সোমবার ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৮

মালিক পক্ষকে শামীম ওসমানের হুশিয়ারিতে শ্রমিকরা শান্ত

বৃহস্পতিবার, ৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৬:১৯

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ একেএম শামীম ওসমান এনআর গ্রুপের মালিকপক্ষকে হুশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, ‘আমি এই এলাকার এমপি। আমার নির্দেশ, গার্মেন্টস চালাইতে হইলে ক্রোনী, ফকির যেভাবে বেতন দেয় সেভাবেই দিতে হইবো।’

বৃহস্পতিবার (৬ ডিসেম্বর) বেলা ১২টায় ফতুল্লার বিসিকের এনআর গার্মেন্টেসের শ্রমিকদের বিক্ষোভ ও সংঘর্ষের ঘটনার পর ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে শ্রমিকদের সামনে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় মালিক সংগঠন বিকেএমইএ এর নেতা মো. হাতেম উপস্থিত ছিলেন।

শামীম ওসমান বলেন, ‘যারা আহত হয়েছে তাদের সমস্ত চিকিৎসার দায়িত্ব মালিকপক্ষকে নিতে হবে। কোন পরিবারের কোন ক্ষতি হয়ে থাকে তাহলে তোমাদের কিচ্ছু করতে হবে না। যা বোঝার আমি একলা বুঝবো, সে ক্ষমতা আমার আছে। আমি মালিকপক্ষকে নিয়ে বসবো। ক্রোনী, ফকির, অবন্তী যেভাবে বেতন দিবো, এনআর তার এক পয়সা কমও দিতে পারবে না।’

শ্রমিকদের উদ্দেশ্যে সংসদ সদস্য বলেন, ‘আগামী মাসের থেকে যদি সমান বেতন না দেয় তাহলে কাজ কইরা যাইবা খালি আমারে বলবা। আমি দেখবো কেমনে সমান বেতন না দেয়! আমি আসার পরেও যদি এই মিলের মালিক বেতন সমান না দেয় তাহলে এই মিলের মালিক রাখবো না, মিলও রাখবো না।’

তিনি আরও বলেন, ‘আপনারা তো এই গার্মেন্টেসে চাকরি করবেন নাকি করবেন না? প্রথম কথা হচ্ছে, এই গার্মেন্টেসে আমরা চাকরি করবো। দ্বিতীয় কথা, এই গার্মেন্টস আমারে রিজিক দেয় সুতরাং এই গার্মেন্টস জ্বালাইয়া তো আমার লাভ না। আর পুলিশ তো তোমাদের দুশমন না। পুলিশের কাজ হচ্ছে, সম্পদ ও মানুষকে রক্ষা করা। এখন একটা ঝামেলা হইছে, শ্রমিক মাইর খাইছে, পুলিশও আহত হইছে। আমার এলাকার মানুষ, শ্রমিক মাইর খাইছে, এখন মন চাইলে আমার উপর সেই স্বাদ মেটাও।’

শামীম ওসমানের এসব কথায় বিক্ষোভরত শ্রমিকরা নিভৃত হন। এ সময় তিনি আরও বলেন, ‘কিছু লোক আছে যারা মালিকের থেকে পরে ফায়দা আদায় করে। শ্রমিক নেতা গিরি কইরা শ্রমিকদের সামনে পাঠাইয়া দেয়। বলে, ভাঙ আমরা তো আছিই। ভাঙ্গার পরে নেতাগিরি দেখাইয়া দাবি পূরণের নামে নিজে টাকা কামায়। এইটা বুঝতে হবে সবার।’

এ সময় বিকেএমইএ এর নেতা মো. হাতেমকে উদ্দেশ্য করে সংসদ সদস্য বলেন, ‘আপনি মালিকপক্ষকে নিয়ে বসবেন। আর এই ব্যবস্থা করবেন।’ এরপর মো. হাতেম এই ব্যাপারে সম্মতি জানালে শ্রমিকরা শান্ত হন।

প্রসঙ্গত, ফতুল্লার শিল্পনগরী বিসিক এলাকা আবারও রণক্ষেত্রে রূপান্তরিত হয়েছে। বিসিকের এনআর গার্মেন্টেসের শ্রমিকরা উৎপাদন ভাতা বৃদ্ধির দাবিতে বিক্ষোভ করেছে। এ সময় ভাঙচুর, মারামারি, কেরোসিন দিয়ে আগুন জ্বালানোর ঘটনাও ঘটে। পুলিশ বাধাঁ দিতে চেষ্টা করলে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও পুলিশের সাথে সংঘর্ষে বুলি নামে এক নারী শ্রমিক নিহত ও পুলিশ সদস্যসহ অর্ধশতাধিক আহত হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৬ ডিসেম্বর) সকাল ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। আহতদের নগরীর ৩০০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতাল ও স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

সব খবর
নগরের বাইরে বিভাগের সর্বশেষ