বুধবার ১৩ নভেম্বর, ২০১৯

মহিলা কলেজে সমাজকর্ম উৎসব ও ‘নিরাপদ বার্ধক্য’ শীর্ষক সেমিনার

শনিবার, ২ নভেম্বর ২০১৯, ২০:৩৪

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে নারায়ণগঞ্জ সরকারি মহিলা কলেজে সমাজকর্ম উৎসব ও ‘নিরাপদ বার্ধক্য’ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার (২ নভেম্বর) দুপুর নারায়ণগঞ্জ সরকারি মহিলা কলেজ সেমিনার কক্ষে এ উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ সময় ২০১৪-১৫ সালের কৃতি শিক্ষার্থী ও ২০১৫-১৬ সালের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়।

নারায়ণগঞ্জ সরকারি মহিলা কলেজের সমাজকর্ম বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ওয়াজেদ কামালের সভাপতিত্বে ও সহযোগী অধ্যাপক মাহফুজ রহমান সরকারের সঞ্চালনায় এ সময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কলেজের অধ্যক্ষ বেদৌরা বিনতে হাবীব ও বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপাধ্যক্ষ দাবিউর রহমান। মুখ্য আলোচনা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক অতিরিক্ত সচিব ড. মো. আবদুল হক তালুকদার। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন কলামিস্ট হাসান আলি, প্রফেসার খোরশেদা বেগম প্রমুখ।

অধ্যক্ষ বেদৌরা বিনতে হাবীব বলেন, ‘সরকার বার্ধক্যের জন্য আইন করেছে কিন্তু যন্ত্রণা, নির্যাতন সহ্য করেও কোনো পিতামাতা এ পর্যন্ত মামলা করেনি। আমি মনে করি, আইন দিয়ে এ সমস্যা সমাধান করা যাবে না। আমাদের নৈতিক বোধকে প্রখর করতে হবে। আমাদের ধর্মীয় দায়িত্ব, মূল্যবোধ অনুশাসন মানতে হবে।’

ড. মো. আবদুল হক তালুকদার বলেন, ‘আমাদের দেশে বার্ধক্যের সমস্যা কখনোই ছিল না। কিন্তু শিল্পায়ন, নগরায় ও ক্ষুদ্র পরিবারের কারণে অনিরাপদ বার্ধক্য সমস্যা তৈরি হয়েছে। বর্তমানে আমাদের গড় আয়ু বেড়েছে ৭২ বছর। পরিসংখ্যান অনুযায়ী আগামীতে প্রতি তরুণের জন্য ৩ জন প্রবীণের দায়িত্বভার থাকবে। এর সমাধান বৃদ্ধাশ্রম নয়। কেননা বৃদ্ধাশ্রমে কোনো নিরাপত্তা নেই। কাজেই আমাদের নিজেদের পরিবার ব্যবস্থার প্রতি জোড় দিতে হবে। আমরা যদি আমাদের দায়িত্ব পালন করি এবং প্রবীণদের নিরাপত্তায় জোড় দেই তাহলে আমাদের আর সেমিনার করতে হবে না।’

ওয়াজেদ কামাল বলেন, ‘আজকের উৎসব একটু ব্যতিক্রম। সেমিনার, কৃতি শিক্ষার্থী সংবর্ধনা ও উৎসব। প্রচলিত র‌্যাগ-ডে এর পরিবর্তে আমরা একটি শিক্ষামূলক আয়োজন করি। গত বছর অটিজমের বিরুদ্ধে একটি সেমিনার করা হয়েছিল। তারই ধারাবাহিকতায় আজ বার্ধক্য বিষয়ে সেমিনারের আয়োজন করা হয়। এটি আয়োজন মিলন মেলা, শিক্ষা, আনন্দ সব মিলিয়েই এই আয়োজন।’

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘সমাজকর্মে তোমরা শিখেছ সমাজকর্মের নীতি, সহানুভূতি, আত্মনিয়ন্ত্রণের অধিকার, সম্পর্ক প্রতিষ্ঠা, মানবিকতা বোধ। তোমাদের কাছে আমার অনুরোধ তোমরা সত্যবাদী হবে। সত্যবাদী না হতে পারলে মা হইয়ো না, সন্তানকে মিত্যাবাদী করো না। সত্যবাদী না হতে পারলে শিক্ষক হইয়ো না। একজন শিক্ষককে মিথ্যাকথা বলা উচিৎ নয়। তবে সে জাতিকেও মিথ্যাবাদী করবে। তোমরা মানববিক ব্যক্তিত্ব সম্পূর্ণ ব্যক্তি হও, কর্মজীবী হও।’

সব খবর
শিক্ষাঙ্গন বিভাগের সর্বশেষ