বুধবার ১৭ অক্টোবর, ২০১৮

‘যিনি রাধেন তিনি চুলও বাঁধেন’

রবিবার, ১৭ জুন ২০১৮, ১৬:৪৩

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

আফসানা আক্তার (প্রেস নারায়ণগঞ্জ): ‘যিনি রাধেন তিনি চুলও বাঁধেন’ এমনই এক উক্তির জলজ্যান্ত প্রমান হচ্ছেন আফরোজা পারভীন। নগরীর অন্যতম জনপ্রিয় বিউটি পার্লার ‘প্রিয়াঙ্কা বিউটি পার্লার ও ট্রেনিং সেন্টার’ এর সত্ত্বাধিকারী তিনি। বাসা থেকে প্রথম শুরু করা বিউটি পার্লারের বিপরীতে নারায়ণগঞ্জ ও ঢাকাতে তার এখন তিনটি বিউটি পার্লার। আফরোজা পারভীন কেবল রাধেন না তিনি চুলও বাঁধেন তার প্রমান হচ্ছে তার বিউটি পার্লারের জনপ্রিয়তা ও তার সাফল্য নিয়ে।

আফরোজা পারভীন একজন নারী, একজন মা, একজন গৃহিণী। অসম্ভব বলে তার কাছে কিছু নেই। ইচ্ছা, একাগ্রতা, পরিশ্রম, সততা ও কাজের প্রতি আন্তরিকতা থাকলে সফলতা সম্ভব। এমনটাই বিশ্বাস করেন তিনি। বর্তমানে আফরোজা পারভীন নারায়ণঞ্জের খ্যাতনামা বিউটিশিয়ান, প্রিয়াঙ্কা বিউটি পার্লার ও ট্রেনিং সেন্টারের সত্ত্বাধিকারী। এবং নারায়ণগঞ্জে নারী উদ্যোক্তাদের জন্য একজন আদর্শ।

তিনি নারায়ণগঞ্জ বিউটিশিয়ানদের মধ্যে খুব পরিচিত একটি নাম। বিউটিশিয়ান হিসেবে রয়েছে একাধিক আন্তর্জাতিক সার্টিফিকেট। দিল্লির শেহেনাজ হোসেনের অধীনে প্রথম ট্রেনিং নিয়েছিলেন তিনি। এরপর দিল্লির জেকো স্কুল অফ বিউটি, লন্ডনের সেন্ট্রাল বিউটি স্কুল অফ লন্ডন, আমেরিকাতে সেন্ট্রাল বিউটি স্কুল থেকে ট্রেনিং নিয়েছেন। এছাড়া থাইল্যান্ড ও চীনে গিয়েও ট্রেনিং নিয়েছেন। আফরোজা পারভীন দু-এক বছর পরপরই ইন্ডিয়া যান নতুন নতুন অভিজ্ঞতার জন্য। আফরোজা পারভীনের মতে শেখার কোনো শেষ নেই। সময়ের সাথে স্টাইল, মেকাপের ধরণ, ত্বক, চুলের যতœ প্রতিনিয়ত পরিবর্তন হতে থাকে তাই তিনি ট্রেনিং এর মাধ্যমে নিজেকে আউ-টু-ডেট রাখেন।

ছোটবেলা থেকেই সাজগোজের প্রতি খুব আকর্ষন ছিল তার। প্রায়ই পাশের বাড়ির ছোটবোন, চাচী, ভাবীকে সাজিয়ে দিতেন, চুল বেঁধে দিতেন। তবে বিউটিশিয়ান হয়ে ওঠা কিন্তু সহজ পথ ছিল না তার কাছে। অনেক চড়াই উৎড়াই পার হয়ে এই অবস্থানে পৌছেছেন আফরোজা।

এইচএসসি পরীক্ষার পরই বিয়ে হয়ে গিয়েছিল তাঁর। পড়াশোনার পাশাপাশি সংসার সামলাতেন। শখের বসেই নিজের বাড়ির একটি রুমকে পার্লার হিসেবে সাজিয়ে নেন আফরোজা পারভীন।

আফরোজা পারভীন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পদার্থবিদ্যায় পড়াশুনা করেছেন। পড়াশোনা, স্বামী, ছেলেমেয়ে সাংসার এসব কিছু সামলেও পার্লার চালিয়েছেন। সে এখনো তাঁর বাড়ির সেই পার্লারটি পরিচালনা করছেন। তবে বেড়েছে তার পরিধি। বর্তমানে প্রিয়াঙ্কা পার্লারের রয়েছে নারায়ণগঞ্জের জামতলা, সাইনবোর্ড ও ঢাকাসহ ৩টি শাখা। পার্লার থেকে পরিবর্তিত হয়ে এখন তৈরি করেছেন পার্লার কাম ট্রেনিং সেন্টার। প্রতিবছর এখান থেকে শতাধিক বিউটিশিয়ান সার্টিফিকেট নিয়ে বের হয়। তার ট্রেনিং সেন্টারে বিডাব্লিওসিসি, এসইআইপি- এর আন্ডারে প্রতি তিন মাস পরপর ২৫ জনকে সরকারি ভাবে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। এছাড়া বেসিক প্রশিক্ষণ ও ডিপ্লোমা ডিগ্রী গ্রহণের ব্যবস্থা রয়েছে। শিক্ষার্থীদের জন্য রয়েছে ১৫ জন বিশিষ্ট আবাসিক হোস্টেলের সুব্যবস্থা।

প্রিয়াঙ্কা বিউটি পার্লার ও ট্রেনিং সেন্টারে কর্মরত রয়েছেন ৩০ জন কর্মচারী। তাদের সবার জন্য রয়েছে আবাসিক হোস্টেল এবং খাবারের সুব্যবস্থা। উল্লেখ্য যে, বাসস্থান এবং খাবার ব্যবস্থার জন্য কর্মীদের থেকে কোনো খরচ নেয়া হয় না। খাবার ও বাসস্থানের সম্পূর্ণ খরচ বহন করেন আফরোজা পারভীন নিজে।

আফরোজা পারভীন একজন দক্ষ, প্রতিভাবান বিউটিশিয়ানের পাশাপাশি একজন মহানুভব ব্যক্তি। অনেক গরিব মেয়েদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করেছেন তিনি এবং নিজ অর্থায়নে তাদের নিজস্ব পার্লার প্রতিষ্ঠা করিয়ে দিয়েছেন।

সব খবর
পজিটিভ নারায়ণগঞ্জ বিভাগের সর্বশেষ