বুধবার ১১ ডিসেম্বর, ২০১৯

বাবুরাইলে ভবন ধসের ঘটনায় মামলা, আসামি ৫

মঙ্গলবার, ৫ নভেম্বর ২০১৯, ১৬:৪৬

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: নগরীর বাবুরাইলে চার তলা ভবন ধসের ঘটনায় ভেতরে চাপা পড়ে দুই শিশু নিহতের ঘটনায় ভবন মালিকপক্ষের ৫ জনকে আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

ওই ঘটনায় নিহত স্কুলছাত্র শোয়েবের মামা রনি বাদী হয়ে ফতুল্লা মডেল থানায় মামলাটি দায়ের করেন।

মামলার আসামিরা হলন- ভবনের মালিক জেবউননেছা, তার তিন ছেলে আজহারউদ্দিন, বাবু, সুমন ও মেয়ে শিউলী আক্তার। এদের মধ্যে জেবউননেছা মারা গেছেন। অন্যদিকে আজহারউদ্দিন ও বাবু মালয়েশিয়া প্রবাসী। বাকি আসামি সুমন ও শিউলী আক্তার পলাতক রয়েছেন বলে জানিয়েছে পুলিশ। তবে তাদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলে জানান ফতুল্লা থানার ওসি আসলাম হোসেন।

এদিকে ঘটনার ৪৬ ঘন্টা পর ভবনে চাপা পড়ে নিখোঁজ ওয়াজিদের (১২) লাশ উদ্ধার করেন দমকল বাহিনীর উদ্ধারকর্মীরা। মঙ্গলবার (৫ নভেম্বর) দুপুর ২টার দিকে লাশ উদ্ধার করা হয়। বাদ মাগরিব কাশীপুর কেন্দ্রীয় ইদগাহে জানাযা শেষে সংলগ্ন কবরস্থানে তাকে দাফন করা হবে বলে জানিয়েছেন স্বজনরা।

গত রোববার (৩ নভেম্বর) বিকেল সোয়া চারটায় ফতুল্লা থানাধীন বাবুরাইলের শেষ মাথায় মুন্সিবাড়ি এলাকার এইচএম ম্যানশন নামে চার তলা ভবনটি ধসে পড়ে। ঘটনার পরপরই উদ্ধারকৃত শোয়েব (১২) নামে এক স্কুলছাত্র নিহত হয়। এ ঘটনায় আরও ৩ জন আহত হয়।

বাবুরাইল এলাকার মৃত শাহাবউদ্দিনের ছেলে শোয়েব ও একই এলাকার বাসিন্দা মো. রুবেলের ছেলে ওয়াজিদ সম্পর্কে খালাতো ভাই। তারা দেওভোগের বেপাড়ীপাড়া এলাকার সানরাইজ মডেল স্কুলে ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র ছিল। ঘটনার দিন বিকেলে তারা ওই ভবনে আরবি পড়তে গিয়েছিল।

ফতুল্লা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসলাম হোসেন বলেন, ভবন ধসে হতাহতের ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। নিহত শোয়েবের মামা বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেছেন। দুর্বল নির্মাণশৈলী ও অপরিকল্পিতভাবে ভবনটি নির্মাণ করা হয়েছে যার ফলে ভবনটি ধসে পড়েছে এবং এই হতাহতের ঘটনা ঘটেছে এমন অভিযোগ এনে ভবনের মালিকপক্ষের ৫ জনকে আসামি করা হয়েছে। আসামিদের কাউকে এখনও গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। তবে তাদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

সব খবর
নগর বিভাগের সর্বশেষ