সোমবার ২২ জুলাই, ২০১৯

প্রশাসনকে দাঁত ভাঙ্গা জবাব দেওয়ার হুশিয়ারি হকারদের

বৃহস্পতিবার, ১১ জুলাই ২০১৯, ১৭:৩৬

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: পুনর্বাসন ছাড়া শহরের ফুটপাত থেকে হকারদের উচ্ছেদ করা হলে প্রশাসনকে দাঁত ভাঙ্গা জবাব দেওয়ার হুশিয়ারি দিয়েছেন হকার নেতারা। এসপির উদ্যোগে ফুটপাতের হকার উচ্ছেদের পর বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) সকালে চাষাড়ায় শহীদ মিনারে এক বিক্ষোভ সমাবেশে এ হুশিয়ারি দেন তারা।

সমাবেশ থেকে আগামী ঈদুল আযহাকে সামনে রেখে পুনর্বাসনের আগ পর্যন্ত বিকেল ৫টা হতে রাত ৯টা পর্যন্ত ফুটপাতে বসতে দেওয়ার দাবি জানান হকাররা। সমাবেশ শেষে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডে বিক্ষোভ মিছিল করেন তারা। পরে হকার নেতারা জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি প্রদান করেন।

জেলা হকার সংগ্রাম পরিষদের ব্যানারে অনুষ্ঠিত এই সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন জেলা কমিউনিস্ট পার্টির সভাপতি হাফিজুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক শীবনাথ চক্রবর্তী, সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্টের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম গোলক, শ্রমিক নেতা এমএ শাহীন, বিমল কান্তি দাস, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক আবু হাসান টিপু, জেলা ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সভাপতি আব্দুল হাই শরীফ, জেলা হকার্স লীগের সভাপতি আব্দুর রহিম মুন্সী, হকার সংগ্রাম পরিষদের আহ্বায়ক আসাদুল ইসলাম আসাদ, জেলা ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সাংগঠনিক সম্পাদক নুরুল ইসলাম, দীলিপ কুমার দাস প্রমুখ।

হাফিজুল ইসলাম বলেন, ‘দেশে সরকার আসার পরই প্রথন নজর পরে হকার ও দিনমজুর লোকেদের ওপর। সরকার বলেন আমরা হকারবান্ধব এবং দিন মজুর শ্রমিকবন্ধব সরকার। পুনর্বাসন ছাড়া হকারদের উচ্ছেদ করার কোন নিয়ম নেই। কিন্তু মাথা ব্যাথা হয়েছে তাই গলাসহ মাথা কাটার ব্যবস্থা প্রশাসন নিয়েছে।’

হকার নেতা আব্দুর রহিম মুন্সী বলেন, ‘আমাদের ছেলে মেয়েরা না খেয়ে দিন পার করছে দিনের পর দিন। এভাবে চলতে পারে না। আমাদের দাবি পুনর্বাসনের আগে আমরা যে যেখানে ব্যবসা করে ভালো আছি তাদের সেখানেই বসতে দেয়া হোক। এসপি সাহেবের উচ্ছেদের পর আমরা বেহাল দশায় পড়েছি। আমরা জনগণের বিপক্ষে না।’

আসাদুল ইসলাম আসাদ বলেন, ‘হকারি ছাড়া আমাদের পেটে ভাত জোটে না। আমাদের বৃদ্ধ মা আর সন্তানদের পেটে ভাত আসে না। জেলা প্রশাসক বলেছেন, আমাদের পুনর্বাসন করে দেবেন। কিন্তু পুনর্বাসন না করে এসপি হঠাৎ করে বার বার এসে আমাদের উচ্ছেদ করে দিয়ে যায়। এভাবে বাঁচা সম্ভব না। আমাদের বাঁচার মতো বাঁচতে দিতে হবে। আমরা বিকেল ৫টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত ফুটপাতে বসতে চাই। এটা আমাদের নৈতিক চাওয়া। আমরা চাই না রাজপথে সংগ্রাম করতে কিন্তু দাবি আদায় না হলে আমরা রাজপথ ছাড়বো না। আমরা দিন আনি দিন খাই। আমাদের কোন পিছু টান নাই। তারপরও যদি অত্যাচারের মাত্রা বাড়ে, অত্যাচার চলতেই থাকে তাহলে আমরাও দাঁত ভাঙ্গা জবাব দেবো।’

সব খবর
নগর বিভাগের সর্বশেষ