রবিবার ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

‘ভারতের চাল কিনে খাবো আর আমাদের কৃষক ফসলে আগুন দেবে’

রবিবার, ১৯ মে ২০১৯, ২১:৫০

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: সরকারি উদ্যোগে লাভজনক দামে ধান কিনো, কৃষক বাঁচাও-দেশ বাঁচাও এবং পাটকল শ্রমিকদের ৯ দফা বাস্তবায়নের দাবিতে নগরীতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে বাম গণতান্ত্রিক জোটের নেতৃবৃন্দ।

রবিবার (১৯ মে) বিকেল ৫টায় নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

বাম জোট ও বাসদ জেলা সমন্বয়ক নিখিল দাসের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন সিপিবির জেলা সভাপতি হাফিজুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক শিবনাথ চক্রবর্তী, বাসদ জেলা ফোরাম সদস্য আবু নাঈম খান বিপ্লব, সেলিম মাহমুদ, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির জেলা সভাপতি মাহমুদ হোসেন, সিপিবি’র সদস্য বিমলকান্তি দাস প্রমুখ।

নিখিল দাস বলেন, ‘আমরা বাজারে দেখছি ভারতীয় চাল বিক্রি হচ্ছে। সরকার ভারতীয় চালের এই আমদানি সরকার দেখেন না? আমরা ভারতের চাল কিনে খাবো আর কৃষক তাদের ফসলে আগুন দেবে। আমাদের খাদ্যমন্ত্রী তিনি নিজেই একজন চালের ব্যবসায়ী। সে কিভাবে কৃষকের হয়ে কথা বলবেন। সে তো স্বার্থলোভী ব্যবসায়ীদের জন্যই কাজ করবে।

তিনি আরো বলেন, ‘সরকারি পাটকলগুলো লাভ করে না কেন! কেননা পাটের মৌসুমে সরকার পাট কেনার জন্য বরাদ্দ দেয় না। ফলে কৃষক বাধ্য হয়ে হাজার বারোশ টাকায় তার ফসল ব্যবসায়ীদের হাতে তুলে দেয়। আর সরকার যখন পাট কেনার জন্য বরাদ্দ দেয় তখন কৃষকের কাছে কোনো পাট থাকে না। ফলে ব্যবসায়ীদের কাছে বেশি দামে পাট কিনতে হয়। যা পাটকলগুলোর লসের প্রধান করণ। আর এর পিছনে গভীর ষড়যন্ত্র আছে। পাটকলগুলো অলাভজনক প্রমাণ করে কিছু মানুষ তা বেসরকারি খাতে নিয়ে যেতে চায় যাতে নিজেরা লাভবান হতে পারে।’

হাফিজুল ইসলাম বলেন, ‘দেশের যা উন্নয়ন তা এই দেশের কৃষকদের কারণেই। বর্তমানে ১৭ কোটি মানুষ এ দেশে বসবাস করে। আর এই ১৭ কোটি মানুষের অন্নের ব্যবস্থা করে আমাদের এই কৃষক। তবু সরকার তাদের প্রতি সদয় হচ্ছে না। আমরা দাবি তুলে ছিলাম কৃষকের থেকে সরাসরি ধান কিনতে হবে। দাবির মুখে কিছু সংখ্যক কৃষকের ধান কিনলেও বাকি কৃষক এই সুযোগ পায়নি। ঋণের দায়ে তারা এখন ঘর ছাড়া।’

বিপ্লবী ওয়ার্কাস পার্টির সভাপতি মাহমুদ হোসেন বলেন, ‘ঋণের দায়ে ১২ হাজার কৃষকের নামে সার্টিফাই মামলা হয়েছে। আর ১ লাখ কৃষক আজ পলাতক। অপর দিকে যারা এই কৃষকদের শোষণ করে, ব্যাংক জালিয়াতি করে কোটিকোটি টাকা আত্মস্বাত করে তাদের সরকার মাফ করে দেয় কিন্তু কৃষকদের এই সামান্য পরিমাণ ঋণ সরকার মাফ করতে পারছেনা।’

সব খবর
নগর বিভাগের সর্বশেষ