মঙ্গলবার ২০ আগস্ট, ২০১৯

পেশাগত দায়িত্ব তো পালন করতেই হবে: আফজাল হোসেন পন্টি

মঙ্গলবার, ৪ জুন ২০১৯, ১৯:২৭

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: ঈদ উল ফিতর মুসলিম ধর্মালম্বিদের সবচেয়ে বড় উৎসব। শ্রেণী পেশা নির্বিশেষে এই আনন্দ সবার। সকলেই এইদিনটি পরিবারের সঙ্গে একত্রে কাটাতে চাইলেও অনেকেরই তা সম্ভব হয়ে উঠে না। অনেকেরই আনন্দের এই দিনটাতে পালন করতে হয় পেশাগত দায়িত্ব। ঈদে সকলের ছুটি থাকলেও ছুটি নেই পোশাজীবী সাংবাদিকদের। ঈদ আনন্দের এই দিনটাতেও অনেককেই ছুটতে হয় পেশাগত দায়িত্ব পালনে।

প্রেস নারায়ণগঞ্জের সঙ্গে ঈদ আনন্দ ভাগাভাগির সময় এমনই একটি অভিজ্ঞতার কথা জানালেন জেলা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আফজাল হোসেন পন্টি। তিনি বলেন, ‘২০০৭ সালে আমি যখন বাংলাভিশনে কাজ নেই। সে বছর আমাকে অফিস থেকে বলা হয় ঈদ জামাতের নিউজ করে পাঠানোর জন্য। তখন তথ্য প্রযুক্তি এত উন্নতি হয়নি। তাই নিউজ ও ভিডিও ক্যাসেট হাতে হাতে পৌছাতে হত ঢাকা অফিসে। নতুন চাকরী, ফলে মন খারাপ করেই সে বছর আমাকে মহল্লার বাইরে কেন্দ্রীয় ঈদগাহে যেতে হয় এবং নিউজ কালেক্ট করতে হয়। পেশাগত দায়িত্ব তো পালন করতেই হবে। নিউজ কালেকশনের পর হাতে সময় ছিলনা নামাজের। ভাগ্যক্রমে পাশের একটি মসজিদে জামাত দেরিতে শুরু হওয়ায় আমি নামাজ আদায় করতে পেরেছিলাম। তবে সে সময় খুব খারাপ লেগেছে যে, আমি সবার সঙ্গে নামাজ পড়তে পারলাম না। তবে তার পাশাপাশি কাজ শেষ করে ঢাকায় পাঠানোর একটি প্রাপ্তিও ছিল।’

তিনি বলেন, ‘২০০৭ সালের সেই বছরটিতেই প্রথম আমি আমার মহল্লার বাইরে ঈদ জামাত পড়ি। এর আগে কখনো ঈদ জামাত একা একা, অন্য কোথাও পড়তে হয়নি।’

তিনি আরোও বলেন, ‘ঈদের দিনটা পরিবার, আত্মীয় স্বজনদের সঙ্গেই কাটাতে সবচেয়ে বেশি পছন্দ করি। আর বড় জামাতের তুলনায় এলাকার ঈদ জামাতই সবচেয়ে পছন্দের। কেননা ঈদের দিন মহল্লার জামাতে সবার সঙ্গে দেখায় হয় এবং শুভেচ্ছে বিনিময় হয়। যা আমাকে আনন্দ দেয়। যা অন্য কোথাও গেলে আমি পাই না।’

সব খবর
ধর্ম ও নৈতিকতা বিভাগের সর্বশেষ