সোমবার ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৮

সাক্ষাৎকার

বিধি লঙ্ঘন করলে ব্যবস্থা: জেলা নির্বাচন অফিসার

বৃহস্পতিবার, ২২ নভেম্বর ২০১৮, ২০:৩০

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

নুসরাত জাহান সুপ্তি (প্রেস নারায়ণগঞ্জ): একাদশ জাতীয় নির্বাচন ঘিরে সারাদেশের মতো নারায়ণগঞ্জেও বয়ে চলছে নির্বাচনী আমেজ। নির্বাচনকে সুষ্ঠভাবে সম্পন্ন করার জন্য জেলা নির্বাচন কার্যালয়ে চলছে বিভিন্ন প্রস্তুতি। ৮ নভেম্বর তফসিল ঘোষনার পর থেকেই নারায়ণগঞ্জ জেলা নির্বাচন অফিস মনোনয়ন পত্র বিতরন শুরু করেছে। ২৮ নভেম্বর মনোনয়নপত্র সংগ্রহ ও জমার শেষ কার্য দিবস। নির্বাচনী প্রস্তুতিসহ নির্বাচন সংক্রান্ত নানা বিষয় নিয়ে জেলা নির্বাচন অফিসার ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার মো. আতাউর রহমান প্রেস নারায়ণগঞ্জ এর সাথে কথা বলেছেন । তার সাক্ষাৎকারের কিছু অংশ প্রেস নারায়ণগঞ্জের পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হল।

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: কেমন আছেন?

আতাউর রহমান: আলহামদুলিল্লাহ, ভালো আছি।

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: সামনেই একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। জেলা নির্বাচন কার্যালয় থেকে প্রার্থীরা মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করছেন। প্রক্রিয়াটা সম্পর্কে কিছু বলেন।

আতাউর রহমান: ৮ নভেম্বর থেকে মনোনয়ন পত্র বিতরণ শুরু হয়েছে। আগামী ২৮ নভেম্বর বিকাল ৫ টা পর্যন্ত বাংলাদেশের ভোটার তালিকায় অর্ন্তভুক্ত এমন ২৫ বছরের অধিক বয়সী ব্যক্তি আমাদের রিটার্নিং অফিসারের দপ্তর বা সহকারী রিটানিং অফিসারের দপ্তর থেকে মনোনায়ন পত্র সংগ্রহ করতে পারবে। এছাড়া আমাদের ওয়েব সাইট থেকেও অনলাইনে মনোনয়নপত্র ডাউনলোড করে পূরণের পর আমাদের রিটার্নিং অফিসারের কাছে কিংবা সহকারী রিটার্নিং অফিসারের কাছে জমা দিতে পারবেন।

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: আপনাদের প্রস্তুতি কেমন চলছে?

আতাউর রহমান: নারায়ণগঞ্জ জেলায় দেশের অন্যান্য জেলার মতো আমরাও নির্বাচনের সকল প্রস্তুতি নিচ্ছি। এছাড়া নির্বাচন কমিশন কর্তৃক একটি পত্রের মাধ্যমে রিটার্নিং অফিসার ও সহকারী রিটানিং অফিসারদের জানানো হয়েছিল গত ১৮ নভেম্বর মধ্যরাত ১২টার মধ্যে ব্যানার, বিলবোর্ড ও নির্বাচনী সংক্রান্ত প্রচারণা তুলে ফেলার জন্য। আমাদের নারায়ণগঞ্জ জেলায় প্রায় ৯৫% প্রচারনামূলক ব্যানার বা বিলবোর্ড উচ্ছেদ করে ফেলা হয়েছে। আমাদের কার্যক্রম প্রায় যথাযথ ভাবে চলমান ছিলো। নির্বাচন কমিশন থেকে বিলবোর্ড উঠানোর সময় বৃদ্ধি করা হয়েছে ২৬ নভেম্বর মধ্যরাত পর্যন্ত। এরপর যদি কারো বিলবোর্ড বা ব্যানার পাওয়া যায় তাহলে নির্বাচন কমিশনারের নির্দেশনা মোতাবেক রিটার্নিং অফিসার কর্তৃক ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ দেওয়া হয়েছে আচরণ বিধি দেখার জন্য। নির্বাচনকালীন সময়ে আচরনবিধি দেখার জন্য ৫টি আসনে মোট ১৩ জন ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করছে। তারা ৩দিন যাবৎ মাঠে কাজ করছেন। আচরন বিধি পর্যবেক্ষন করবেন। যেকোন বিধি লঙ্ঘন করলে তারা বিধি মোতাবেক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ জেলা নির্বাচন অফিস থেকে এ পর্যন্ত কতটি মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করা হয়েছে?

