বুধবার ২১ এপ্রিল, ২০২১

পর্দার অন্তরালে কে?

শনিবার, ৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৯:৫৬

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: জিউস পুকুরের দলিল দাবি করে তা উচিয়ে ধরে নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. খোকন সাহা বলেছেন, ‘আমি বলে দিবো এই দলিলের মাস্টারমাইন্ড কে? পর্দার অন্তরালে কে? মুখ খোলার চেষ্টা করবেন না। আর একদিন বলবো কারণ আমার দলের বদনাম হবে।’

শনিবার (৬ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে নগরীর দেওভোগ এলাকার ঐতিহাসিক জিউস পুকুর সংলগ্ন অনুষ্ঠিত গণসমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন। দেবোত্তর সম্পত্তি দখলের অভিযোগে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে ‘নারায়ণগঞ্জ জেলা হিন্দু সম্প্রদায়’ এর ব্যানারে এই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

খোকন সাহা বলেন, ‘১৯৭২ থেকে ৭৫ পর্যন্ত কিছু লোকের জন্য জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর বদনাম হয়েছিল। নারায়ণগঞ্জ তার ব্যতিক্রম নয়। এখনও সময় আছে দেবোত্তর সম্পত্তি ও ওয়াক্ফ স্টেটের সম্পত্তি ছেড়ে দেন। বাদলরে চানপুর, চন্দনরে বরিশাল আর কাজলরে রূপগঞ্জ পাঠায়ে দেয়। বেশি চুলকাইয়েন না। অন্যথায় কত তারিখে ও কার বাড়ি নামমাত্র মূল্য দিয়ে ও কোন কোন জায়গা দখল করেছেন তা সব বলে দিবো।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি বলেছি দরকার হলে আমার নামে আপনি তথ্যপ্রযুক্তি আইনে আরও একটি মামলা করেন। আপনার ভুয়া মামলায় আমি জেলে যেতে রাজি, তবু জামিন নিবো না। বিএনপির দুঃশাসন আমলে ও এরশাদ আমলে সর্বমোট মামলা খেয়েছি ৪০টি। এই ৪০টি মামলায় আমি বেকসুর খালাস পেয়েছি। শুধু একটি মামলায় রিমান্ডে গিয়েছিলাম। আমার ভাতিজি (মেয়র আইভী) মনে করেছে, মামলা দিলে খোকন কাকা এখান থেকে পালিয়ে যাবে।’

খোকন সাহা বলেন, ‘মেয়র বলেছে, মামলা দিলে খোকন সাহা ইন্ডিয়া পালিয়ে যাবে। আরে পালাবেন তো আপনারা। যদি আমি খোকন সাহা মামলা দেই তাহলে আপনি থাকতে পারবেন না। তবে আপনি ভুল করেছেন বলে আমি ভুল করতে রাজি না। কারণ রাজনীতিতে অভিজ্ঞতা বলতে একটা বিষয় আছে। আপনি কয়দিন ধরে আওয়ামী লীগ করেন বা করে আসছেন? ২০০৩ সালের নির্বাচনে কীভাবে নমিনেশন পেয়েছেন সেটা যারা নমিনেশন দিয়েছে তারাই বলবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘১৯৭৯ সালের ২২ আগস্ট জিউস পুকুরের সম্পত্তি বিক্রি হয়েছে ৬০ হাজার টাকায়। সব দলিল আছে। মেয়র যদি এই দেবোত্তর সম্পত্তি ছেড়ে দেয় তাহলে আমি এই জিউস পুকুরে গলায় কলসি বেঁধে ডুবে মরবো। ডিআইটি মসজিদের ইমাম বললেন, বাগে জান্নাত মসজিদ যা ৫০০ বছরের পুরনো মসজিদ। সেখানে তিনি মসজিদ ভেঙে পার্ক করবেন। আজকে যারা ওয়াক্ফ সম্পত্তির জন্য লড়ছেন আমি তাদেরকে আশ্বস্ত করতে চাই আপনাদের পাশে এদেশের হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান সবাই আছে।’

সিটি মেয়র আইভীকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, ‘পোস্টার দেখলাম কালী মাকে প্রণাম করছেন। মায়ের দোহাই দিয়ে ভোট নিবেন আর দেবোত্তর সম্পত্তি খাবেন এটা কিন্তু হবে না। এই জিউস পুকুরের সম্পত্তির জন্য আমি প্রাণ দিতে প্রস্তুত। মুসলমানের ভাইয়ের মসজিদের সম্পত্তি খাবেন আর বিশাল বিল্ডিং করবেন, সেটারও প্রতিবাদ করবো। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কোনো দখলদারিত্ব বা ভূমিদস্যুদের দায়িত্ব নেবেন না। তাই আমরা তার কর্মী হিসেবে তা নিতে পারি না।’

আসন্ন সিটি নির্বাচনে খোকন সাহা মেয়র প্রার্থী হবেন কিনা এমন গুঞ্জন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘অনেকে বলেন, খোকন সাহা মেয়র নির্বাচন করবেন। ২৫ বছর ধরে আমি এই শহরের আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। চাওয়া-পাওয়ার অনেক কিছুই হয়েছে। দেবোত্তর সম্পত্তি ও ওয়াক্ফ স্টেটের সম্পত্তি ছেড়ে জনগণের কাছে মাফ চান। নেত্রীর হাতে পায়ে ধরে নমিনেশন আনে। আমরা নেত্রীর গোলাম হিসেবে আপনাকে পাশ করিয়ে দিবো।’

জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি দীপক কুমার সাহার সভাপতিত্বে গণসমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের কেন্দ্রীয় সভাপতি ড. নিমচন্দ্র ভৌমিক। প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন পূজা উদযাপন পরিষদের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক নির্মল চ্যাটার্জি। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. আবু হাসনাত মো. শহীদ বাদল, মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি চন্দন শীল, যুগ্ম সম্পাদক শাহ্ নিজাম, সাংগঠনিক সম্পাদক জাকিরুল আলম হেলাল, নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি খালেদ হায়দার খান কাজল, মহানগর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাৎ হোসেন ভূইয়া সাজনু, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মীর সোহেল আলী, সিটি কর্পোরেশনের ১৪ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর শফিউদ্দিন প্রধান, ১৬ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর নাজমুল আলম সজল, ১৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল করিম বাবু, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মো. জুয়েল হোসেন, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি মোহসীন মিয়া, মহানগর পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি অরুন দাস, সাধারণ সম্পাদক উত্তম সাহা, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি সাফায়েত আলম সানি, বর্তমান সভাপতি আজিজুর রহমান আজিজ, সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসমাঈল রাফেল প্রধান প্রমুখ। সঞ্চালনা করেন জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শিখন সরকার শিপন।

সব খবর
রাজনীতি বিভাগের সর্বশেষ