শুক্রবার ০৭ মে, ২০২১

বিভিন্ন দাবিতে আবির ফ্যাশন শ্রমিকদের বিক্ষোভ

সোমবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ২২:১৭

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: কর্মক্ষেত্রে নিরাপত্তাহীনতা ও কারখানা কর্তৃপক্ষের অসদাচরণের প্রতিবাদসহ বিভিন্ন দাবিতে বিক্ষোভ করেছে ফতুল্লার আবির ফ্যাশন লিমিটেড কারখানার শ্রমিকরা।

সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) সকালে ফতুল্লার কুতুব আইল এলাকায় অবস্থিত আবির ফ্যাশন লিমিটেড কারখানার পাশে একটি বালুর মাঠে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ ও সমাবেশ করে শ্রমিকরা।

এর আগে শ্রমিকরা কাজে যোগদানের পর সকাল ৯টায় সুইং শাখার অপারেটর রাকিব মেশিনের বিদ্যুৎ লাইনে শক খেয়ে গুরুতরভাবে আহত হয়। এতে শ্রমিকরা নিরাপত্তাহীনতার ভয়ে কারখানা থেকে বাহিরে চলে আসে। পরে শ্রমিকরা কর্মক্ষেত্রে নিরাপত্তাহীনতা ও কারখানা কর্তৃপক্ষের অসদাচরণের প্রতিবাদসহ বিভিন্ন দাবিতে বিক্ষোভ করে।

এসময় সংহতি জানিয়ে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের নারায়ণগঞ্জ জেলা কমিটির সভাপতি এম এ শাহীন, সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন, প্যারাডাইজ কেবল লি. শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি দেলোয়ার হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক ইউসুফ ও শ্রমিক নেতা আক্তার হোসেন কারখানার শ্রমিক নেতৃবৃন্দ।

এ সময় বক্তারা বলেন, আবীর ফ্যাশনের কর্তৃপক্ষের লোকেরা সব সময় শ্রমিকদের সাথে খারাপ আচরণ করে। কোন কথা বলতে গেলে চাকুরি থাকে না। মেশিনের বিদ্যুৎ লাইনে জোড়াতালি দিয়ে ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় কাজ করানো হচ্ছে। যার ফলে অপারেটর রাকিব আজ মেশিনের বিদ্যৎ লাইনে শর্ক খেয়ে গুরুতরভাবে আহত হয়েছে। নারী শ্রমিকদের মাতৃত্বকালীন ছুটির টাকা দেয়া হয় না, গত বছরের অর্জিত ছুটির টাকা জানুয়ারিতে দেয়ার কথা ছিলো এখনো দেয়নি। নাইট বিল কম দেয়া হয়, টার্গেটের নামে অতিরিক্ত কাজ করি নেয় বারতি কাজের জন্য কোন মজুরি দেয়া হয় না। কারখানার ভিতরে শ্রমিকদের মোবাইল ফোন নিতে দেয না। কর্তৃপক্ষের এসব আচরণের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে নেতৃবৃন্দ শ্রমিকদের ন্যায্য দাবিতে শান্তিপূর্ণ ভাবে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেয়।

পরে আন্দোলনের চাপে কর্তৃপক্ষ বেলা ৪ ঘটিকার সময় শ্রমিকদের সাথে আলোচনার বসার আহ্বান জানায়। আন্দোলনরত শ্রমিক নেতৃবৃন্দ কর্তৃপক্ষের আহ্বানে সাড়া দিয়ে আলোচনায় বসে। শ্রমিক নেতৃবৃন্দ ও শিল্প পুলিশের সদস্যরা মালিক কর্তৃপক্ষের সাথে ত্রিপক্ষীয় আলোচনা বৈঠক করে। এতে মালিক কর্তৃপক্ষ শ্রমিকদের সকল দাবি দাওয়া মেনে নেয়।

সব খবর
নগরের বাইরে বিভাগের সর্বশেষ