মঙ্গলবার ০২ জুন, ২০২০

বিয়ের দুই মাসের মাথায় কিশোর গ্যাংয়ের হাতে প্রাণ গেলো শরীফের

বুধবার, ১ এপ্রিল ২০২০, ১৮:১৯

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: পাঁচ বছর সৌদি আরব থেকে দেশে এসে ইলেকট্রনিক্স ও ফার্নিচার সামগ্রীর দোকান দিয়েছিলেন শরীফ মাতবর। এক বছর পূর্বে কাবিন সম্পন্ন হলেও গত জানুয়ারিতে স্ত্রীকে বাড়িতে নিয়ে আসেন। স্ত্রী তাহমিনা আক্তার রুনা অন্তঃসত্ত্বা। সবকিছুই যখন গুছিয়ে উঠেছিলেন ঠিক তখনই ঘটলো এ ঘটনা। প্রকাশ্য দিবালোকে নিজ বাড়ির অদূরে কিশোর গ্যাংয়ের ছুরিকাঘাতে খুন হলেন যুবক শরীফ। কারণ পূর্ব শত্রুতা।

বুধবার (১ এপ্রিল) সকাল ১১টায় সদর উপজেলার দেওভোগ আদর্শনগর এলাকায় নিজ বাড়ির সামনেই কুপিয়ে হত্যা করা হয় শরীফ মাতবরকে। সে ওই এলাকায় আলাল মাতবরের ছেলে। বৃষ্টি ইলেকট্রনিক্স ও ফার্নিচার নামে একটি দোকান ছিল তার।

নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে শরীফের লাশের পাশে কাঁদছিলেন স্বজনরা। স্বজনদের আহাজারিতে ভারী হয়ে উঠেছিল হাসপাতালের পরিবেশ। আহাজারি করতে করতে শরীফের মা রহিমা বেগম বলছিলেন, মাস দুয়েক আগে পোলার বউ ঘরে আনলাম। আমার পোলায় তো এখন নাই। আমি এখন কি করমু? আমার পোলারে ক্যান মারলো ওরা?

শরীফের মামাতো বোন মিম জানান, এক বছর আগে কাবিন হয়েছিল শরীফের। জানুয়ারিতে স্ত্রীকে ঘরে তোলেন।

খালাতো ভাই মেহেদী হোসেন বলেন, ‘এলাকার শাকিল, লালন নামে কয়েকজনের সাথে শরীফ ভাইয়ের শত্রুতা ছিল। কয়েক মাস আগে এক ঝামেলায় চেয়ারম্যান-মেম্বাররা মিলে মিটমাট করে দিছে। তারপরও ওরা ঝামেলা করে। তিন-চারদিন আগেও তারা দোকানে আইসা ঝামেলা করছে।

স্বজনদের অভিযোগ, শাকিল, লালনসহ তাদের সহযোগীরা সন্ত্রাসী কর্মকান্ড করে বেড়ায়। কাশীপুর ৭ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার শামীমের ছত্রছায়ায় তারা এসব কাজ করে।

এ বিষয়ে ফতুল্লা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসলাম হোসেন বলেন, ‘এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। জড়িতদের গ্রেফতারের জন্য পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে।’

সব খবর
নগর বিভাগের সর্বশেষ