আতাউর রহমান: আমাদের কাছ থেকে নারায়ণগঞ্জের ৫টি আসন থেকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন মোট ৪৭টি। এক আসন থেকে ৯টি, দুই আসন থেকে ৮টি, তিন আসন থেকে ৬টি, চার আসন থেকে ১৩টি ও পাঁচ আসন থেকে ১১টি মনোনয়ন সংগ্রহ করা হয়েছে।

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জে আসন সংখ্যা ৫টি। প্রতিটি আসনে কেন্দ্রের সংখ্যা কত?

আতাউর রহমান: নারায়ণগঞ্জের ৫টি আসনে মোট ৭৪৫টি ভোটকেন্দ্র রয়েছে। এক আসনে ১২৭টি, দুই আসনে ১১৩টি, তিন আসনে ১১৮টি, চার আসনে ২১৬টি ও পাঁচ আসনে ১৭১টি।

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জে মোট ভোটার সংখ্যা কত এবং কোন আসনে ভোটার সংখ্যা কত?

আতাউর রহমান: নারায়ণগঞ্জে মোট ভোটার সংখ্যা ২০ লাখ ৩৪ হাজার ২৪৫ জন। এক আসনে ৩ লাখ ৪৯ হাজার ৭৯১ জন, দুই আসনে ২ লাখ ৮৩ হাজার ৮৬৭ জন, তিন আসনে ৩ লাখ ৩ হাজার ৮৭২ জন, চার আসনে ৬ লাখ ৫১ হাজার ৯৯জন, পাঁচ আসনে ৪ লাখ ৪৫ হাজার ৬১৬ জন।

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: একটি সুষ্ঠ নির্বাচনের প্রত্যাশা আপনাদের কাছেই আশা করে সাধারণ মানুষ। তাদের প্রত্যাশা পূরণে আপনারা কি ব্যবস্থা গ্রহন করছেন?

আতাউর রহমান: অবাধ ও সুষ্ঠ নির্বাচনের জন্য ভোটারা যেন ঠিকভাবে এবং নিরাপদে কেন্দ্রে গিয়ে ভোট প্রদান করতে পারে সেই জন্য রিটার্নিং অফিসারের নেতৃত্বে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: নির্বাচন সময়ের ভোট কেন্দ্রের পরিবেশ ও ভোটারদের নিরাপত্তার জন্য কি ব্যবস্থা গ্রহণ করছেন?

আতাউর রহমান: নির্বাচনে নিরাপত্তার জন্য নির্বাচন কমিশন যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। লোকাল পুলিশ, র‌্যাব, বিজিবি, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী থাকবে।

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: এটা কি আপনার প্রথম দায়িত্ব?

আতাউর রহমান: না, আমি ইতিপূর্বেও জাতীয় নির্বাচনে দায়িত্ব পালন করেছি।

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: নির্বাচন অফিসার হিসেবে কত বছর যাবৎ দায়িত্ব পালন করছেন?

আতাউর রহমান: ১৩ বছর যাবৎ নির্বাচন অফিসার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছি।

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জে কবে থেকে দায়িত্ব পালন করছেন?

আতাউর রহমান: ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারি মাস থেকে এখানে নির্বাচন অফিসার হিসেবে দায়িত্বে আছি।

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: দেশের আর কোন জেলায় নির্বাচনের দায়িত্ব পালন করেছেন?

আতাউর রহমান: চাঁদপুর, কুমিল্লা, গাজীপর, ঢাকা সিটি কর্পোরেশন ও সুনামগঞ্জে সহকারী রিটানিং অফিসার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছি। এছাড়াও চাকরির শুরু থেকেই নির্বাচনে কখনো প্রশিক্ষক কিংবা অফিসার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছি।

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: সময় দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ।

আতাউর রহমান: আপনাকেও ধন্যবাদ এবং আপনার মাধ্যমে সকল গণমাধ্যম ও সাধারণ মানুষের কাছে সুষ্ঠ নির্বাচনের জন্য সার্বিক সহযোগিতা প্রত্যাশা করব।

সব খবর
সাক্ষাৎকার বিভাগের সর্বশেষ