মঙ্গলবার ১০ ডিসেম্বর, ২০১৯

নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে এগিয়ে মাহমুদা

সোমবার, ১৭ জুন ২০১৯, ২১:১৬

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: সমঝোতার মাধ্যমে জাপা নেতা সানাউল্লাহ সানুকে ছাড় দিয়ে বন্দর উপজেলা নির্বাচন থেকে বাকি ভাইস চেয়ারম্যান পদ প্রার্থীরা সরে দাড়ালেও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীরা কোন সমঝোতায় যাননি। কেউ কাউকে ছাড় দিতে প্রস্তুত নন। তিন প্রার্থীই চালিয়েছেন জোর প্রচারণা। আগামীকাল মঙ্গলবার (১৮ জুন) ভোটগ্রহণ শেষে ফলাফলের অপেক্ষায় রয়েছেন তারা।

বন্দরে চেয়ারম্যান পদে কোন প্রতিদ্বন্দি প্রার্থী না থাকাতে বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী এমএ রশীদ। সমঝোতার মাধ্যমে বিনা বাধায় এগিয়ে আছেন ভাইস চেয়ারম্যান পদ প্রার্থী সানাউল্লাহ সানু। কিন্তু সমান কদমে নির্বাচনী মাঠে রয়েছেন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদ প্রত্যাশী তিন নারী প্রার্থী। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী রয়েছেন তিন জন। তারা হলেন, এড. মাহমুদা আক্তার (কলস), সালিমা হোসেন শান্তা (ফুটবল) এবং নুরুন্নাহার সন্ধ্যা (হাঁস)।

তিন প্রার্থীই প্রচারণার শেষ দিন পর্যন্ত চালিয়েছেন জোর প্রচারণা। রাত-দিন মিলিয়ে ভোটারদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোট প্রার্থনা করেছেন। নানা প্রতিশ্রুতির মাধ্যমে ভোট প্রার্থনা করেছেন তারা। তবে জনপ্রিয়তার দিক থেকে এগিয়ে আছেন সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মাহমুদা আক্তার। আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে সালিমা হোসেন শান্তার পক্ষে সমর্থনের কথা শোনা গেলেও আওয়ামী লীগ কিংবা অঙ্গসংগঠনের মধ্যে কারোর তেমন জোর প্রচারণা দেখা যায়নি। এদিকে আওয়ামী লীগের আরেক নেত্রী নুরুন্নাহার সন্ধ্যাও প্রার্থী হওয়ায় আওয়ামী লীগের ভোট ভাগাভাগি হবে। কিন্তু বিএনপির একমাত্র প্রার্থী হওয়াতে বিএনপির ভোট পড়বে মাহমুদা আক্তারের পক্ষে।

মঙ্গলবার (১৮ জুন) সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ৫৪টি ভোট কেন্দ্রে চলবে এই ভোটগ্রহণ। নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, বন্দর উপজেলায় মোট ভোটার রয়েছেন ১ লাখ ১৪ হাজার ৫শ’ ৫৩ জন। যার মধ্যে নারী ভোটার ৫৬ হাজার ২শ’ ৬৪ জন এবং পুরুষ ভোটার ৫৮ হাজার ৩শ’ ২৯ জন। মোট ভোট কেন্দ্র রয়েছে ৫৪টি। যার মধ্যে ৪০টি ভোট কেন্দ্রই ঝুকিপূর্ণ বলে চিহ্নিত করেছে জেলা পুলিশ।

সব খবর
রাজনীতি বিভাগের সর্বশেষ