বুধবার ১১ ডিসেম্বর, ২০১৯

না.গঞ্জে হরতালের হুশিয়ারি ওলামা পরিষদের

মঙ্গলবার, ৬ আগস্ট ২০১৯, ২১:৩৭

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: ফতুল্লার কায়েমপুর মসজিদের ইমামের উপর হামলার অভিযোগ করে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে জেলা ওলামা পরিষদ। হামলাকারীদের চব্বিশ ঘন্টার মধ্যে গ্রেফতার করা হলে হরতালের মতো কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করারও হুশিয়ারি দেন তারা।

মঙ্গলবার (৬ আগস্ট) বিকেল ৫টায় নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সামনে এই বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

এ সময় মাদানী নগর মাদ্রাসার মুহাদ্দিস আল্লামা বশিরউল্লাহর সভাপতিত্বে আরো উপস্থিত ছিলেন, প্রধান অতিথি ওলামা পরিষদের সহ-সভাপতি আবু তাহের জিহাদী, জেলা ওলামা পরিষদের নেতা আবু সায়েম খালেদ, মাওলানা ফেরদৌসুর রহমান, মুফতি হারুনুর রশীদ, সানাউল্লাহ, কামরুল ইসলাম জাহের, দেলোয়ার হোসেন প্রমুখ।

বিক্ষোভে বক্তারা বলেন, মাওলানা সাদ কুরআনের বিরুদ্ধে কথা বলে। নবীজির ভুল ধরে। তিনি বলেছেন, নবীরা নাকি সুন্নত ভঙ্গ করেছে। অথচ নবীরা যা করেছে তাই যে সুন্নত তা কি সে জানে না। সাদ নিজের মন গড়া কাহিনী বলে। তাদের অনুসারীরা ও তার সাথে পথভ্রষ্ট হয়ে আছে। তাবলীগের কাজে কেউ বিতর্কিত করতে পারে নাই। তাই ইহুদিরা সাদকে নির্বাচিত করে। সাদ বিপথগামী এবং তার অনুসারীরাও বিপথগামী।

তারা আরো বলেন, যে ইমামের উপর হাত তুলেছে সে মুক্তভাবে ঘুরে বেড়াচ্ছে। আমরা এর বিচারের দাবি জানাই। আর যদি একটি মসজিদের ইমামের উপর হাত তোলা হয়। তাহলে আমরা ঘরে বসে থাকবো না। দরকার হলে আমরা হরতালের মতো কঠোর কর্র্মসূচি ঘোষণা করবো। আমাদের পরবর্তী কর্মসূচি আলোচনার মধ্যমে দেওয়া হবে। আমরা মসজিদের গেটে টানিয়ে দিয়েছি, এবতেদায়ীদের প্রবেশ নিষেধ। প্রয়োজনে আমরা সারা নারায়ণগঞ্জে এবতেদায়ীদের প্রবেশ নিষেধ করবো। যারা ইমামের উপর আঘাত করে, যারা ইজতেমার ময়দানে যারা মুমিন ভাইদের উপর হামলা চালায়, হত্যা করে তারা কোনভাবে ইসলাম ধর্মাবলম্বী হতে পারে না। প্রশাসনের কাছে প্রশ্ন রাখতে চাই, যে ইমামকে আঘাত করতে পারে সে কীভাবে মুক্ত ভাবে ঘুরে বেড়াচ্ছে। ২৪ ঘন্টার মধ্যে তাকে গ্রেফতার করা না হলে আমরা ২৪ ঘন্টা পর কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করবো।

সব খবর
রাজনীতি বিভাগের সর্বশেষ