শনিবার ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

মাইকের উচ্চশব্দে ভোগান্তিতে মহিলা কলেজের অনার্স পরীক্ষার্থীরা

শনিবার, ৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২১:৩৬

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমানের পূর্ব ঘোষনা অনুযায়ী চাষাঢ়ায় অনুষ্ঠিত হয়েছে জনসভা। জনসভা উপলক্ষে ছিল বিশেষ প্রস্তুতি। নগরীর বিভিন্ন স্থানে লাগানো হয় শতশত মাইক। দুপুরে জনসভা শুরু হবার পর থেকেই নগরীর সর্বত্র শুধু জনসভার শব্দ ও নেতৃবৃন্দদের বক্তব্যেই শোনা যাচ্ছিল। যা কাল হয়ে দাঁড়ায় অনার্স প্রথম বর্ষের শতশত শিক্ষার্থীর।

জনসভাকে কেন্দ্র করে নগরীতে লাগানো শতশত মাইকের মধ্যে তিনটি মাইক লাগানো হয় নারায়ণগঞ্জ সরকারি মহিলা কলেজের সামনে। এ কলেজে শনিবার (৭ সেপ্টেম্বর) দুপুর ১টায় শুরু হয় অনার্স প্রথম বর্ষের বোর্ড পরীক্ষা। যা বিকেল ৫টা পর্যন্ত চলমান ছিল। যেখানে পরীক্ষা দেয় নারায়ণগঞ্জ কলেজে ও সরকারি তোলারাম কলেজের কয়েকশ পরীক্ষার্থী। এদিকে দুপুর ২টা থেকে উচ্চ শব্দে শুরু হয় জনসভা। কলেজের সামনে এতগুলো মাইক থাকায় তার উচ্চশব্দ পরীক্ষার্থীদের মনোযোগের ব্যাঘাত ঘটায়।

বিকেল ৫র্টায় পরীক্ষা শেষে মহিলা কলেজের সামনে দাঁড়িয়ে কথা বলছিল নারায়ণগঞ্জ কলেজের একদল শিক্ষার্থী। এ সময় তাদের পরীক্ষা কেমন হয়েছে এমন প্রশ্নের উত্তরে পরীক্ষার্থী সামিহা বলেন, ‘পরীক্ষা একদম বাজে হয়েছে। এত শব্দের মধ্যে কিছু লেখা যায়! মাথা ব্যথা করছিল। মাথা ব্যথা আর শব্দের কারণে ঠিক মত মনোযোগই দিতে পারছিলাম না।’

আরেক পরীক্ষার্থী আহসান হাবিব বলেন, ‘জন প্রতিনিধিদের একটু ভাবা উচিৎ। শিক্ষার্থীরা পরীক্ষা দেবে আর তারা কলেজের সামনে একগাদা মাইক লাগিয়ে রেখেছেন। এভাবে আমাদের ক্ষতি করে কি লাভ হবে তাদের। সমাবেশে এই ৩টি মাইক কম ব্যবহার করলে বিশেষ কোনো ক্ষতি তাদের হত না কিন্তু আমাদের বড় ক্ষতি হয়ে গেল।’

নারায়ণগঞ্জ তোলারাম কলেজের বাংলা বিভাগের শিক্ষার্থী মাহিমা আক্তার বলেন, ‘সমাজকর্ম পরিচিতি পরীক্ষা ছিল আজ। শব্দের কারণে সব কিছুই ভুলে যাচ্ছিলাম। প্রচন্ড বিরক্ত লাগছিল। জনপ্রতিনিধিরা এমন করলে কাদের কাছে বিচার দেব, কাদের কাছে অভিযোগ জানাবো। এমনটা করার আগে তাদের একটু ভাবা উচিৎছিল।’

সব খবর
জনদুর্ভোগ বিভাগের সর্বশেষ