌধটির পশ্চিম পাশে তিন গম্বুজ বিশিষ্ট মসজিদ রয়েছে । সমাধি সৌধটি সুউচ্চ প্রাচীর দিয়ে ঘেরা একটি আয়তাকার প্রাঙ্গণের মাঝখানে ভুমি থেকে উঁচু ভিতের মাঝে নির্মিত। বর্গাকার ইমারতটিতে একটি গম্বুজ পরিলক্ষিত হয়। এছাড়াও ভবনের চারদিকে খিলান ছাদ বিশিষ্ট বারান্দা ঘিরে রয়েছে। সমাধি সৌধটির কেন্দ্রস্থলে চতুষ্কোণ কক্ষে রয়েছে তিন ধাপ বিশিষ্ট সমাধি। সমাধিটি শ্বেত পাথরে নির্মিত ও লতা পাতার নকশা অঙ্কিত। এছাড়াও কবর ফলক ও সমাধি লাগোয়া বারান্দায় বেশ কয়েকটি সাধারণ কবরও রয়েছে।

কোন ব্যক্তি এই পুরাকীর্তির কোন রকম ধ্বংস বা অন্বিষ্ট সাধন করলে বা এর কোন বিকৃতি বা অঙ্গচ্ছেদ ঘটালে বা এর কোন অংশের উপর কিছু লিখলে বা খোদাই করলে বা কোন চিহ্ন বা দাগ কাটলে, ১৯৬৮ সালের পুরাকীর্তি সংরক্ষণ আইনের চতুর্দ্দশ ধারার অধীনে তিনি সর্বাধিক এক বৎসর পর্যন্ত জেল বা জরিমানা অথবা এই উভয় প্রকার দণ্ডে দণ্ডনীয় হবেন। বিবি মরিয়মের সমাধি সৌধটিতে বাংলাদেশ সরকারের যাদুঘর ও প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের বিজ্ঞপ্তি ছাড়া দায়িত্বপ্রাপ্ত কাউকে পাওয়া যায়নি।
অযত্নে-অবহেলায় হারিয়ে যেতে বসেছে সুবেদার শায়েস্তা খাঁন কর্তৃক নির্মিত বিবি মরিয়মের সমাধিটি। দেয়াল থেকে খসে পড়ছে ইট-সুরকি । রক্ষণাবেক্ষণ কিংবা সংস্কারের কোন উদ্যোগ নেই। পাশে বিবি মরিয়ম বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় এবং একটি মসজিদ আছে। প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তর-এর তালিকায় নারায়ণগঞ্জের ১৫টি  স্থাপনা তালিকাবদ্ধ রয়েছে। তার মধ্যে বিবি মরিয়মের সমাধি সৌধটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এই স্থাপনাটি রক্ষায় দরকার জাদুঘর ও প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের তদারকি এবং স্থানীয় উদ্যোগ; তবেই টিকে থাকবে সুবেদার শায়েস্তা খাঁন কর্তৃক নির্মিত বিবি মরিয়মের ঐতিহাসিক সমাধিটি।

সব খবর