শনিবার ২৪ আগস্ট, ২০১৯

নির্বাচন থেকে সরে আসতে বাধ্য হয়েছি: মুকুল

সোমবার, ২০ মে ২০১৯, ১৭:৩০

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: বন্দর উপজেলার বর্তমান চেয়ারম্যান ও বিএনপি নেতা আতাউর রহমান মুকুল আসন্ন বন্দর উপজেলা নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। বিএনপির উপজেলা নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করার ঘোষণার সঙ্গে একাত্মতা পোষণ করেই এ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবেন না বলে জানান তিনি।

তিনি বলেন, ‘বর্তমানে সুষ্ঠ নির্বাচনের কোন পরিবেশ নেই। এই সরকারের অধীনে নির্বাচন মানেই প্রহসন।’

সোমবার (২০ মে) বিকেলে প্রেস নারায়ণগঞ্জের সাথে আলাপকালে মহানগর বিএনপির সহ সভাপতি আতাউর রহমান মুকুল এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘প্রথম থেকে আমি নির্বাচনে অংশগ্রহণের কথা বললেও আমি উপলব্ধি করলাম, বর্তমানে সুষ্ঠ নির্বাচনের কোনো পরিবেশ নেই। আর কেন্দ্র থেকে এ নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করার নির্দেশনাও রয়েছে। আমি কেন্দ্রীয় নির্দেশনা অনুযায়ী আগামী বন্দর উপজেলা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবো না।’

বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান আরো বলেন, ‘বন্দরে আমার অনেক সমর্থক রয়েছে। তারা প্রথম থেকেই আমাকে উৎসাহ দিয়ে যাচ্ছে। আমার নির্বাচনে অংশগ্রহন না করার সিদ্ধান্তে তাদের অনেক মন খারাপ হয়েছে। তবে বর্তমান প্রেক্ষাপট নির্বাচনযোগ্য না হওয়ায় আমি নির্বাচন থেকে সরে আসতে বাধ্য হয়েছি।’

টানা দুইবার আওয়ামী লীগ রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় থাকলেও বন্দর উপজেলা নির্বাচনে দুইবারই চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন মহানগর বিএনপির সহ সভাপতি আতাউর রহমান মুকুল। সর্বশেষ গত ২০১৪ সালে বন্দর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিএনপি-সমর্থিত প্রার্থী আতাউর রহমান মুকুল ১৯ হাজার ৫৪৩ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। ওই নির্বাচনে তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দি স্বতন্ত্র প্রার্থী দেলোয়ার হোসেন প্রধান পেয়েছিলেন ১১ হাজার ১৩২ ভোট। ১০ হাজার ৮৮১ ভোট পেয়ে তৃতীয় হন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী এমএ সালাম। অন্যদিকে থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি এম এ রশিদ ৯ হাজার ৭৬১ ভোট পেয়ে চতুর্থ হন। এর আগের নির্বাচনেও বিপুল ভোটের ব্যবধানে নির্বাচিত হয়েছিলেন আতাউর রহমান মুকুল।

সব খবর
রাজনীতি বিভাগের সর্বশেষ