বুধবার ২১ এপ্রিল, ২০২১

নারায়ণগঞ্জে টিকা গ্রহীতার সংখ্যা অর্ধলাখ ছাড়িয়েছে

বুধবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ২০:৩২

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জে টিকা গ্রহীতার সংখ্যা অর্ধলাখ ছাড়িয়েছে। জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের তথ্য অনুযায়ী বুধবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) পর্যন্ত করোনাভাইরাসের প্রতিষেধক কোভিশিল্ড টিকার (ভ্যাকসিন) প্রথম ডোজ গ্রহণ করেছেন ৫০ হাজার ৯১৮ জন ব্যক্তি। জেলার দু’টি সরকারি হাসপাতাল ও চারটি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে টিকা প্রদান কার্যক্রম চলছে।

বুধবার সকালে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল (ভিক্টোরিয়া) হাসপাতাল কেন্দ্রে টিকা নিয়েছেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন। একই কেন্দ্রে টিকা নিয়েছেন খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা ও জেলা বিএনপির আহ্বায়ক অ্যাড. তৈমুর আলম খন্দকার। দুপুরে কোভিড ডেডিকেটেড নারায়ণগঞ্জ ৩শ’ শয্যা হাসপাতাল কেন্দ্রে টিকা নিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ একেএম শামীম ওসমান। আগের দিন তার স্ত্রী, পুত্র, কন্যাসহ পরিবারের অন্যান্যরা একই কেন্দ্রে করোনার টিকা নেন।

জেলা করোনা ফোকাল পারসন সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. জাহিদুল ইসলাম জানান, বুধবার একদিনে টিকা নিয়েছেন ৫ হাজার ৮৬৩ জন। তাদের মধ্যে পুরুষ ৩ হাজার ৮৭১ জন এবং নারীর সংখ্যা ১ হাজার ৯৯২ জন। কোভিড ডেডিকেটেড নারায়ণগঞ্জ ৩শ’ শয্যা হাসপাতালে সর্বোচ্চ ১ হাজার ৮২৯ জন টিকা নিয়েছেন। নারায়ণগঞ্জ জেনারেল (ভিক্টোরিয়া) হাসপাতালে টিকা নিয়েছেন ১ হাজার ৫৪০ জন। এছাড়া বন্দর, সোনারগাঁ, আড়াইহাজার ও রূপগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যথাক্রমে ৫৮০ জন, ৮৪৫ জন, ৪১৩ জন এবং ৫৭৬ জন টিকা নিয়েছেন।

সিভিল সার্জন কার্যালয়ের জ্যেষ্ঠ স্বাস্থ্য শিক্ষা কর্মকর্তা ডা. আমিনুল ইসলাম জানান, গত ৭ ফেব্রুয়ারি সারাদেশে একযোগে গণটিকা কার্যক্রম শুরু হয়। জেলার ছয়টি কেন্দ্রে এই টিকা প্রদান কার্যক্রম চলছে। বুধবার পর্যন্ত ৫০ হাজার ৯১৮ জন করোনার টিকা নিয়েছেন। নারায়ণগঞ্জে ১ লাখ ৫৬ হাজার বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। প্রথম ডোজ হিসেবে সমপরিমাণ ব্যক্তিকে এই টিকা দেওয়া হবে বলে জানান তিনি। দ্বিতীয় ডোজের জন্য আবারও টিকা বরাদ্দ দেওয়ার কথা রয়েছে।

শুরুর দিকে নারায়ণগঞ্জ জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে নিয়মিত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত, মৃত্যু, সুস্থতার পাশাপাশি করোনার ভ্যাকসিন গ্রহণের তথ্য সম্বলিত একটি তালিকা প্রকাশ করা হতো। তবে এই কার্যক্রম এখন অনিয়মিত হয়ে গেছে। সর্বশেষ গত ১৯ ফেব্রুয়ারির পর আর কোনো তথ্য সেখানে প্রকাশিত হয়নি।

সব খবর
নগর বিভাগের সর্বশেষ