শনিবার ১৭ আগস্ট, ২০১৯

ফতুল্লায় মুখ বেঁধে ৭ বছরের শিশু ধর্ষণ, অভিযুক্ত পলাতক

বৃহস্পতিবার, ১৪ মার্চ ২০১৯, ২০:৪৯

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: ফতুল্লায় মুখ বেঁধে সাত বছরের এক শিশু ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত মো. সুমন (২০) পলাতক রয়েছেন।

বুধবার (১৩ মার্চ) দুপুরে ফতুল্লার তল্লা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ভুক্তভোগী শিশুটি নারায়ণগঞ্জ জেনারেল (ভিক্টোরিয়া) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে।

শিশুটির বড় খালা জানান, শিশুটি বাসার সামনের উঠানে খেলছিল এবং তার মা রান্নাঘরে কাজে ব্যস্ত ছিলেন। এ সময় ভাড়াটিয়া বাসার পাশের ঘরের সুমন মোবাইলে ভিডিও দেখানোর কথা বলে তার ঘরে নিয়ে যায়। পরে দরজা বন্ধ করে মেয়েটির মুখ বেঁধে ধর্ষণ করে। এদিকে সুমনের ঘরের দরজার সামনে মেয়ের জুতা দেখতে পেয়ে দরজা ধাক্কা দেন শিশুটির মা। কিন্তু দরজা না খুললে জানালা দিয়ে নিজের মেয়ের মুখ বেঁধে ধর্ষণ করতে দেখেন তিনি। শিশুটির মায়ের চিৎকারে আশেপাশের লোক জড়ো হলে কৌশলে অভিযুক্ত সুমন পালিয়ে যায়। এদিকে শিশুটিকে উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল (ভিক্টোরিয়া) হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। শিশুটি উক্ত হাসপাতালের গাইনী বিভাগে চিকিৎসারত আছে।

হাসাপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসকের সাথে কথা হলে তিনি জানান, সাধারণভাবে বয়স কম হওয়াতে খুব রক্তপাত হয়। তবে শিশুটি আপাতত সুস্থ আছে। কিন্তু বয়স অল্পো হওয়াতে মানসিকভাবে খুব বিপর্যস্ত সে।

এদিকে প্রাথমিকভাবে ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে উল্লেখ করে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল (ভিক্টোরিয়া) হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ডা. আসাদুজ্জামান প্রেস নারায়ণগঞ্জকে বলেন, প্রাথমিকভাবে শিশুটিকে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে আলামত পাওয়া গেছে। তবে বাকিটা রিপোর্ট জমা দেয়ার পর বলা যাবে।

এ ঘটনায় সুমনকে আসামি করে শিশুটির মা বাদী হয়ে ফতুল্লা থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন। তবে অভিযুক্ত সুমন পলাতক রয়েছেন।

মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ফতুল্লা মডেল থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) শুভ আহমেদ বলেন, ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত পলাতক রয়েছেন। তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

সব খবর
নগরের বাইরে বিভাগের সর্বশেষ