শনিবার ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

পাইকপাড়ার হৃদয় হত্যা মামলায় প্রেমিকার বাবা-মাসহ গ্রেফতার ৬

বৃহস্পতিবার, ৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৬:২৬

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

নিহত রফিকুল ইসলাম হৃদয়

নিহত রফিকুল ইসলাম হৃদয়

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: নগরীর পাইকপাড়া এলাকার যুবক রফিকুল ইসলাম হৃদয় (২৮) হত্যা মামলায় সন্দেহভাজন হিসেবে প্রেমিকার বাবা-মাসহ ৬ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরে আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করে আদালতে পাঠিয়েছে সদর থানা পুলিশ। এর আগে বুধবার রাতে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন নগরীর পাইকপাড়ার শাহ্ সুজা রোডের নয়াপাড়া এলাকার মৃত কাজী শামসুদ্দোহার ছেলে মো. নুরুল ইসলাম (৫২) (নিহতের প্রেমিকার পিতা) , মো. রিপন (৪৫), মো. ইব্রাহীম (৪০), স্বপন মিয়ার ছেলে আরফিন (২৭) (নিহত হৃদয়ের বন্ধু), নুরুল ইসলামের স্ত্রী সালমা (৪৫) (প্রেমিকার মা), মো. কামাল (৩০)।

এই মামলার আরো দুই আসামি হলেন ফতুল্লার নরসিংপুর এলাকার দুদু মিয়ার ছেলে মেহেদী হাসান (২৪), আলামিন (২৭)।

গত ৪ আগস্ট সদর উপজেলার ডিক্রিরচর গুদারাঘাট এলাকায় ধলেশ্বরী নদী থেকে ওই যুবকের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। তবে নিহতের পরিবারের দাবি, হৃদয়ের প্রেমিকার পরিবারের লোকজন তাকে হত্যা করে নদীতে ফেলে দিয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের মা জহুরা লাভলী বাদী হয়ে ৮ জনের নাম উল্লেখ করে সদর মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

নিহত রফিকুল ইসলাম হৃদয় নগরীর ১৭ নম্বর ওয়ার্ডের পাইকপাড়া এলাকার নয়াপাড়া এলাকার বাসিন্দা শাহনেওয়াজ সেন্টুর ছেলে।

মামলা ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, একই এলাকার সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী নেহাকে পছন্দ করতো হৃদয়। তাকে বিয়ের করার ইচ্ছা বাড়িতে জানালে অসম্মতি জানায় পরিবার। অন্যদিকে হৃদয়ের পরিবারকে বিষয়টি জানিয়ে তাদের ছেলেকে সামলিয়ে রাখার জন্য বলে নেহার পরিবার। পরে ৩ আগস্ট বাড়ি থেকে বেরিয়ে আর বাড়ি ফেরেনি হৃদয়। পরদিন সকালে ধলেশ্বরী নদী থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

এ বিষয়ে সদর মডেল থানা পুলিশের পরিদর্শক (তদন্ত) গোলাম মোস্তফা বলেন, হৃদয় হত্যা মামলার এজাহার নামীয় ৬ আসামিকে সন্দেহভাজন হিসেবে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

আরও পড়ুন: নদীতে মিললো যুবকের লাশ, পরিবারের দাবি হত্যা

সব খবর
নগর বিভাগের সর্বশেষ