বৃহস্পতিবার ০৯ এপ্রিল, ২০২০

নারায়ণগঞ্জে পুড়লো নরেন্দ্র মোদির কুশপুত্তলিকা

শুক্রবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৭:০৮

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: গত কয়েকদিন ধরে ভারতের দিল্লিতে দাঙ্গার ঘটনায় প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে নারায়ণগঞ্জ ওলামা পরিষদ। এ সময় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কুশপুত্তলিকা দাহ করেছে ক্ষুব্দ তৌহিদী জনতা।

শুক্রবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) জুমার নামাজের পর নারায়ণগঞ্জ শহরের ডিআইটি এলাকায় বঙ্গবন্ধু সড়ক অবরোধ করে এ প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। শহরের বিভিন্ন মসজিদের কয়েকশ’ মুসুল্লী এতে অংশগ্রহণ করেন। প্রায় ঘন্টাব্যাপী এ সমাবেশের কারণে বঙ্গবন্ধু সড়কের এক পাশে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। সমাবেশে শেষে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর কুশপুত্তলিকা দাহ করা হয়।

সমাবেশে বক্তব্য রাখেন নারায়ণগঞ্জ ওলামা পরিষদের সভাপতি ও নারায়ণগঞ্জ জেলা হেফাজতে ইসলামের আমির মাওলানা আব্দুল আউয়াল, সাধারণ সম্পাদক মাওলানা জাকির হোসেন কাসেমী, যুগ্ম সম্পাদক মাওলানা ফেরদাউসুর রহমান, ওলামা পরিষদ নেতা মাওলানা ইসমাইল আব্বাসী, মুফতি দেলোয়ার হোসাইন, মাওলানা আমানুর হোসাইন প্রমুখ।

হেফাজত ইসলামের নেতা আব্দুল আউয়াল বলেন, ‘বাংলাদেশ সরকার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী অনুষ্ঠান করতে যাচ্ছে। সেই অনুষ্ঠানে নরেন্দ্র মোদিকে অতিথি করা হয়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আপনার কাছে অনুরোধ করতে চাই, আপনার বাবার একশ’ বছর পূর্তি অনুষ্ঠান শান্তিপূর্ণভাবে করতে চাইলে অনতিবিলম্বে মোদীর পক্ষ থেকে ভারতে মুসলমান নিধন বন্ধ করতে হবে।’

বাংলাদেশ সরকারের প্রতি হুশিয়ারি দিয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা ছোট্ট করে অওয়াজ দিয়ে যাচ্ছি। এখনও পরিকল্পনার ষোলো-সতেরো দিন বাকি। এর মধ্যে ভারতে মুসলিম হত্যা না কমলে বাংলাদেশে আগুন জ্বলতে থাকবে। আপনার বাবা, জাতির পিতার অনুষ্ঠান আপনি সুন্দরভাবে করতে পারবেন না। বারবার বলে যাচ্ছি, আমাদেরকে ছোট্ট নজরে দেখবেন না। আমরা এখন ছোট্ট করে বলতেছি, এই ছোট্ট কথা কিন্তু সারাদেশে ছড়িয়ে যাবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘ভারতে মুসলিম নিধন বন্ধ না হলে মোদিকে বাংলার এয়ারপোর্টে নামতে দেয়া হবে না। বাংলাদেশের লক্ষ জনতার রক্ত বয়ে যাবে। আল্লামা আহমদ শফিকে নিয়ে আমরা রাজপথে নামবো। মোদীর বিমানকে আমরা আটকে দেবো।’

আব্দুল আউয়াল বলেন, ‘আমার মুসলমান ভাইদের হত্যা করা হচ্ছে আর মোদি সরকার এসে রঙের গান গাইবা তা হতে দেবো না। আমরা বাংলাদেশের মুসলমান আঙুল চুষবো না। মুসলিম উগ্রপন্থী নয়। আমরা শান্তিপ্রিয়। আমরা কোন সংখ্যালঘুর উপর আক্রমন করবো না।’

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের দেয়া বক্তব্যের সমালোচনা করে হেফাজতে ইসলামের এই নেতা বলেন, ‘এটা ভারতের অভ্যন্তরীণ ব্যাপার নয়। আমাদের দেশে যখন গন্ডগোল শুরু হবে তখন সেটাকেও অভ্যন্তরীণ ব্যাপার বলে চুপ থাকবেন, ভিন্ন কোন কথা বলতে পারবেন না। মুসলমান নিধন হবে আর আমরা মেনে নেবো না। এক সপ্তাহের মধ্যে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে যদি কোন প্রতিবাদ ব্যবস্থা না নেওয়া হয় তাহলে আমরা বৃহত্তর কর্মসূচি ঘোষণা দেবো।’

সব খবর
নগর বিভাগের সর্বশেষ