শুক্রবার ২৩ আগস্ট, ২০১৯

ফতুল্লায় যুবককে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় চান্দু গ্রেপ্তার

সোমবার, ২৯ জুলাই ২০১৯, ২১:৪৭

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: ফতুল্লা পশ্চিম দেওভোগ এলাকায় রিকশা গ্যারেজ ব্যবসায়ী শাকিলকে (৩০) কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় অন্যতম অভিযুক্ত চান্দুকে (৩০) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

সোমবার (২৯ জুলাই) দুপুরে ফতুল্লার পশ্চিম দেওভোগ এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে চান্দুকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃত চান্দু পশ্চিম দেওভোগের হাশেম নগর এলাকার বাসিন্দা। নিহত শাকিল ফতুল্লার পশ্চিম দেওভোগ পূর্বনগর এলাকার মৃত আমান উল্লাহর ছেলে।

ফতুল্লা মডেল থানার তদন্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হাসানুজ্জামান চান্দুকে গ্রেপ্তারের তথ্য নিশ্চিত করে তিনি বলেন, ‘পশ্চিম দেওভোগ এলাকায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে শাকিল নামের একজন রিকশা গ্যারেজ ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় মামলার ৩নং আসামীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তথ্য প্রযুক্তির সাহায্যে আমরা তার ফোন ট্রেক করি এবং তাকে গ্রেপ্তার করি। এ হত্যাকান্ডের পিছনের মূল রহস্য উদঘাটনে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।’

প্রসঙ্গত, শনিবার রাত ১১টার দিকে সজিব ও সুভাষ মোটর সাইকেল যোগে শহরের ২নং রেলগেইট এলাকা থেকে বাংলাবাজার বাসায় ফেরার পথে পশ্চিম দেওভোগ হাশেম নগর এলাকায় সন্ত্রাসী তুহিন, নিক্সন, চান্দু ও তাদের বন্ধুরা মুখোশ পড়ে সড়কে দাঁড়িয়ে ছিলো। ওই সময় মোটর সাইকেলের লাইটের আলো মুখোশধারী সন্ত্রাসীদের চোখে পড়ে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে মোটর সাইকেল আরোহীদের গতিরোধ করে তাদেরকে চর থাপ্পর দেয়। এর প্রতিবাদ করলে তাদের হাতে থাকা ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাথারী ভাবে কোপাতে থাকে আরোহীদের। তখন সজিব ও সুভাষের চিৎকার শুনে শাকিলসহ অন্যরা ছুটে আসে। তাদের মারার কারণ জিজ্ঞাসা করলে তাদেরকেও এলোপাথারী কোপাতে থাকে। এতে মুমূর্ষ অবস্থায় শাকিলকে প্রথমে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসাপাতালে পরে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে নেয়ার পর তার মৃত্যু হয়।

শাকিল হত্যায় তার ভাই সাঈদ বাদী হয়ে তুহিন, নিক্সন ও চান্দুর নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত ৮ জনের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

সব খবর
নগরের বাইরে বিভাগের সর্বশেষ