রবিবার ২১ জুলাই, ২০১৯

বঙ্গবন্ধু সড়কের দুই পাশে হকার বসতে এসপির নিষেধাজ্ঞা

শনিবার, ১৫ জুন ২০১৯, ১৬:০২

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: সাধারণ মানুষের চলাচলের সুবিধার্থে চাষাড়া থেকে সিটি কর্পোরেশন পর্যন্ত বঙ্গবন্ধু সড়কের দুই পাশের ফুটপাতে হকারদের বসতে নিষেধ করেছেন জেলা পুলিশ সুপার হারুন অর রশীদ। তিনি বলেন, ‘ঈদের পরে আমাদের মূল উদ্দেশ্য হলো, চাষাড়া থেকে সিটি করর্পোরেশন পর্যন্ত বঙ্গবন্ধু সড়কের উভয় পাশে যাতে হকার না বসে।’

শনিবার (১৫ জুন) বেলা সাড়ে ১২টায় চাষাড়ায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, ‘চাষাড়া থেকে ২নং ও ১নং রেলগেট জ্যামের কারণে রিকশায় সময় লাগে ২৫-৩০ মিনিট কিন্তু ফুটপাতগুলো ক্লিয়ার থাকলে হেঁটেই ৭-১০ মিনিটের মধ্যে চাষাড়া থেকে ২নং ও ১নং রেলগেট নির্দ্বিধায় যাওয়া যাচ্ছে। তাই আমরা বঙ্গবন্ধু সড়কের উভয় পাশের ফুটপাত ক্লিয়ার রাখতে চাচ্ছি যাতে সাধারণ জনগণের ভোগান্তির শিকার হতে না হয়। সাধারণ মানুষকে সেবা দেওয়ার উদ্দেশ্যেই আমরা কাজ করি।’

এসপি বলেন, ‘আর আমরা কখনোই হকারের বিরুদ্ধে না। গরীব মানুষের বিপক্ষে না। তাদেরকে আসলে একটি নির্দিষ্ট জায়গায় স্থানান্তর করা দরকার। ফুটপাত সাধারণ মানুষের চলাচলের জন্য। আমরা সাধারণ মানুষের যাতে ভোগান্তির শিকার হতে না হয় তার জন্য কাজ করি।’

তিনি বলেন, ‘ঈদের আগে আমাদের ২টি প্ল্যান ছিল। ঈদ পূর্ববর্তী ও ঈদ পরবর্তী। আমরা কথা দিয়েছিলাম সাইনবোর্ড-চাষাড়া যাতায়াতের সময় যাতে সাধারণ জনগণ ইফতারের সময়টায় যাতে ভোগান্তির শিকার না হয়। ঈদের পূর্ব মুহুর্তগুলোতে আমরা প্রতিটি ঈদগাহ পরিদর্শন করেছিলাম। ঈদের দিন আমরা সবগুলো ঈদগাহতেই পর্যাপ্ত পরিমাণে পুলিশ সোর্স দিয়ে নিরাপত্তার জন্য সব ধরনের ব্যবস্থা নিয়েছিলাম।’

হারুন অর রশীদ বলেন, ‘কনস্টেবল নিয়োগকে কেন্দ্র করে কোন ব্যক্তি বা চক্র অসাধুভাবে নিয়োগের প্রলোভন দেখিয়ে টাকা হাতিয়ে নেয়ার পরিকল্পনায় থাকে আমরা তাহলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবো। যার যোগ্যতা আছে সে তার মেধা ও যোগ্যতার জোরে নিয়োগ পাবে। নারায়ণগঞ্জে পুলিশের চাকরিতে কাউকে ১টি টাকাও দিতে হবে না। পরীক্ষা দিবেন বিনা পয়সায় চাকরি পাবেন।’

সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘কোন ভূমিদস্যু কাউকে হয়রানি করলে বা কেউ তাদের দ্বারা হয়রানির শিকার হলে আমাদের জানান আমরা ব্যবস্থা নেব। মাদক ব্যবসায়ীদের মধ্যে আমরা এখনও কোন রাঘব বোয়ালকে ধরতে পারি নাই।’

তিনি আরো বলেন, ‘কোন মাদক ব্যবসায়ীর ব্যাপারে তথ্য ও কোন জায়গার জুয়ার আসরের ব্যাপারে আপনাদের কাছে তথ্য থাকলে আমাদের জানাবেন আমরা তার ব্যবস্থা নেব। আমরা সুন্দর, পরিচ্ছন্ন, সাধারণ মানুষের নারায়ণগঞ্জ চাই। যদি কোন মাদক ব্যবসায়ী মাদক ব্যবসা ছেড়ে দিয়ে সঠিক পথে আসতে চায় তাহলে আমরা তাদের সাথে একত্রে বৈঠকে বসে এ ব্যাপারে তাদের সাথে আলোচনা করবো।’

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) আব্দুল্লাহ আল মামুন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) মোহাম্মদ নূরে আলম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিবি) সুবাস চন্দ্র সাহা, সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল ইসলাম, জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার কর্মকর্তা (ডিআইও-২) মো. সাজ্জাদ রোমন, সদর মডেল থানার পরিদর্শক (অপারেশন) জয়নাল আবেদীন, জেলা ট্রাফিক পুলিশের পরিদর্শক মো. শরফুদ্দিন প্রমুখ।

সব খবর
নগর বিভাগের সর্বশেষ