সোমবার ১৪ অক্টোবর, ২০১৯

প্রয়াত রণজিৎ কুমারকে নিয়ে কাউন্সিলর খোরশেদের স্মৃতিচারণ

বৃহস্পতিবার, ৩ জানুয়ারি ২০১৯, ১৬:৪১

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ: সালটা ঠিক মনে করতে পারছি। তবে অনুষ্ঠানটি গেঁথে আছে মনের গহীনে। শ্রুতির প্রথম বা দ্বিতীয় প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ছিল আলী আহম্মদ চুনকা পাঠাগারে। উপস্থিত ছিলেন কিংবদন্তি এস এম সুলতান। আমি সেখানে গিয়েছিলাম সাপ্তাহিক গণডাকের রিপোর্টার হিসাবে। আমি এসএম সুলতানের ও তার পালিত কন্যার একটা দীর্ঘ ইন্টারভিউ করেছিলাম। সাড়া জাগানো অনুষ্ঠানটি এত আকষর্ণীয় ছিল যে, বিশেষ করে শিশুদের পরিবেশনা। আমি মন্ত্র মুগ্ধ হয়ে গিয়েছিলাম। এই মুগ্ধতা থেকেই শ্রুতির নেপথ্য কারিগর কে খুজে বের করেছিলাম। তিনি আর কেউ নন আজকের প্রয়াত রণজিৎ দা।

ধাবমান যখন লিটল ম্যাগ প্রকাশ শুরু করে তখনও দেখেছি দাদার স্বকীয়তা। মাঝে চেষ্টা করেছিলেন নিতাইগন্জে একটা গরীবের স্কুল করার, সেটা মনে হয় সম্ভব হয়নি আমলাতান্ত্রিক জটিলতায়। বিভিন্ন সময়ে রাস্তায় দেখা হয়েছে, কথা হয়েছে, যথেস্ট ভালবাসা পেয়েছি তার কাছে। জেনেছি সমাজটাকে সবার জন্য সার্বজনীন করার স্বপ্নে বিভোর দাদা মেডিকেলে সুযোগ পেয়েও হাত ছাড়া করেছিলেন শুধু মানুষকে নতুন দিনের স্বপ্ন দেখাবেন বলে।আপাদমস্তক একজন বিপ্লবীর প্রতিকৃত ছিলেন তিনি।

রণজিৎ দা, যেখানেই থাকুন ভাল থাকবেন। আমাদের অন্ধকার চলার পথ সূর্য হয়ে আলোকিত করবেন।


লেখক পরিচিতি:
১৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর, নাসিক
সভাপতি - না.গন্জ মহানগর যুবদল

সব খবর
মতামত বিভাগের সর্বশেষ