সোমবার ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৯

বক্তবলীতে সংঘর্ষে আহত ১০, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশের গুলি

সোমবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৯, ২২:৫০

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: ফতুল্লার বক্তাবলী এলাকায় প্রভাব বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় পরিস্থিত শান্ত করার জন্য ৭ রাউন্ড শর্টগানের গুলি ও একটি রাউন্ড টিআর শেল নিক্ষেপ করে পুলিশ। এ ঘটনায় ১০ জন আহত হয় ৮ জন আটকসহ বেশ কিছু টেঁটা উদ্ধার করেছে পুলিশ।

সোমবার (১৮ নভেম্বর) বিকেলের দিকে বক্তাবলীর আকবরনগর এলাকায় সামাদ আলী ও রহিম হাজী গ্রুপের মধ্যে এ ঘটনা ঘটে। তাৎক্ষণিকভাবে আহতদের নাম পরিচয় পাওয়া যায়নি। তাদের নারায়ণগঞ্জ ও মুন্সীগঞ্জের স্থানীয় হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, আকবরনগর এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে পৃথক দুটি বাহিনী তৈরি করে চাঁদাবাজি, মাদক ব্যবসা, ডাকাতিসহ বিভিন্ন অপরাধ কর্মকা- পরিচালনা করে আসছিলেন স্থানীয়ভাবে প্রভাবশালী সামাদ আলী ও রহিম হাজী। সোমবার সামাদ আলীর লোকজন রহিম হাজীকে মারধর করে। এ সময় রহিম হাজীর লোকজন খবর পেয়ে সামাদ আলীর বাড়ি ঘেরাও ও ভাঙচুরের চেষ্টা চালায়। এতে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে বেশ কয়েকজন আহত হন। পরে পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে উভয় পক্ষকে শান্ত করে। এ ঘটনায় সামাদ আলীর স্ত্রী নাছিমা বেগম ও রহিম হাজীসহ ৮ জনকে আটক করে পুলিশ।

এ বিষয়ে ফতুল্লা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসলাম হোসেন বলেন, ‘দীর্ঘ দিন ধরেই উভয় পক্ষের মধ্যে বিরোধ চলে আসছে। এর জের ধরেই আজ দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে ঘটনা ঘটে। দুই পক্ষেরই ভালো প্রস্তুতি ছিল। ফলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার জন্য আমাদের সাত রাউন্ড শর্টগানের গুলি ও একটি রাউন্ড টিআর শেল নিক্ষেপ করতে হয়। এ সময় আমরা বেশ কিছু মাছ ধরার টেঁটা উদ্ধার করি।’

তিনি আরো বলেন, ‘এ ঘটনায় ৮ জনকে আটক করা হয়েছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে।’

সব খবর
নগরের বাইরে বিভাগের সর্বশেষ